previous arrow
next arrow
previous arrownext arrow
Slider
Loading...
আপনি এখানে  প্রচ্ছদ  >  শীর্ষ সংবাদ  >  বর্তমান নিবন্ধ

দৈনিক ‘আমার হবিগঞ্জ পত্রিকা’র সম্পাদক সুশান্তে’র ন্যায়বিচার প্রসঙ্গেঁ

মনে রাখতে হবে, একজন নাগরিকের আইনগত অধিকার নিশ্চিত করাই আইন পেশার নৈতিক আদর্শ।

 জুন ২, ২০২০  /  কোন মন্তব্য নাই

বিশেষ প্রতিনিধি :  আইন-সহায়তা পাওয়া একজন নাগরিকের আইনগত অধিকার। কিন্তু হবিগঞ্জ জেলায় এই বিষয়ে এক ভয়াবহ পরিস্থিতির মোকাবেলা করছে ‘ দৈনিক আমার হবিগঞ্জ’পত্রিকার সম্পাদক সুশান্ত দাশ গুপ্ত । হবিগঞ্জ আইনজীবী সমিতি’র কোনো আইনজীবী আইনী সহায়তায় যেনো এগিয়ে না আসেন, তার জন্য প্রভাব খাঠানো হচ্ছে এই সম্পাদকের বিরুদ্ধে করা মামলায় । এই পত্রিকার সম্পাদক জেলে গেছেন জনস্বার্থে সত্যকথা সাহসের সাথে তার কলমে তোলায়। সাংবাদিকতার দায়িত্ব পালনে, যদি এই কলমে লেখা অক্ষর গুলো সত্যিই মিথ্যা হতো, তাহলে এই পত্রিকার প্রচার বন্ধ করার সুযোগও ছিল , তথ্য মন্ত্রনালয়ের কাছে লিখিত আবেদনের মাধ্যমে। তথ্য উপাত্ত দিয়ে।
এটি যে কোনো আইনপ্রনেতার জন্য খুবই সহজসরল একটি পদক্ষেপ। কিন্তুু এসব পদক্ষেপে না গিয়ে, একজন পত্রিকার সম্পাদক’কে রাতারাতি জেলে নেওয়া এবং তিনি যেনো কোনো আইনী সহায়তা না পান তার জন্য আইনজীবীদেরকে ভয়ভীতি দেখানো ও ( ভার্চূয়াল কোর্ট ) এজলাসের পাশে দাড়িঁয়ে বিব্রত আচারণ দেখানো একজন সাধারণ নাগরিকের জন্য ন্যায়বিচারের প্রাপ্তিতে সহায়ক পরিস্থিতি বা পরিবেশ হতে পারে না।

তাছাড়া আইনের উধের্ধ তো আমরা কেউই নই। মনে রাখতে হবে, একজন নাগরিকের আইনগত অধিকার নিশ্চিত করাই আইন পেশার নৈতিক আদর্শ । যা হোক, আমি গত রাতে যখন খবর পেলাম, ‘দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকা’র সম্পাদকের বিরুদ্ধে করা মামলায় আইনী সহায়তার বিষয়ে বাঁধা সৃষ্টির চেষ্টা চলছে,তখন আমি সিদ্ধান্ত নিলাম, ‘দৈনিক আমার হবিগঞ্জ’পত্রিকাটি’র সম্পাদক সুশান্ত দাশ গুপ্তের পক্ষে আইনী সহায়তায় আমি থাকবো । কারণ আমি সবসময় সত্যপথে কাজ করতে পছন্দ করি।

আজ কিছু সংখ্যাক আইনজীবীর আচরণ দেখে মনে প্রশ্ন জেগেছে, আসলে তারা কি ভূলে গেছেন এটি আদালত! পবিত্রতম স্হান। এখানে মানুষ ন্যায় বিচার পেতে ছুটে আসে। এ শহরের পূর্বপুরুষদের বীরত্বের ইতিহাস, আইনপেশার নৈতিক শিক্ষা বা পূর্ববর্তী শ্রদ্ধেয় জন ও তাঁদের গর্বিত অর্জন গুলোর কথা ?

আমি নিশ্চিত বলতে পারি,আজকের দিনই শেষ কথা নয়। আজকের কর্ম আগামীর ফলাফল বয়ে আনবে।

‘আমার হবিগঞ্জ পত্রিকা’র সম্পাদকের পক্ষে আইনীসহায়তা দিতে গিয়ে আদালতে দাড়িঁয়ে এসব আচরণ দেখে কেবল নিজে’কে বলেছি, হে প্রভূ! তুমি আমাদের ধৈর্যশীল করো। কারণ ধৈর্যশীলদের সাথেই তুমি থাকো বলে আমরা বিশ্বাস করি।
নিশ্চয়ই ধৈর্যশীলরাই একদিন বিজয়ী হবে।
ইতিহাস এটাই সাক্ষ্য দেয়।

হা, এই দীর্ঘ অন্যায়ের বিরুদ্ধে, সত্যের সন্ধানে সকল লড়াকু মানুষ গুলোর পাঁশে, দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকা’র সম্পাদক সুশান্ত কে মুক্ত করার শেষ পর্যন্ত আমি আছি। পাশেঁ থাকবো । আশা ও বিশ্বাস নিয়ে বলছি, ইনশাআল্লাহ হবিগঞ্জের সত্যের আকাশে সূর্য একদিন উদিত হবেই।

  • প্রকাশক ও সম্পাদকঃ সুশান্ত দাস গুপ্ত

  • যেভাবে নিউজ পাঠাবেন

    নিউজ পাঠাতে ইচ্ছুক যে কেউ news@amarhabiganj.com এই ঠিকানায় নিজের নাম, ঠিকানা ও মোবাইল নাম্বার দিয়ে নিউজ পাঠাতে পারেন। আমরা যাচাই বাচাই শেষে আপনার নিউজ যথারীতি প্রকাশ করবো। উল্লেখ্য, নিউজগুলো অবশ্যই হবিগঞ্জ সম্পর্কিত হতে হবে।

  • জরুরী নোটিশ

    দৈনিক আমার হবিগঞ্জ এর প্রতিটি নিউজ ১০০ ভাগ মৌলিক। যদি কোন সংবাদকর্মী অন্য কারো বা অন্য কোন নিউজ কপি করেন এবং সেটা প্রমানিত হয় তাহলে তাকে বিনা নোটিশে দৈনিক আমার হবিগঞ্জ থেকে বরখাস্ত করা হবে এবং যথারীতি আইনী প্রক্রিয়ার আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

You might also like...

এমপি’র ব্যক্তিগত সহকারী সেই সুদীপ দাসের নামে আরো ‘‘দুর্নীতির অভিযোগ’’!

আরও পড়ুন →