previous arrow
next arrow
previous arrownext arrow
Slider
Loading...
আপনি এখানে  প্রচ্ছদ  >  শায়েস্তাগঞ্জ  >  বর্তমান নিবন্ধ

শায়েস্তাগঞ্জ মডেল কামিল মাদ্রাসায় অধ্যক্ষ নিয়োগে অনিয়মের তদন্তে জেলা প্রশাসককে অধিদপ্তরের চিঠি

১৫ লাখ টাকার নিয়োগ বাণিজ্য : বেরিয়ে আসছে থলের বিড়াল

 নভেম্বর ১১, ২০২০  /  কোন মন্তব্য নাই

ছবি: অধ্যক্ষ মোঃ সাহাবুদ্দিন ও শায়েস্তাগঞ্জ মডেল কামিল মাদ্রাসা।

 

তারেক হাবিব : শায়েস্তাগঞ্জ মডেল কামিল মাদ্রাসায় অধ্যক্ষ নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগে তদন্ত শুরু করেছেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান। গত ২২ অক্টোবর বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিদর্শক মোসাম্মৎ ফেরদৌসী আলম স্বাক্ষরিত শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপন সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

এর আগে অধ্যক্ষ নিয়োগে অনিয়ম ও দূর্নীতির অভিযোগ এনে বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তর ও জেলা প্রশাসক হবিগঞ্জ বরাবরে অভিযোগ দায়ের করেন ওই মাদ্রাসার অভিভাবক সদস্য মোঃ লিলু মিয়া। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ওই মাদ্রাসায় কামিল স্তর অনুসরণ না করে ফাজিল স্তরের নীতিমালা অনুসরণ করে অনিয়মের আশ্রয় নিয়ে অধ্যক্ষ নিয়োগের অভিযোগের ঘটনায় ওই অভিভাবক মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন। এর প্রেক্ষিতে জাল-জালিয়াতি ও প্রতারণার মাধ্যমে কাম্য অভিজ্ঞতাবিহীন উপাধ্যক্ষ সাহাব উদ্দিনকে অধ্যক্ষ নিয়োগ দেয়ায় ‘এমপিও আবেদন অনুমোদন না দিয়ে অবৈধ নিয়োগ বাতিলের আবেদন’ তদন্ত করতে হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসককে নির্দেশ দিয়েছে অধিদপ্তর। এদিকে, এ অবৈধ নিয়োগের দ্রæত সুষ্ঠু তদন্ত দাবি করছেন শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলাবাসী।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপন সূত্রে জানা যায়, বর্তমানে সরকার মাদ্রাসাটিকে ২৩ অক্টোবর ২০১৯ তারিখে কামিল স্তরে এমপিওভূক্ত করা হয়। এতে উল্লেখ করা হয়, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভূক্তির এ আদেশ ১ জুলাই ২০১৯ তারিখ থেকে কার্যকর করা হবে। পরে শিক্ষা মন্ত্রণালয় ২৯ এপ্রিল ২০২০ তারিখে আরও এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে কামিল স্তরের শিক্ষক-কর্মচারিদের বেতনভাতাদি প্রদানের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ করে। এতে বলা হয়, কামিল স্তরের শিক্ষক কর্মচারিদের বেতনভাতাদি ১ জুলাই ২০১৯ তারিখ থেকে কার্যকর করা হবে। কিন্তু মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ অধ্যক্ষ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (মাদ্রাসা) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা ২০১৮ এর কামিল স্তর অনুসরণ না করে ফাজিল স্তরের নীতিমালা অনুসরণ করে অধ্যক্ষ নিয়োগ দিয়েছে। নীতিমালায় কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ নিয়োগে ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ বা কামিল মাদ্রাসার উপাধ্যক্ষ পদে ৩ বছরের অভিজ্ঞতার কথা থাকলেও ওই অধ্যক্ষ একটি ফাজিল মাদ্রাসার উপাধ্যক্ষ পদে ছিলেন।

এই নিয়োগে ফাজিল মাদ্রাসার নীতিমালা অনুসরণ করা হয়েছে বলে জানা গেছে। নির্দিষ্ট প্রার্থীকে অধ্যক্ষ পদে নিয়োগ দেয়ার জন্য ২০১৭ সালের পর থেকে দুইবার নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়া হলেও নানা অযুহাতে তা বন্ধ রাখা হয় বলে জানান মাদ্রাসার একাধিক শিক্ষার্থী ও অভিভাবক এবং শিক্ষক। মাদ্রাসা সূত্রে আরও জানা যায়, ২০১৭ সালের ৩১ ডিসেম্বর সাবেক অধ্যক্ষ মুফতি মাওলানা আব্দুল কাইয়ুম অবসরে যান।

এরপর থেকে অধ্যক্ষ পদটি শূন্য ছিল। অভিযোগকারী লিলু মিয়া নামের এক অভিভাবক দৈনিক আমার হবিগঞ্জকে বলেন, ‘মাদ্রাসাটি কামিল স্তরে এমপিওভূক্ত। অথচ অযোগ্য প্রার্থীকে তড়িঘড়ি করে বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (মাদ্রাসা) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা ২০১৮ এর কামিল স্তর অনুসরণ না করে সাহাবুদ্দিনকে অধ্যক্ষ নিয়োগ দিয়েছে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ। আমরা শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলাবাসীর দ্রত সুষ্ঠু তদন্ত চাই। আমাদের কাছে তথ্য আছে জনৈক নেতাকে ১৫ লাখ টাকা ঘুষ প্রদানের মাধ্যমে পূর্ব পরিকল্পীতভাবে অনিয়ম করে নিয়োগ প্রদান করা হয়েছে’। এ বিষয়ে মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিদর্শক (সিলেট বিভাগ) মোসাম্মৎ ফেরদৌসী আলম বলেন, এর তদন্ত চলমান রয়েছে। গত ২২ অক্টোবর একটি নোটিশ দিয়েছি।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসককে বিষয়টি তদন্ত করে সুস্পষ্ট মতামতসহ প্রতিবেদন অধিদপ্তরে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে’।

মাদ্রাসা পরিচালনা বোর্ডের বর্তমান সভাপতি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) উম্মে ইসরাত জানান, অনেকগুলো অভিযোগ আছে, সবগুলোর তদন্ত চলছে। আশা করছি খুব দ্রæত তদন্ত কার্যক্রম শেষ হবে। অভিযুক্ত অধ্যক্ষ সাহাব উদ্দিনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, নিয়োগের বিষয়ে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষই ভাল জানেন এর বেশী কিছু বলা সম্ভব না।

  • প্রকাশক ও সম্পাদকঃ সুশান্ত দাস গুপ্ত

  • যেভাবে নিউজ পাঠাবেন

    নিউজ পাঠাতে ইচ্ছুক যে কেউ news@amarhabiganj.com এই ঠিকানায় নিজের নাম, ঠিকানা ও মোবাইল নাম্বার দিয়ে নিউজ পাঠাতে পারেন। আমরা যাচাই বাচাই শেষে আপনার নিউজ যথারীতি প্রকাশ করবো। উল্লেখ্য, নিউজগুলো অবশ্যই হবিগঞ্জ সম্পর্কিত হতে হবে।

  • জরুরী নোটিশ

    দৈনিক আমার হবিগঞ্জ এর প্রতিটি নিউজ ১০০ ভাগ মৌলিক। যদি কোন সংবাদকর্মী অন্য কারো বা অন্য কোন নিউজ কপি করেন এবং সেটা প্রমানিত হয় তাহলে তাকে বিনা নোটিশে দৈনিক আমার হবিগঞ্জ থেকে বরখাস্ত করা হবে এবং যথারীতি আইনী প্রক্রিয়ার আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

You might also like...

শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে ৫৮ প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল

আরও পড়ুন →

This function has been disabled for Amar Habiganj-আমার হবিগঞ্জ.

Don`t copy text!