previous arrow
next arrow
previous arrownext arrow
Slider
Loading...
আপনি এখানে  প্রচ্ছদ  >  শীর্ষ সংবাদ  >  বর্তমান নিবন্ধ

হবিগঞ্জের নিবন্ধিত দৈনিক পত্রিকার অনেকগুলোই ‘অনিয়মিত’

কোন-কোনটি ছাপাই হচ্ছে না, মিডিয়াভূক্ত পত্রিকাগুলোর প্রচার সংখ্যায় ‘গোলমাল’!

 জুন ২৪, ২০২০  /  কোন মন্তব্য নাই

স্টাফ রিপোর্টার॥ পার্শ্ববর্তী জেলা সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়ার তুলনায় আমাদের হবিগঞ্জ থেকে প্রকাশিত পত্র-পত্রিকার সংখ্যা বেশী। কিছু পত্রিকা দৈনিক আবার কিছু সাপ্তাহিক, দু-একটি পত্রিকা আবার মাসিকও বের হয়ে থাকে। সর্বোপরি সংবাদপত্রের ভাণ্ডার হিসেবে গণ্য করা হয়েছে হবিগঞ্জকে। কর্মরত সাংবাদিকদের পরিচালনায় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের ৩১ ডিসেম্বর ১৯ ইং এর প্রকাশিত তালিকা অনুযায়ী দেশে বর্তমানে নিবন্ধিত দৈনিক পত্রিকার সংখ্যা ১ হাজার ২৭৭টি। এর মধ্যে জাতীয় বাংলা দৈনিক ৫’শ ২০টি এবং আঞ্চলিক বাংলা দৈনিক ৭’শ ৫৭ টি। তাছাড়া ১ জানুয়ারি ২০ইং এর প্রকাশিত তালিকা অনুযায়ী দেশের মিডিয়া তালিকাভূক্ত দৈনিক পত্র-পত্রিকার সংখ্যা ৫’শ ৫১টি যার মধ্যে জাতীয় বাংলা দৈনিক ২’শ ৫৪ টি এবং আঞ্চলিক বাংলা দৈনিক ২’শ ৯৭ টি।

চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের ৩১ ডিসেম্বর ১৯ইং তারিখে সারাদেশের নিবন্ধিত পত্র-পত্রিকার পরিসংখ্যান হতে দেখা যায় যে, হবিগঞ্জ জেলা থেকে নিবন্ধিত পত্রিকার সংখ্যা ২০টি, সর্বশেষ সংযুক্ত হয়েছে ২১তম পত্রিকা হিসেবে দৈনিক আমার হবিগঞ্জ। পূর্ব নিবন্ধিত পত্রিকাগুলো হলো দৈনিক প্রতিদিনের বাণী (৩০৭), দৈনিক খোয়াই (৩০৮), দৈনিক স্বদেশ বার্তা (৩০৯), দৈনিক প্রভাকর(৩১০), দৈনিক হবিগঞ্জের আয়না (৩১১), দৈনিক হবিগঞ্জ এক্সপ্রেস(৩১২), দৈনিক হবিগঞ্জ সমাচার (৩১৩), দৈনিক আজকের হবিগঞ্জ (৩১৪), দৈনিক আয়না (৩১৫), দৈনিক বিবিয়ানা (৩১৬), দৈনিক লোকালয় বার্তা (৩১৭), দৈনিক তরফ বার্তা (৩১৮), দৈনিক হবিগঞ্জের জনতার এক্সপ্রেস (৩১৯), দৈনিক দেশজমিন (৩২০), দৈনিক বিজয়ের প্রতিধ্বনি (৩২১), দৈনিক হবিগঞ্জের সময় (৩২২), দৈনিক হবিগঞ্জের জননী (৩২৩), দৈনিক বরাক প্রতিদিন (৩২৪), দৈনিক হবিগঞ্জের বাণী (৩২৫) ও দৈনিক হবিগঞ্জের মুখ (৩২৬)।

চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের ৩১ ডিসেম্বর ১৯ইং তারিখে প্রকাশিত মিডিয়াভূক্ত ২৯৭ টি। আঞ্চলিক বাংলা দৈনিক এর মধ্যে হবিগঞ্জ জেলা থেকে মিডিয়া তালিকাভূক্ত পত্রিকার সংখ্যা ৬ টি। সেগুলো হলো দৈনিক খোয়াই (২৭০), দৈনিক হবিগঞ্জের জনতার এক্সপ্রেস (২৭১), দৈনিক প্রতিদিনের বাণী (২৭২), দৈনিক স্বদেশ বার্তা (২৭৩), দৈনিক প্রভাকর (২৭৩) এবং দৈনিক হবিগঞ্জের আয়না (২৭৫)।

চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের ১লা জানুয়ারী ২০ইং তারিখে প্রকাশিত তালিকা অনুযায়ী প্রচারের শীর্ষে দৈনিক খোয়াই, তাদের প্রকাশিত দৈনিক প্রচার সংখ্যা দেখানো আছে ৫ হাজার, যেখানে দৈনিক হবিগঞ্জের জনতার এক্সপ্রেস, দৈনিক প্রতিদিনের বাণী, দৈনিক স্বদেশ বার্তা, দৈনিক প্রভাকর এবং দৈনিক হবিগঞ্জের আয়না এর প্রচার সংখ্যা দেখানো হয়েছে যথাক্রমে ৩ হাজার ৫’শ, ৩ হাজার ৮০, ৩ হাজার ৭০, ৩ হাজার ১৫ এবং ৩ হাজার ১০। প্রচার সংখ্যার উপরে নির্ভর করে চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তর প্রতিটি পত্রিকার বিজ্ঞাপনের হার নির্ধারণ করে থাকে। সেই অনুযায়ী দৈনিক খোয়াই এর বিজ্ঞাপনের হার ৯৮.৮০ টাকা এবং অন্যগুলোর জন্য বিজ্ঞাপনের হার ধরা হয়েছে ৯৭.৫০ টাকা।

হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের ওয়েবসাইটে উল্লেখিত নিবন্ধিত হবিগঞ্জের দৈনিক পত্রিকা উল্লেখ আছে ১৪ টি। সেগুলো হলো দৈনিক বিবিয়ানা, দৈনিক খোয়াই, দৈনিক হবিগঞ্জ সমাচার, দৈনিক হবিগঞ্জের জনতার এক্সপ্রেস, দৈনিক প্রতিদিনের বাণী, দৈনিক আজকের হবিগঞ্জ, দৈনিক প্রভাকর, দৈনিক দেশজমিন, দৈনিক স্বদেশবার্তা, দৈনিক হবিগঞ্জের আয়না, দৈনিক তরফবার্তা, দৈনিক লোকালয় বার্তা, দৈনিক বিজয়ের প্রতিধ্বনি ও দৈনিক হবিগঞ্জ সময়।

দৈনিক আমার হবিগঞ্জের এক সরেজমিন অনুসন্ধানে দেখা যায়, চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের ৩১ ডিসেম্বর ১৯ইং তারিখে হবিগঞ্জের নিবন্ধিত পত্র-পত্রিকার মধ্যে দৈনিক হবিগঞ্জের আয়না, দৈনিক হবিগঞ্জ এক্সপ্রেস, দৈনিক আয়না, দৈনিক তরফবার্তা, দৈনিক দেশ জমিন, দৈনিক হবিগঞ্জের জননী, দৈনিক বরাক প্রতিদিন ও দৈনিক হবিগঞ্জের বাণী অনিয়মিতভাবে প্রকাশিত হচ্ছে। কোন কোনটি একেবারে প্রকাশিত হচ্ছে না।

হবিগঞ্জের পত্রিকা প্রিন্টিং ব্যবসায় জড়িত একজন অভিজ্ঞ ব্যবসায়ী জানান, চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের ১লা জানুয়ারী ২০ইং তারিখে প্রকাশিত তালিকা অনুযায়ী হবিগঞ্জ জেলায় মিডিয়াভূক্ত ৬টি পত্রিকার যে প্রচার সংখ্যা উল্লেখ করা আছে বাস্তবে সেই সংখ্যার কোন মিল নেই। উল্লেখ্য, হবিগঞ্জে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের বিস্তার, গণপরিবহন বন্ধ এবং পত্রিকা বিপণনজনিত সমস্যাসহ উদ্ভূত পরিস্থিতিতে হবিগঞ্জ থেকে প্রকাশিত সকল দৈনিক পত্রিকার প্রকাশ সাময়িক বন্ধ ঘোষণা করেন স্থানীয় পত্রিকার সম্পাদকবৃন্দ। তবে কিছু কিছু দৈনিক পত্রিকার অনলাইন চালু রাখা হয়েছে। পাঠকের চাহিদায় বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা অনুসরণ করে প্রকাশনার শুরু থেকেই হবিগঞ্জের ২১তম দৈনিক পত্রিকা ‘‘দৈনিক আমার হবিগঞ্জ’’ নিয়মিতই ৫ হাজার কপি বিতরণ করে আসছে।

তাছাড়া ‘‘দৈনিক হবিগঞ্জের জনতার এক্সপ্রেস’’, ‘‘দৈনিক প্রতিদিনের বাণী’’, ‘‘দৈনিক স্বদেশ বার্তা’’, ‘‘দৈনিক প্রভাকর’’ এবং ‘‘দৈনিক হবিগঞ্জের আয়না’’ এর প্রচার সংখ্যা দেখানো হয়েছে যথাক্রমে ৩ হাজার ৫’শ, ৩ হাজার ৮০, ৩ হাজার ৭০, ৩ হাজার ১৫ এবং ৩ হাজার ১০। তবে বাস্তবে উল্লেখিত পরিমাণ ছাপা হচ্ছে কিনা এ নিয়ে অনেকেই সন্দীহান।

পত্রিকা মিডিয়া তালিকাভূক্তির জন্য যেসব প্রয়োজনীয় তথ্যাবলি অত্যাবশ্যকীয় হিসেবে চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের কাছে আবেদনে জানাতে হয় সেগুলোর মধ্যে পত্রিকার সাইজ ও পৃষ্ঠা সংখ্যা, প্রতি সংখ্যায় কত কপি ছাপানো হয়, কি পরিমান নিউজপ্রিন্ট প্রতি সংখ্যায় প্রয়োজন, পত্রিকা প্রকাশনা সংখ্যার ১১ ডিজিট ভ্যাট রেজিস্টেশন নাম্বার ও নির্ধারিত সময়ে নিউজপ্রিন্ট ক্রয়ের মুসক চালানের কপি অন্যতম।

উপরোক্ত তথ্যের আলোকে হবিগঞ্জ জেলা তথ্য অফিস এর তথ্য প্রদানকারী কর্মকর্তা বরাবর ২৫ মার্চ ২০ইং তারিখে জিজ্ঞেস করা হয় যে, (১) চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের ৩১ ডিসেম্বর ১৯ইং তারিখে প্রকাশিত তালিকা অনুযায়ী হবিগঞ্জ জেলায় নিবন্ধিত ২০ টি পত্রিকার মধ্যে কতোগুলো নিয়মিত প্রকাশিত হচ্ছে? (২) চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের ১লা জানুয়ারী ২০ইং তারিখে প্রকাশিত হবিগঞ্জ জেলা থেকে মিডিয়া তালিকাভূক্ত ৬টি পত্রিকার যে প্রচারসংখ্যা চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের প্রকাশিত তালিকায় উল্লেখ করা হয়েছে, সেই প্রচার সংখ্যার সাথে বাস্তব প্রচার সংখ্যা প্রমানীত করার মতো কোন তথ্য আপনার কাছে রয়েছে কিনা? থাকলে সেগুলো প্রকাশ করুন। হবিগঞ্জ জেলা তথ্য অফিস থেকে এই রিপোর্ট প্রকাশের পূর্ব পর্যন্ত কোন উত্তর পাওয়া যায়নি।

দৈনিক হবিগঞ্জের আয়না পত্রিকার সম্পাদক রাশেদ আহমেদ খানের সাথে এ বিষয়ে জিজ্ঞেস করলে তিনি জানান, আমাদের পত্রিকা ‘অফিসিয়ালি’ নিয়মিতই সঠিক পরিমাণেই প্রকাশিত হচ্ছে। গত কিছু দিন আগে চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের ২ জন অফিসার আমাদের অফিসে অডিট করে সবকিছু সঠিক পেয়েছেন।

দৈনিক খোয়াই এর সম্পাদক আলহাজ্ব শামীম আহসান বলেন, আমরা চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের তালিকায় উল্লেখিত পরিমাণেই প্রতিদিন পত্রিকা প্রকাশ করছি।

হবিগঞ্জ জেলার সম্মানিত জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসানের কাছে জিজ্ঞেস করা হয় যে, চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের প্রকাশিত হবিগঞ্জ জেলার নিবন্ধিত ও মিডিয়াভূক্ত পত্রিকাগুলো আদৌ ঘোষনাপত্র অনুযায়ী প্রকাশিত ও প্রচারিত হচ্ছে কিনা আর এই বিষয়ে হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্য্যালয় কি ভূমিকা রাখছে? এই প্রশ্নের উত্তরে জেলা প্রশাসক জানান যে, বিষয়টি সম্পর্কে তিনি অবগত আছেন এবং যথারীতি ব্যবস্থা গ্রহণের পরিকল্পনা করেছেন।

  • প্রকাশক ও সম্পাদকঃ সুশান্ত দাস গুপ্ত

  • যেভাবে নিউজ পাঠাবেন

    নিউজ পাঠাতে ইচ্ছুক যে কেউ news@amarhabiganj.com এই ঠিকানায় নিজের নাম, ঠিকানা ও মোবাইল নাম্বার দিয়ে নিউজ পাঠাতে পারেন। আমরা যাচাই বাচাই শেষে আপনার নিউজ যথারীতি প্রকাশ করবো। উল্লেখ্য, নিউজগুলো অবশ্যই হবিগঞ্জ সম্পর্কিত হতে হবে।

  • জরুরী নোটিশ

    দৈনিক আমার হবিগঞ্জ এর প্রতিটি নিউজ ১০০ ভাগ মৌলিক। যদি কোন সংবাদকর্মী অন্য কারো বা অন্য কোন নিউজ কপি করেন এবং সেটা প্রমানিত হয় তাহলে তাকে বিনা নোটিশে দৈনিক আমার হবিগঞ্জ থেকে বরখাস্ত করা হবে এবং যথারীতি আইনী প্রক্রিয়ার আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

You might also like...

হবিগঞ্জ অনলাইন প্রেসক্লাবের বার্ষিক মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত।

আরও পড়ুন →

This function has been disabled for Amar Habiganj-আমার হবিগঞ্জ.

Don`t copy text!