previous arrow
next arrow
previous arrownext arrow
Slider
Loading...
আপনি এখানে  প্রচ্ছদ  >  রাজনীতি  >  বর্তমান নিবন্ধ

হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের ‘পকেট’ কমিটি !

 অক্টোবর ১২, ২০২০  /  কোন মন্তব্য নাই

 

তারেক হাবিব : হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সদ্য প্রস্তাবিত কমিটিকে ‘পকেট কমিটি’ বলে চিহ্নিত করে চায়ের কাপে ঝড় তুলছেন হবিগঞ্জের সাধারণ মানুষ। পক্ষে বিপক্ষে চলছে নানান সমালোচনা।

কেউ কেউ বলছেন, নিজেদের প্যানেলের পাল্লা ভারী করতেই পকেট কমিটিতে ত্যাগী নেতাদের বাদ দিয়ে যুদ্ধাপরাধী পরিবারের সদস্য, হাইব্রীড নেতাদের অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে।

সম্প্রতি সভাপতি এডঃ মোঃ আবু জাহির এমপি ও সাধারণ সম্পাদক এডঃ আলমগীর চৌধুরী স্বাক্ষরিত একটি তালিকা জেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি বলে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের দপ্তরে জমা দেয়া হয়েছে। তবে অনুসন্ধানে দেখা গেছে, এ কমিটিতে ২৮ জনই আত্মীয় কোটা, যুদ্ধাপরাধী পরিবার, বিদেশী নাগরিক, অনুপ্রবেশকারী, হাইব্রিড/নিষ্ক্রিয়/নবাগত ইত্যাদি।

এ নিয়ে স্থানীয় পত্রিকাসহ বিভিন্ন মিডিয়ায় সংবাদ ও প্রকাশিত হয়েছে। জানা গেছে, কেন্দ্রে জমা দেওয়া ‘পকেট কমিটি’তে স্বাভাবিকভাবেই জেলার ত্যাগীরা স্থান পাননি যারা দলের দুর্দিনে প্রয়োজনে বলিষ্ঠ ভুমিকা রেখেছেন। তবে প্রস্তাবিত নতুন কমিটিতে স্বাধীনতা বিরোধী, নিস্ক্রিয় এবং হাইব্রীড নেতাকর্মী অন্তর্ভূক্তি নিয়ে ক্ষোভ করে নিজেদের কমিটিতে অন্তর্ভূক্তির লক্ষ্যে হবিগঞ্জ জেলার বঞ্চিত ও ত্যাগী নেতাকর্মীরা গত ১৫ সেপ্টেম্বর কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়ার কাছে বঞ্চিত নেতাদের একটি তালিকা জমা দেন।

এ তালিকা অনুসন্ধানে দেখা যায়, এডভোকেট আবুল হাশেম মোল্লা মাসুম, এডভোকেট ফজলে আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কাদির লস্কর, বীর মুক্তিযোদ্ধা আলী আহাম্মদ খান, বীর মুক্তিযোদ্ধা সুকুমল রায়, মর্তুজ আলী, এডভোকেট আবু বক্কর সিদ্দিকি, এডভোকেট মনোয়ার আলী, হায়দারুজ্জামান ধন মিয়া, লুৎফুর রহমান, অনুপ কুমার দেব মনা, এডভোকেট আমাতুল কিবরিয়া  চৌধুরী কেয়া, এডভোকেট আফিল উদ্দিন, এডভোকেট আকবর হোসেন জিতু, এডভোকেট সালেহ আহমেদ, মৃনাল কান্তি রায়, সৈয়দ কামরুল হাসান, সালেহ উদ্দিন আহম্মেদ সালু, এডভোকেট সুমঙ্গল দাশ সুমন, রফিকুল ইসলাম রফিক, মাহফুজুল আলম মাহফুজ, মাহবুব আলম মালু, মোঃ আব্দুল আহাদ, আলহাজ্ব শামছু মিয়া, অমল কুমার দাশ পলাশ, মোতাব্বির খান, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন, আব্দুর রউফ, হেমেন্দ্র চন্দ্র দাস নিতাই, ইয়াহিয়া চৌধুরী, এডভোকেট প্রসেনজিত দাস, ডিএম জয়নুল আবেদিন, মোঃ হারুন অর রশিদ (হারুন), আবুল কাশেম চৌধুরী, রাজিয়া খাতুন, আলম-আরা-চৌধুরী রিতা, আব্দুল কদ্দুছ চকদার মাখন, আক্তার মিয়া ছোবা, শাহ রিজভী আহমেদ খালেদ, রহম আলী, দেলোয়ার চৌধুরী, সৈয়দ ফারুক আহমেদ, বেনু মিয়া তালুকদার, আব্বাস উদ্দিন চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর নুর, আবুল হাসেম মোল্লা ফয়সল, আসকর আলী, আব্দুল কাদির, সালেহ আহমেদ, দেওয়ান মোস্তাক গাজী, মাখন পাল, মোঃ কাশেম আলী, আব্দুল আওয়াল দুদু, আব্দুল মালেক, নওশেদ সুজন, মুকিদুল ইসলাম মুকিদসহ আরো অনেকজন রয়েছেন।

বঞ্চিত নেতাদের তালিকা হস্তান্তরের সময় কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিষ্টার বিপ্লব বড়–য়া জানান, আপনাদের তালিকা নেত্রীর বরাবরে পেশ করা হবে। এ ব্যাপারে চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত তিনিই নিবেন। জানতে চাইলে বঞ্চিত নেতা জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এড. আবুল হাশেম মোল্লা মাসুম বলেন, ‘‘ত্যাগী নেতাদের বাদ দিয়ে অসৎ উদ্দেশ্যে পকেট কমিটি গঠন করা হয়েছে। তবে বঞ্চিত নেতাদের তালিকা নেত্রী বরাবরে পেশ করা হয়েছে। আশা করছি নেত্রী এর সঠিক সুরাহা করবেন’’।

জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক অনুপ কুমার দেব মনা বলেন, ‘‘ত্যাগী নেতাদের যোগ্যতা বিচার করতে আমরা নেত্রীর দিকে চেয়ে আছি। তিনিই আমাদের শেষ ভরসা। আশা করছি তিনি আমাদের সঠিক মুল্যায়ন করবেন’’।

কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের কার্যকরি কমিটির সদস্য ডাঃ মুশফিক হোসেন চৌধুরী জানান, এ বিষয়ে আমি অবগত আছি, যথাসময়ে কেন্দ্রে উপস্থাপন করব।

  • প্রকাশক ও সম্পাদকঃ সুশান্ত দাস গুপ্ত

  • যেভাবে নিউজ পাঠাবেন

    নিউজ পাঠাতে ইচ্ছুক যে কেউ news@amarhabiganj.com এই ঠিকানায় নিজের নাম, ঠিকানা ও মোবাইল নাম্বার দিয়ে নিউজ পাঠাতে পারেন। আমরা যাচাই বাচাই শেষে আপনার নিউজ যথারীতি প্রকাশ করবো। উল্লেখ্য, নিউজগুলো অবশ্যই হবিগঞ্জ সম্পর্কিত হতে হবে।

  • জরুরী নোটিশ

    দৈনিক আমার হবিগঞ্জ এর প্রতিটি নিউজ ১০০ ভাগ মৌলিক। যদি কোন সংবাদকর্মী অন্য কারো বা অন্য কোন নিউজ কপি করেন এবং সেটা প্রমানিত হয় তাহলে তাকে বিনা নোটিশে দৈনিক আমার হবিগঞ্জ থেকে বরখাস্ত করা হবে এবং যথারীতি আইনী প্রক্রিয়ার আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

You might also like...

শারদীয় দুর্গোৎসবের আজ মহানবমী

আরও পড়ুন →

This function has been disabled for Amar Habiganj-আমার হবিগঞ্জ.

Don`t copy text!