previous arrow
next arrow
previous arrownext arrow
Slider
Loading...
আপনি এখানে  প্রচ্ছদ  >  আজমিরীগঞ্জ  >  বর্তমান নিবন্ধ

কথা রাখেনি কেউ : অবশেষে নিজেদের টাকায় রাস্ত বানাচ্ছে গ্রামবাসী 

 এপ্রিল ৭, ২০২১  /  কোন মন্তব্য নাই

মামুনুর রাশীদ,আজমিরীগঞ্জ প্রতিনিধি ।।  নদীর উপর দীর্ঘ বাঁশের সাঁকো। ওপারে প্রায় ৫০টা পরিবারের ৩০০ মানুষের বসবাস। প্রায় ২ হাজার হেক্টর কৃষি জমির আবাদ কাজের জন্য দৈনিক অসংখ্য মানুষের পারাপার করেন । সবমিলিয়ে এক ব্যস্ততম সাঁকোর নাম আজমিরীগঞ্জের কাকাইলছেও ইউনিয়নের ঘরদাইর নদীর সাঁকো। জনপ্রতিনিধিরা কোনো কথা না রাখায় নিজেদের টাকায় ই রাস্তা নির্মাণ করছেন গ্রামবাসী।
প্রায় ৩০ বছর ধরে একটি পাকা ব্রিজের অপেক্ষমান মানুষের মধ্যে  অসংখ্য মৃত্যু ও দূর্ঘটনার সাক্ষী এই সাঁকো। সাঁকোর ঠিক দক্ষিণ পাশেই ঘরদাইর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। স্বভাবতই নদীর উত্তর পাড়ের শিশুদের স্কুলে যাতায়াতের মাধ্যম এই দীর্ঘকায় সাঁকো ব্যবহার করা হয় । আর বর্ষাকালে নদীর পানি বেড়ে যাওয়ার ফলে সাঁকোটি অকেজো হয়ে পড়ে এবং তাতে নাম নির্দিষ্ট কোন ঘুদারা (বেতনভূক্ত মাঝি) না থাকায় পথচারীদের পড়তে হয় নানা বিড়ম্বনায়।
এই প্রতিবেদকের সাথে কথা হয় সাঁকোতে ছেলে হারানো বাবা হান্নানের সাথে। এ সময় তিনি আবেগ আবেগ-আপ্লুত হয়ে বলেন,এই সাঁকোর কারণে আমার ছেলেটা মারা গেছে। অনেক আত্বীয়স্বজন ও বয়স্ক মানুষ সাঁকো থেকে পড়ে আহত হয়েছে এবং অনেক স্কুল ছাত্রছাত্রীরা হতাহত হয়েছে। তাই আমরা আর অপেক্ষা না করে নিজেরাই চাঁদা তুলে নদীর উপর রাস্তা বানাচ্ছি যদিও রাস্তাটা আমার জায়গার উপর দিতে হচ্ছে।

ছবি : গ্রামবাসীর নিজেদের টাকার মাটি ফেলে রাস্তা নির্মাণ করছেন

এলাকাবাসীর দাবি, এত গভীর নদীতে রাস্তা ও ব্রিজ দেওয়া নিজস্ব অর্থায়নে সম্ভব নয় তাই প্রয়োজন সরকারি সাহায্য সহযোগিতার। তবে এলাকাবাসীর প্রচেষ্টায় যে রাস্তা হচ্ছে সেটা কোন প্রকৌশলীর পরামর্শ ছাড়া হওয়ায় অসংখ্য প্রশ্নের জন্ম দেয়। যেমন বর্ষাকালে এই নদী দিয়ে অসংখ্য বড়বড় ধানের নৌকা, ইটবালুর নৌকা ও অন্যান্য মালবাহী নৌকা চলাচল করে থাকে। কিন্তু সে সেব নৌকা কিভাবে কৃত্রিম সরু ব্রিজ দিয়ে পারাপার হবে? কিংবা নদীর গভীর থেকে তুলে রাখা ব্রিজের দুই পাশে মাটির বস্তা দিয়ে তুলা হয়েছে। সেগুলোই বা কতটা টেকসই হবে। তাই প্রশাসনের উচিত হবে যত দ্রুত সম্ভব হস্তক্ষেপ করে সুন্দর ও নিরাপদ পারাপারের ব্যবস্থা করে দেওয়া।
অথচ এই নদীর ওপর ব্রিজ নিয়ে কম পাশার দান চালনা হয়নি। উপজেলা থেকে ওয়ার্ড পর্যায়ের নির্বাচন পর্যন্ত জনপ্রতিনিধিদের নিকট প্রায় ৩০ বছর যাবত নদীর উত্তর পারের মানুষের বরাবরের মতই অদ্বিতীয় দাবি থাকে তাদের একটি পাকা ব্রিজ করে দেওয়ার।
যে যার মত প্রতিশ্রুতি দিয়ে যাচ্ছেন। ফলাফল অপেক্ষা। স্বল্পসংখ্যক ও স্বল্প আয়ের মানুষের নিজস্ব অর্থায়নে নদীর উপর রাস্তা ও ব্রিজ নির্মাণের ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি, দৈনিক আমার হবিগঞ্জকে বলেন,”তারা আমার কাছে একটা দাবি জানাইছে, আমি তারারে নিয়া ইউএনও’র কাছে একটা ব্রিজের জন্য দরখাস্ত দিছি। ইউএনও বলছে বরাদ্দ আইলে দিব,এইটা এইভাবেই আছে”।
কাকাইলছেও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নুরুল হক ভূইয়া বলেন,”তারা যে সময় দাবি জানাইছে, সেই সময় পরিষদে কোন বরাদ্দ ছিলনা,পরবর্তীতে তারা আর যোগাযোগ করেনি”।
  • প্রকাশক ও সম্পাদকঃ সুশান্ত দাস গুপ্ত

  • যেভাবে নিউজ পাঠাবেন

    নিউজ পাঠাতে ইচ্ছুক যে কেউ news@amarhabiganj.com এই ঠিকানায় নিজের নাম, ঠিকানা ও মোবাইল নাম্বার দিয়ে নিউজ পাঠাতে পারেন। আমরা যাচাই বাচাই শেষে আপনার নিউজ যথারীতি প্রকাশ করবো। উল্লেখ্য, নিউজগুলো অবশ্যই হবিগঞ্জ সম্পর্কিত হতে হবে।

  • জরুরী নোটিশ

    দৈনিক আমার হবিগঞ্জ এর প্রতিটি নিউজ ১০০ ভাগ মৌলিক। যদি কোন সংবাদকর্মী অন্য কারো বা অন্য কোন নিউজ কপি করেন এবং সেটা প্রমানিত হয় তাহলে তাকে বিনা নোটিশে দৈনিক আমার হবিগঞ্জ থেকে বরখাস্ত করা হবে এবং যথারীতি আইনী প্রক্রিয়ার আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

You might also like...

আজমিরীগঞ্জে বোরো মৌসুমের ধানকাটার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন

আরও পড়ুন →

This function has been disabled for Amar Habiganj-আমার হবিগঞ্জ.

Don`t copy text!