previous arrow
next arrow
previous arrownext arrow
Slider
Loading...
আপনি এখানে  প্রচ্ছদ  >  হবিগঞ্জ সদর  >  বর্তমান নিবন্ধ

সেখ সেবুলের কবল থেকে সন্তান ফিরে পাচ্ছেন না এক অসহায় মা

হবিগঞ্জ সদর থানায় এমপি’র পিএ সুদীপ দাসের অযাচিত হস্তক্ষেপ

 এপ্রিল ৮, ২০২১  /  কোন মন্তব্য নাই

স্টাফ রিপোর্টার  :  আদালতে মামলা দায়ের করেও সন্তানের দেখা পাচ্ছেন না এক অসহায় মা। সন্তান উদ্ধারে আদালতের নির্দেশ হাতে নিয়ে হবিগঞ্জ সদর থানা পুলিশের দারস্থ হয়েও কোন প্রতিকার পাচ্ছেন না তিনি। উল্টো এমপির ব্যক্তিগত সহকারী সুদ্বীপ দাসের হুমকি ধমকিতে
নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন তিনি।

দৈনিক আমার হবিগঞ্জের কাছে দেয়া এক ভিডিও বক্তব্যে এমনই অভিযোগ করেছেন চুনারুঘাট উপজেলার গাতাবলা গ্রামের জহুর আলীর কন্যা বাউল শিল্পি রুবিনা আক্তার। জানা যায়, ২০১০ সালের ২২ জুন ১ম স্ত্রীর তথ্য গোপন করে বাউল শিল্পি রুবিনা আক্তারকে বিয়ে করেন হবিগঞ্জ সদর উপজেলার দীঘলবাগ গ্রামের আব্দুল মালেকের পুত্র কথিত স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা শেখ সেবুল আহমেদ।

 

 

বিয়ের পর নিজেকে শিল্পপতি ও ঠিকাদার পরিচয়ে ব্যবসায়িক কাজের অযুহাতে বাউল শিল্পি রুবিনার কাছ থেকে নগদ ২ লাখ টাকা হাতিয়ে নেন সেবুল। এদিকে, বিয়ের ১ বছরের মাথায় বাউল শিল্পী রুবিনা জানতে পারেন সেবুলের এর আগে রেহেনা আক্তার নামে আরেকজন স্ত্রী
আছে। ১ম ও ২য় স্ত্রীর অনুমোতি ছাড়াই আবারও মাধবপুর উপজেলার রতনপুর এলাকার নিপা এবং পুরাসুন্দা এলাকার খাদিজা নামে আরেক
যুবতিকে বিয়ে করেন সেবুল।

বিষয়টি রীতিমত মাথায় আসমান ভেঙ্গে পড়ার মত হলেও নিজেকে গুছিয়ে নেন বাউল শিল্পী রুবিনা। সিদ্ধান্ত নেন
তার সাথে সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন করার। এর মধ্যে বাউল শিল্পি রুবিনার কোল জুড়ে জন্ম নেয় শেখ সায়মা ইসলাম মুক্তি নামে এক কন্যা সন্তান।

বিষুটি জানার পর গত ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ সালে ২ ফেব্রুয়ারী নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে সেবুলকে তালাক প্রদান করেন বাউল শিল্পি রুবিনা। পরে কৌশলে বাউল শিল্পি রুবিনার ৯ বছর বয়সী কন্যা সন্তানকে তুলে এনে আটকে রাখেন সেবুল। বিভিন্ন সময় নিজেকে আওয়ামী লীগ
নেতা ও পুলিশের ঘনিষ্ট লোক পরিচয় দিয়ে রুবিনাকে হুমকি দিতেন তিনি।

বাধ্য হয়ে বাউল শিল্পী রুবিনা দারস্থ হন এমপি আবু জাহিরের ব্যক্তিগত সহকারী সুদীপ দাসের। তবে সুদ্বীপ দাস তাকে কোন সহযোগীতা না করে তাড়িয়ে দেয়ারও অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে দৈনিক আমার হবিগঞ্জ’কে দেয়া এক ভিডিও সাক্ষাৎকারে বাউল শিল্পী রুবিনা বলেন, ‘সেবুল পূর্বের বিয়ের কথা গোপন করে প্রতারণার মাধ্যমে আমাকে বিয়ে করেছে। আমার সারা জিবনের সঞ্চয় আত্মসাত করেছে। আমি টাকা পয়সা ফেরত চাইলে আমাকে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে। স্কুলে যাবার পথ থেকে আমার মেয়েকে তুলে নিয়ে সুলতান মাহমুদপুরে আটকে রেখেছে সে। সন্তান উদ্ধারের আতালতের নির্দেশ থানায় নিয়ে গেলেও আমার মেয়েকে উদ্ধার করছে না পুলিশ। আমার ধারণা পুলিশ যাওয়ার আগে ফোন দিয়ে সেবুলকে অবগত করা হয়।

এসআই সাইদুর রহমান ও আমাকে বলেছেন যে, এ ব্যাপারে এমপি আবু জাহিরের পিএস সুদ্বীপ দাস মেয়েকে উদ্ধার না করার জন্য সুপারিশ করেছেন। বর্তমানে আমি আমার সন্তানকে না পেয়ে পাগলপ্রায় হয়ে জীবন যাপন করছি। আমি আমার সন্তানকে ফেরত চাই’। অভিযুক্ত শেখ সেবুল আহমেদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমি আমার সন্তানের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে আমার জিম্মায় রেখেছি। সে আমার কাছ থেকে মহিলা কর্মকর্তার মাধ্যমে ১ লাখ টাকা নিয়ে আমাকে ডিভোর্স দিয়েছে। স্টাম্পে লিখিত ভাবে সব কিছুর প্রমাণ আছে।

 

হবিগঞ্জ সদর থানার ওসি মোঃ মাসুক আলী বলেন, ‘সন্তান উদ্ধারের জন্য অভিযান পরিচালনা করলেও উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। এ ব্যাপারে আদালতে মামলা চলমান। এমপির ব্যক্তিগত সহকারী সুদ্বীপ দাসের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘যা ইচ্ছা তাই লেখেন, আপনারা তো আমার বিরুদ্ধে লিখতেছেনই। আমার কিছুই বলার নাই’। এমপির ব্যক্তিগত সহকারী সুদ্বীপ দাসের বিরুদ্ধে অভিযোগটি সত্য নয়।

অনুসন্ধানে জানা যায়, সুদ্বীপ দাস হবিগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য আবু জাহিরের ব্যক্তিগত সহাকারী পদে চাকুরী লাভের পর থেকেই মামলার
তদবির, অফিস আদালতে তদবিরসহ বদলী ও নিয়োগ বাণিজ্য করে আসছেন। তার চত্র-ছায়ায়ই শেখ সেবুল নানা অপকর্ম করে আসছিলেন।
এ বিষয়ে একাধিক প্রমাণাদিসহ একাধিকবার সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশ করে দৈনিক আমার হবিগঞ্জ।

  • প্রকাশক ও সম্পাদকঃ সুশান্ত দাস গুপ্ত

  • যেভাবে নিউজ পাঠাবেন

    নিউজ পাঠাতে ইচ্ছুক যে কেউ news@amarhabiganj.com এই ঠিকানায় নিজের নাম, ঠিকানা ও মোবাইল নাম্বার দিয়ে নিউজ পাঠাতে পারেন। আমরা যাচাই বাচাই শেষে আপনার নিউজ যথারীতি প্রকাশ করবো। উল্লেখ্য, নিউজগুলো অবশ্যই হবিগঞ্জ সম্পর্কিত হতে হবে।

  • জরুরী নোটিশ

    দৈনিক আমার হবিগঞ্জ এর প্রতিটি নিউজ ১০০ ভাগ মৌলিক। যদি কোন সংবাদকর্মী অন্য কারো বা অন্য কোন নিউজ কপি করেন এবং সেটা প্রমানিত হয় তাহলে তাকে বিনা নোটিশে দৈনিক আমার হবিগঞ্জ থেকে বরখাস্ত করা হবে এবং যথারীতি আইনী প্রক্রিয়ার আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

You might also like...

বিএনপি থেকে আগত আওয়ামী লীগ নেতার দখলে ২শ বছরের পুরনো জিউ আখড়া

আরও পড়ুন →

This function has been disabled for Amar Habiganj-আমার হবিগঞ্জ.

Don`t copy text!