previous arrow
next arrow
previous arrownext arrow
Slider
Loading...
আপনি এখানে  প্রচ্ছদ  >  বাহুবল  >  বর্তমান নিবন্ধ

বাহুবলে সাংবাদিক হৃদয়ের পরিবারের বিরুদ্ধে হয়রানি মূলক মামলা : ক্ষোভ

 সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২০  /  কোন মন্তব্য নাই

ছবি: চার্জশীটের কপি ও দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকার সাংবাদিক নাজমুল ইসলাম হৃদয়।

 

স্টাফ রিপোর্টার :

হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলায় পূর্বজয়পুর গ্রামের দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকার সাংবাদিক নাজমুল ইসলাম হৃদয় ও তার পরিবারের উপর সন্ত্রাসীরা হামলা করে। পরে হৃদয়ের মা ৭’জনের বিরুদ্ধে বিজ্ঞ আদালতে মামলা দায়ের করেন।

এর জের ধরে লাঠিয়াল বাহিনী হৃদয় ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে থানায় হয়রানি মূলক মামলা দায়ের করে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ইং তারিখ বিকেলে মোছাঃ নাছিমা খাতুনের নেতৃত্বে একদল দাঙ্গাবাজ সাংবাদিক নাজমুল ইসলাম হৃদয়ের পরিবারের উপর হামলা করে। দাঙ্গাবাজ মোঃ জমির উদ্দিন লোহার রড দিয়ে প্রাণে হত্যার উদ্দেশ্যে সাংবাদিক নাজমুল ইসলাম হৃদয়ের বাবা মোঃ আব্দুল জাহিরকে আঘাত করে। এতে তাঁর আঙ্গুল ভেঙ্গে ফেলে এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে দাঙ্গাবাজরা আঘাত করে।

মোঃ আব্দুল জাহিরকে প্রাণে হত্যার উদ্দেশ্যে সন্ত্রাসীরা ফিকল দিয়ে তাকে আঘাত করে। এ সময় মোঃ আব্দুল জাহির চিৎকার শুনে ঘটনাস্থলে সাংবাদিক নাজমুল ইসলাম হৃদয় ও জীবন মিয়া গিয়ে গেলে দাঙ্গাবাজ সালা উদ্দিন, মহিব উদ্দিন ও গনি মিয়া তাদেরকে মারধর করে আহত করে।

তাদের চিৎকার শুনে এলাকার লোকজন এগিয়ে এসে তাদের উদ্ধার করে বাহুবল উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাদের হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতাল প্রেরণ করা হয়।

এ ব্যাপারে বাদী মোছাঃ দিলারা খাতুন জানান, এ ঘটনায় আমি বাদী হয়ে ৭’জনকে অভিযুক্ত করে বাহুবল মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করতে যাই কিন্তু পুলিশ মামলা নিতে বিভিন্ন অজুহাত দেখায়। পরে আমি ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ইং তারিখে বিজ্ঞ আদালতে ৭’জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছি। উক্ত তারিখে বিজ্ঞ আদালত মামলাটি এফ আই আর ভুক্ত করেন। পরে মামলার আসামীরা ২ দিন পরে আমি সহ আমার পরিবারের বিরুদ্ধে বাহুবল মডেল থানায় ষড়যন্ত্র ও হয়রানি মূলক মামলা দায়ের করে।

সাংবাদিক নাজমুল ইসলাম হৃদয় জানান, আমি পেশাগত একজন সাংবাদিক ও ছাত্র। আমাকে মিথ্যাভাবে হয়রানি করানোর জন্য আসামিগণ ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০ বাহুবল মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে।

স্থানীয়রা জানান, সাংবাদিক নাজমুল ইসলাম হৃদয়ের পরিবারের উপর মিথ্যাভাবে হয়রানির করার জন্য প্রতিপক্ষ মামলা দায়ের করেছে। সাংবাদিক নাজমুল ইসলাম হৃদয়কে তার বাড়িতে এসে সন্ত্রাসীরা হামলা করে গুরুতর আহত করেছিল। উপরন্তু হয়রানি করতে তারা মিথ্যা মামলা করেছে !

জানা যায়, ওই দাঙ্গাবাজরা একই গ্রামের নয়, তারা অন্য গ্রাম রঘুরামপুর থেকে এসে সাংবাদিক পরিবারের উপর হামলা করেছে।

এদিকে সাংবাদিক নাজমুল ইসলাম হৃদয় ও তার পরিবার জুলাই মাসে ২২’দিন জেল খেটে জামিন নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এরই ফাঁকে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা অদৃশ্য কারণে সাংবাদিক হৃদয় ও তার পরিবারকে অভিযুক্ত দেখিয়ে ৩১ আগস্ট ২০২০ইং চার্জশীট দাখিল করেন। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন।

উক্ত চার্জশীটের ১’নং সাক্ষী ইউপি সদস্য তাজুল ইসলাম দুলাল (৪৫) জানান, আমার বাড়ি বিহারীপুর গ্রামে। এই মামলার সম্পর্কে কিছুই জানি না। আমাকে না বলে এই মামলায় সাক্ষী দেওয়া হয়েছে। আমি শুধু জানি আব্দুল জাহির সহ তার পরিবারকে রঘুরামপুর গ্রামের লোকজন এসে মারধর করেছে। এছাড়া আমি ঘটনাস্থলে উপস্থিতও ছিলাম না।

মামলার চার্জশীটের ৩’নং সাক্ষী জুয়েল মিয়া (২৯) জানান, আমি এই মারামারি সম্পর্কে কিছুই জানি না। এই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আমাকে অযথা সাক্ষী হিসেবে দিয়েছেন। আমার বাড়ি বিহারীপুর গ্রাম। যখন মারামারি হয়েছে তখন আমি ঘটনাস্থলে ছিলাম না।

স্থানীয়রা আরো বলেন, “বাহুবল তাঁতীলীগের আহ্বায়ক রাসেল মিয়ার নেতৃত্বে পুলিশ এই মামলার জের ধরে এলাকার অনেক অসহায় মানুষকে মামলা দিয়ে হয়রানি করছে। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন।”

এ বিষয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এস আই সেলিম জানান, “মারামারির সময় আমি ছিলাম না”-“চার্জশিট দিয়েছি” এতে সাক্ষীরা যদি মামলার বিষয়ে জানা না থাকে, তাহলে তাদের আমার কথা বলেন ও আমার সাথে যোগাযোগ করতে বলেন।

এব্যাপারে বাহুবল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ কামরুজ্জামানকে চার্জশিটের বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, “আপনি কি তদন্ত বিষয়ে প্রশ্ন করতে পারেন? এটা তো আদালতের বিষয়। আপনি এর জন্য প্রশ্ন করছেন কেন? চার্জশিট চলে গেছে মামলা বিচারাধীন, তাই প্রশ্ন করা যায় না। এবিষয়ে কিছু বলা যাবে না । এটা আদালতের বিষয়, এতে আমার কোনো বক্তব্য নেই।”

এমন ষড়যন্ত্রমূলক মামলা হওয়ায় প্রত্যক্ষদর্শীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এ হয়রানি থেকে পরিত্রাণ পেতে উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকার সাংবাদিক নাজমুল ইসলাম হৃদয় ও তার পরিবার।

  • প্রকাশক ও সম্পাদকঃ সুশান্ত দাস গুপ্ত

  • যেভাবে নিউজ পাঠাবেন

    নিউজ পাঠাতে ইচ্ছুক যে কেউ news@amarhabiganj.com এই ঠিকানায় নিজের নাম, ঠিকানা ও মোবাইল নাম্বার দিয়ে নিউজ পাঠাতে পারেন। আমরা যাচাই বাচাই শেষে আপনার নিউজ যথারীতি প্রকাশ করবো। উল্লেখ্য, নিউজগুলো অবশ্যই হবিগঞ্জ সম্পর্কিত হতে হবে।

  • জরুরী নোটিশ

    দৈনিক আমার হবিগঞ্জ এর প্রতিটি নিউজ ১০০ ভাগ মৌলিক। যদি কোন সংবাদকর্মী অন্য কারো বা অন্য কোন নিউজ কপি করেন এবং সেটা প্রমানিত হয় তাহলে তাকে বিনা নোটিশে দৈনিক আমার হবিগঞ্জ থেকে বরখাস্ত করা হবে এবং যথারীতি আইনী প্রক্রিয়ার আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

You might also like...

বানিয়াচঙ্গে ১৪ একর সরকারি ভূমি এখনো জেলা কৃষকলীগ সভাপতি হুমায়ুন কবীর রেজার জবর দখলে

আরও পড়ুন →

This function has been disabled for Amar Habiganj-আমার হবিগঞ্জ.

Don`t copy text!