previous arrow
next arrow
previous arrownext arrow
Slider
Loading...
আপনি এখানে  প্রচ্ছদ  >  নবীগঞ্জ  >  বর্তমান নিবন্ধ

নবীগঞ্জে স্কুল প্রতিষ্ঠার ৪১ বৎসর পরও শিক্ষার্থীদের একটি দাবী স্কুলে যাইতে ব্রীজ চাই!

 অক্টোবর ১৬, ২০২০  /  কোন মন্তব্য নাই

ছবি: নবীগঞ্জে স্কুল প্রতিষ্ঠার ৪১ বৎসর পরও শিক্ষার্থীদের একটি দাবী স্কুলে যাইতে ব্রীজ চাই!

 

সলিল বরণ দাশ, নবীগঞ্জ : হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার কুর্শি ইউনিয়নের গহরপুর গ্রামের গহরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পুর্বপাশে খালে ব্রীজ না থাকায় স্কুল খুললে দূর্ভোগ পোহাতে হবে স্কুলের শিক্ষার্থী-শিক্ষক সহ দুই শতাধিক গ্রামবাসীকে।স্কুলের যাওয়ার জন্য শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের একমাত্র ভরসা স্কুলের ম্যানিজিং কমিটির সদস্য আব্দুর নূরের বাড়ীর ব্রীজ ও বাড়ীর রাস্তা।

সরেজমিনে দেখা যায়, কুর্শি ইউনিয়নের গহরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ১৯৭৯ সালে প্রতিষ্ঠা হলেও স্বাধিনতার ৪১ বসৎরে স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের চলাচলের জন্য স্কুলের সামনে খালের উপর একটি ব্রিজ হয়নি। স্কুল শিক্ষার্থী সহ গ্রামের অন্তত ২শতাধিক মানুষ এখালের উপরে দিয়ে বাজার সহ বিভিন্ন স্থানে চলাচল করে।গহরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশ দিয়ে ও গহরপুর পঞ্চিম হাটি ও মাঝের হাটির সাথে যাতায়াতের অন্যতম রাস্তা। ব্রিজ না থাকায় বর্ষাকালে কিংবা গ্রীষ্মকালে যেকোনো সময় স্কুলে যাতায়াতের জন্য পাশ্ববর্তী আব্দুর নূরের বাড়ী ব্যবহার করতে হয়।শুধুমাত্র একটি ব্রিজের কারনে গহরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা তাদের স্কুলে যেতে দুর্ভোগ পোহাতে হয়। অন্যের বাড়ির ব্যক্তিগত ব্রিজ ব্যবহার করে তাদের উঠানের উপর দিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে স্কুল শিক্ষার্থী ও গ্রামবাসীকে।একটি ব্রীজ নির্মিত হলে গহরপুর স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও স্থানীয় মানুষের ভোগান্তি দুর হবে বলে এলাকাবাসী মনে করেন।

ওই স্কুলের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী শর্মিলা আক্তার বলেন, আমরা বর্ষার সময় স্কুলে যাই খুব কষ্টে। অন্যের বাড়ির উপর দিয়ে খুব কষ্ট করে যেতে হয়ে।খালে পানি বেড়ে গেলে পানিতে ভিজে স্কুলে যেতে হয়। অনেক সময় কাদা জলে আছাড় খেয়ে পড়ে বই খাতা বিজে যায়। স্কুলে যাইতে আমাদের একটি দাবী একটাই খালের উপর একটি ব্রীজ চাই-!

এলাকার ভুক্তভোগী তাজুদ মিয়া বলেন, “আমাদের চলাচল করতে অনেক সমস্যা হয়। অন্যের বাড়ী ঘুরে খাল পাড় হয়ে যেতে কষ্ট হয়।তাছাড়া পোলাপান স্কুলে যায়। ব্রীজ না থাকায় কষ্ট হয় ওদের। বৃষ্টি বা বর্ষা হলে তো সমস্যা আরো বাড়ে।খালে যখন ভরা পানি থাকে অভিভাবকরা শিক্ষার্থীদেরকে স্কুলে আসতে মানা করে।কোন ধরনের দুর্ঘটনা ঘটার আগে এই খালে যেন অতি তাড়াতাড়ি একটি ব্রিজের সুব্যবস্থা করা হয় সেই দাবী জানাই।

এব্যাপারে গহরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বীনা রঞ্জন দাশ বলেন এলাকার প্রায় দুই শতাধিক মানুষ ও স্কুলের দেড় শতাধিক কোমলমতি শিক্ষার্থীরা কষ্ট করে আসা যাওয়া করে। আমি রাস্তাটি করার জন্য স্থানীয় চেয়ারম্যান মহোদয় সহ উপর মহলে যোগাযোগ করেছি। একটি ব্রিজ না থাকায় শিক্ষক-শিক্ষার্থী, অভিভাবকসহ এলাকাবাসীকে সীমাহীন কষ্ট করতে হচ্ছে।

এব্যপারে গহরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সহকারী শিক্ষা অফিসার মোঃ জিল্লুর রহমান বলেন, এখানে ব্রীজ হলে আমাদের স্কুলের ছোট্ট বাচ্চাদের আসা যাওয়ার কষ্ট দূর হবে। আমি দ্বায়িত্ব নেওয়ার পর এখানে ব্রিজ করার পদক্ষেপ নেই,কিন্তু করোনা মহামারীর কারনে আগানো সম্ভব হয়নি।

কুর্শি ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের ইউপি মেম্বার গোলাম হোসেন চৌধুরী রাজু বলেন, আমি চেয়ারম্যান সাহেবকে নিয়ে এ জনগুরুত্বপূর্ণ স্থানে একটি ব্রীজ নির্মাণ করতে চেষ্টা করছি ।ওই ব্রিজের জন্য স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষার্থী এলাকার মানুষের অনেক দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। তাই সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরের চেষ্টা করে যাচ্ছি। জনস্বার্থে এখানে একটি ব্রীজ করা অতীব প্রয়োজন।

কুর্শি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলী আহমেদ মুসা বলেন,কোমলমতি শিক্ষার্থীসহ এলাকার মানুষের প্রতিদিন যাতায়াতে ভোগান্তি হচ্ছে। স্কুলের শিক্ষার্থী ও এলাকার ভুক্তভোগী মানুষের চলাচলের সুবিধার্থে ওই স্থানের জন্য একটি পাকা ব্রীজ অতিদ্রুত করা জন্য স্হানীয় সাংসদ সহ বিভিন্ন দপ্তরে ব্রিজের জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছি।

  • প্রকাশক ও সম্পাদকঃ সুশান্ত দাস গুপ্ত

  • যেভাবে নিউজ পাঠাবেন

    নিউজ পাঠাতে ইচ্ছুক যে কেউ news@amarhabiganj.com এই ঠিকানায় নিজের নাম, ঠিকানা ও মোবাইল নাম্বার দিয়ে নিউজ পাঠাতে পারেন। আমরা যাচাই বাচাই শেষে আপনার নিউজ যথারীতি প্রকাশ করবো। উল্লেখ্য, নিউজগুলো অবশ্যই হবিগঞ্জ সম্পর্কিত হতে হবে।

  • জরুরী নোটিশ

    দৈনিক আমার হবিগঞ্জ এর প্রতিটি নিউজ ১০০ ভাগ মৌলিক। যদি কোন সংবাদকর্মী অন্য কারো বা অন্য কোন নিউজ কপি করেন এবং সেটা প্রমানিত হয় তাহলে তাকে বিনা নোটিশে দৈনিক আমার হবিগঞ্জ থেকে বরখাস্ত করা হবে এবং যথারীতি আইনী প্রক্রিয়ার আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

You might also like...

নবীগঞ্জে চেয়ারম্যান মেম্বারসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে গনর্ধষণের অভিযোগে মামলা দায়ের

আরও পড়ুন →

This function has been disabled for Amar Habiganj-আমার হবিগঞ্জ.

Don`t copy text!