previous arrow
next arrow
previous arrownext arrow
Slider
Loading...
আপনি এখানে  প্রচ্ছদ  >  বানিয়াচং  >  বর্তমান নিবন্ধ

বানিয়াচংয়ে ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফুর রহমানের নেতৃত্বে ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন

স্থানীয় প্রশাসন ও ভূমি অফিসের নজরদারি না থাকায় উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ড্রেজার দিয়ে মাটি ও বালু উত্তোলন চালিয়ে যাচ্ছে প্রভাবশালী মহল

 এপ্রিল ৬, ২০২১  /  কোন মন্তব্য নাই

রায়হান উদ্দিন সুমন :  বানিয়াচং উপজেলার ৫নং দৌলতপুর ইউনিয়নের মার্কুলি বাজারের পশ্চিমে হিলালনগর গ্রামের উত্তর পার্শ্বে কুশিয়ারা নদীতে অবৈধ ড্রেজার বসিয়ে বালু বসিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছে ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফুর রহমানের নেতৃত্বে একটি প্রভাবশালী মহল। এই বালু উত্তোলনের ফলে আশেপাশের বসতবাড়ি, রাস্তাঘাটসহ হিলালনগর গ্রামের প্রায় ২৫০ পরিবার নদী ভাঙ্গনের শিকার হচ্ছেন। এই ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলনের বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসন দেখেও যেন না দেখার ভান করছেন।

 

স্থানীয় প্রশাসন ও ভূমি অফিসের নজরদারি না থাকায় উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ড্রেজার দিয়ে মাটি ও বালু উত্তোলন চালিয়ে যাচ্ছে প্রভাবশালী মহল। এতে এলাকার ফসলি জমি নষ্টের পাশাপাশি ভারসাম্য হারাচ্ছে পরিবেশ। এ নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভ থাকলেও প্রভাবশালী ড্রেজার সিন্ডিকেটের ভয়ে কেউ মুখ খোলার সাহস পাচ্ছে না।

 

 

ছবি : মার্কুলী বাজারের পাশে কুশিয়ারা নদীতে বালু উত্তোলনের জন্য বসানো ড্রেজার মেশিন। ইনসেটে ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফুর রহমান

 

 

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,৫নং দৌলতপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান লুৎফুর রহমানের নেতৃত্বে তোফায়েল,মঈন উদ্দিন ও অমর রায় গংরা গত শনিবার স্থানীয় খাদ্য গুদামের সীমানা প্রাচীরের ভিতর ভরাট করার জন্য কুশিয়ারা নদীতে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে আসছেন এই লুৎফুর রহমান গংরা। এর ফলে আশেপাশের বিভিন্ন স্থাপনা ধসে যাচ্ছে এবং হুমকির মুখে পড়ছে পরিবেশ। এসব ড্রেজার দিয়ে গ্রামাঞ্চলের খাল, বিল,পুকুর ও নদী থেকে যত্রতত্র ভূগর্ভস্থ বালু উত্তোলন করায় আতঙ্কে রয়েছেন এলাকাবাসী। বছরের পর বছর ধরে ড্রেজার মালিকরা এ অবৈধ কাজটি করলেও প্রশাসনের কোনো ভূমিকা নেই।

 

ড্রেজার দিয়ে উত্তোলনকৃত বালুর বেশিরভাগই স্থানীয় ঠিকাদাররা তাদের নির্মাণ কাজে ব্যবহার করেন। সড়ক ও সরকারি স্থাপনার মেঝে ভরাট করা হচ্ছে এ বালু দিয়ে। ভূগর্ভস্থ এ বালুতে কাদামাটির পরিমাণ বেশি থাকে। ফলে মাটি মিশ্রি এ বালু দিয়ে স্থাপনা টেকসই না হওয়ায় প্রতিবছর সরকারের উন্নয়ন কাজের কোটি কোটি টাকা গচ্চা যাচ্ছে। তাছাড়া কম খরচে ও সহজ পদ্ধতিতে বালু পাওয়ায় ঠিকাদারদের পাশাপাশি বসতবাড়ি নির্মাণেও অনেকে পরিবেশ বিধ্বংসী এই ড্রেজার ব্যবহার করছেন। টাকা সাশ্রয় হওয়ায় এই ড্রেজার দিয়ে বালু উঠাচ্ছেন তারা।

 

এলাকাবাসী বিভিন্ন সময় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের বিষয়টি জানালেও তা কোনো কাজে আসছে না বলেও অভিযোগ রয়েছে। উপজেলার দৌলতপুরের কুশিয়ারা নদীর বিভিন্ন স্থানে এভাবে অবৈধ ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলনের কাজ চলমান রয়েছে।

 

এই বিষয়ে বানিয়াচং উপজেলার ৫নং দৌলতপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান লুৎফুর রহমানের সাথে কথা হলে তিনি জানান,গুদামের কিছু জায়গা ভরাট করার জন্য আমার ঠিকাদেরর কাছ থেক কাজ নিয়েছি। তবে এখনো বালু উত্তোলনের কাজ শুরু হয়নি। ড্রেজার মেশিন দিয়ে মাটি বা বালু তোলা অবৈধ সেটা জানেন নি ? এই প্রশ্নের উত্তরে চেয়ারম্যান লুৎফুর রহমান বলেন-হে জানি। তাহলে আপনি জনপ্রতিনিধি হয়ে এই অবৈধ কাজ কেন করছেন-জানতে চাইলে তিনি গাড়িতে আছি পরে কথা বলব এই কথা বলেই তড়িঘড়ি করে মোবাইলের লাইন কেটে দেন।

 

বিস্তারিত জানতে কথা হয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদ রানার সাথে। তিনি দৈনিক আমার হবিগঞ্জকে জানান-বিষয়টা আমার জানা নেই । খোঁজ নিয়ে দেখব।

 

  • প্রকাশক ও সম্পাদকঃ সুশান্ত দাস গুপ্ত

  • যেভাবে নিউজ পাঠাবেন

    নিউজ পাঠাতে ইচ্ছুক যে কেউ news@amarhabiganj.com এই ঠিকানায় নিজের নাম, ঠিকানা ও মোবাইল নাম্বার দিয়ে নিউজ পাঠাতে পারেন। আমরা যাচাই বাচাই শেষে আপনার নিউজ যথারীতি প্রকাশ করবো। উল্লেখ্য, নিউজগুলো অবশ্যই হবিগঞ্জ সম্পর্কিত হতে হবে।

  • জরুরী নোটিশ

    দৈনিক আমার হবিগঞ্জ এর প্রতিটি নিউজ ১০০ ভাগ মৌলিক। যদি কোন সংবাদকর্মী অন্য কারো বা অন্য কোন নিউজ কপি করেন এবং সেটা প্রমানিত হয় তাহলে তাকে বিনা নোটিশে দৈনিক আমার হবিগঞ্জ থেকে বরখাস্ত করা হবে এবং যথারীতি আইনী প্রক্রিয়ার আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

You might also like...

বানিয়াচং থানা পুলিশের উদ্যোগে মাস্ক বিতরণ ও উদ্ধুদ্ধকরণ কর্মসূচি

আরও পড়ুন →

This function has been disabled for Amar Habiganj-আমার হবিগঞ্জ.

Don`t copy text!