ঢাকারবিবার , ২২ জানুয়ারি ২০২৩
আজকের সর্বশেষ সবখবর

শহরতলী পইলে মাছ চাষে দুর্গন্ধযুক্ত মোরগের বিষ্ঠা : স্বাস্থ্যঝুঁকিতে এলাকার মানুষ

এম এ রাজা
জানুয়ারি ২২, ২০২৩ ৭:৩৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

হবিগঞ্জের পইল গ্রামের বিভিন্ন পুকুরে মাছ চাষে দেওয়া হচ্ছে দুর্গন্ধযুক্ত মোরগের বিষ্ঠা। স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে এলাকার মানুষ। নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে দিন দুপুরে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ট্রাক বোঝাই করে দুর্গন্ধযুক্ত মোরগের বিষ্ঠা এনে দেওয়া হচ্ছে মাছের পুকুর গুলোতে।

বিশেষজ্ঞদের মতে বিষ্ঠা দিয়ে উৎপাদিত মাছ যারা খাবেন তারা দীর্ঘ মেয়াদী বড় ধরনের রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে থাকবেন।সকাল দুপুর ও সন্ধ্যায় তিন বেলা ট্রাক দিয়ে এসব দুর্গন্ধ যুক্ত মোরগের বিষ্ঠা এলাকার ভিতর দিয়ে নিয়ে দেয়া হচ্ছে পুকুরগুলোতে।

পরিবহনের সময় মাত্রা অতিরিক্ত দুর্গন্ধের কারণে ওই সময়গুলোতে পথচারী ও রাস্তার পাশের বাড়ি ঘরের মানুষ অনেকেই বমি পর্যন্ত করতে দেখা যায়। তারপরও প্রভাবশালী ফিশারী ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে মুখ খোলার সাহস পাচ্ছেন না সাধারণ মানুষ।

রুবেল মিয়া নামের স্থানীয় এক বাসিন্দা জানান, গত বৃহস্পতিবার আমি নাজিরপুর ব্রিজের মধ্যে দাঁড়ানো এই সময় আমার পাশে আরো মধ্যবয়স্ক দুইজন লোক দাঁড়ানো ছিলেন। ঠিক তখনই মোরগের বিষ্ঠা নিয়ে যাচ্ছিল একটি ট্রাক মারাত্মক দুর্গন্ধের কারণে একজন লোক অসুস্থ হয়ে পড়েন ওপর একজন বমি করতে থাকেন।

রিপন মিয়া নামের স্থানীয় আরেক যুবক জানান, স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ঝুঁকি এইসব মোরগের বিষ্ঠা দিনে দুপুরে এলাকার ভিতর দিয়ে পরিবহন করছে অথচ স্থানীয় দায়িত্বশীলরা নীরব! দ্রুততম সময়ের মধ্যে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানাচ্ছি আমাদের এলাকা দিয়ে যেন এই সমস্ত দুর্গন্ধযুক্ত মোরগের বিষ্ঠা পরিবহন নিষিদ্ধ করা হয়।

জানা যায়, মাছের খাদ্যদ্রব্যের মূল্য বেড়ে যাওয়ায় মাছের স্বাভাবিক খাদ্যদ্রব্য দিয়ে মাছ চাষে আগের মত আর লাভ হচ্ছে না। তাই অতিরিক্ত মুনাফার আশায় কম মূল্যে নাম মাত্র পরিবহন খরচ দিয়ে জেলা ও জেলার বাহিরের বিভিন্ন মোরগের খামার থেকে এই সমস্ত দুর্গন্ধযুক্ত মোরগের বিষ্ঠা মস্য চাষিরা নিয়ে আসছেন।

এতে করে তারা সামরিক লাভবান হলেও মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পড়ছেন এই সমস্ত মাছ বাজার থেকে কিনে নিয়ে যারা খাচ্ছেন।

বক্তব্য নেওয়ার জন্য হবিগঞ্জ জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলামের মোবাইলে একাধিকবার কল করলেও তিনি রিসিভ করেননি।

হবিগঞ্জ সদর উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ জাকির হোসেন বলেন , মোরগের বিষ্ঠা মানব দেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকারক, আপনার মাধ্যমে বিষয়টা আমি অবগত হয়েছি দ্রুততম সময়ের মধ্যে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করব এবং আপনাকে জানাবো।

 

Developed By The IT-Zone