ঢাকাFriday , 22 December 2023
আজকের সর্বশেষ সবখবর

হবিগঞ্জ-২ : উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় এমপি মজিদ খানের বিকল্প নেই

Link Copied!

স্বতন্ত্র প্রতীক পেয়েই ভোটারদের দ্বারেদ্বারে ছুটছেন হবিগঞ্জ-২ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী (ঈগল) বর্তমান সংসদ সদস্য আলহাজ¦ অ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ খান। সঙ্গে রয়েছে কর্মী-সমর্থকরাও। লক্ষ্য ভোটারের কাছে যাওয়া। তাদের মন জয় করা। ধনী, গরিব, দিনমজুর, শ্রমিক-সবাইকে বুকে জড়িয়ে ধরছেন তিনি।

তীব্র শীত উপেক্ষা করে কাকডাকা ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চালাচ্ছন তৎপরতা। ভোটের প্রচার-প্রচারণায় সরগরম হয়ে উঠেছে হবিগঞ্জ-২ বানিয়াচং আজমিরীগঞ্জ আসন। চা-য়ের দোকান থেকে শুরু করে সর্বত্র আলোচনা আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী মজিদ খান ই কি থাকছেন এমপি হয়ে! এবারের নির্বাচনে বেশিরভাগ আসনে কার্যত আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে আওয়ামী লীগেরই বিকল্প প্রার্থীর।

বিষয়টি গত বুধবার (২০ডিসেম্বর) সিলেটের জনসভায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের খোলাসা করে বক্তব্য দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, নৌকার প্রার্থী নৌকার নির্বাচন করবে আর স্বতন্ত্র প্রার্থীরা করবে স্বতন্ত্রর নির্বাচন। কারো সাথে কারোর ঝগড়াঝাটির কোন প্রয়োজন নেই। তিনি আরো বলেন, এই নির্বাচনকে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী স্বতন্ত্রদেরও প্রার্থী হতে বলেছেন।

এই আসনে হেভিওয়েট প্রার্থী হিসেবে তিনবারের সংসদ সদস্য আলহাজ¦ অ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ খান দলীয় টিকেট না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্র্থী হিসেবে ঈগল প্রতীক নিয়ে মাঠে রয়েছেন। বিগত পনের বছরে দুই উপজেলায় অভুতপূর্ব উন্নয়ন সাধন করেছেন এমপি মজিদ খান। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহযোগিতায় এমপি আবদুল মজিদ খান বানিয়াচং ও আজমিরীগঞ্জ উপজেলাকে বদলে দিয়েছেন।

দুই উপজেলাকে উন্নত করেছেন উন্নয়নের মডেল হিসেবে। টানা তিনবার আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে হবিগঞ্জ-২ বানিয়াচং আজমিরীগঞ্জ থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হত মজিদ খান। নির্বাচিত হয়েই বানিয়াচং আজমিরীগঞ্জের সার্বিক উন্নয়নে মনোনিবেশ করেন।

চির অবহেলিত এই ভাটির জনপদের রাস্তা-ঘাট, ব্রীজ-কালভার্ট যোগাযোগ, শিক্ষা স্বাস্থ্য, বিদ্যুতায়নসহ জনগণের মৌলিক অধিকারের প্রত্যেকটি ক্ষেত্রে পিছিয়ে থাকা এলাকাকে উন্নয়নের দিকে এগিয়ে নেওয়ার সর্বাত্মক চেষ্টা শুরু করেন। ফলে এক সময়ের অবহেলিত এলাকা আজ উন্নয়নের রোড মডেল।

যোগাযোগ, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি, বিদ্যুতায়নসহ সর্বক্ষেত্রে এনেছেন বৈপ্লবিক পরিবর্তন।
বানিয়াচং সদরসহ দুটি উপজেলার ২০টি ইউপিতে বহু ছোট-বড় সড়ক নির্মাণ করেছেন তিনি। যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত হওয়ায় ব্যবসা-বাণিজ্যে যেমন গতি এসেছে, তেমনি আর্থ সামাজিক অবস্থারও পরিবর্তন এসেছে এসব নির্মাণের কারণে। বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ উপজেলার শিক্ষার ব্যাপক প্রসার ঘটেছে। স্কুল-কলেজ সরকারি হওয়ায় শিক্ষার্থীদের হবিগঞ্জ-সিলেট শহরমুখী হওয়ার প্রবণতা কমেছে। ১৭টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভূক্ত করেছেন।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ১৪০টি নতুন ভবন নির্মাণ, দুটি কলেজ ও একটি মাধ্যমিক স্কুলসহ দুটি উপজেলায় ৬৮টি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সরকারী হয়েছে। ১৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন ও ৬টি নতুন প্রাইমারী স্কুল স্থাপন করা হয়েছে। সুফিয়া মতিন মহিলা কলেজ ও শচীন্দ্র ডিগ্রি কলেজে অনার্স চালু হয়েছে। বানিয়াচং ৩১ শয্যার হাসপাতালকে ৫০ শয্যায় উন্নীত করা হয়েছে। ৩৯টি কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপনসহ ৮টি ইউনিয়নে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কল্যাণ স্থাপিত করেছেন।

কৃষির উন্নয়নে ৯৩ কোটি ব্যয়ে মকার হাওর উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ চলছে। উন্নয়নের ফিরিস্তি নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী আলহাজ¦ অ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ খান এমপি সমানতালে ভোটারদের কাছে যাচ্ছেন।

তাই আগামী নির্বাচনে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন এমপি মজিদ খানকে বিজয়ী করার স্বপ্ন দেখছেন হবিগঞ্জ-২ আসনের সর্বস্তরের জনগন।

এই আসনে অন্যান্য দলের প্রার্থীরা হলেন, জাতীয় পার্টির শংকর পাল (লাঙ্গল),কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের অ্যাডভোকেট মনমোহন দেবনাথ (গামছা),ইসমলামী ঐক্যজোটের শেখ হিফজুর রহমান (মিনার), তৃনমূল বিএনপির খায়রুল আলম (সোনালী আঁশ), বিএনএম’র এস এ এম সোহাগ (নোঙ্গর), ইসলামী ফ্রন্ট বাংলাদেশের মোহম্মদ আব্দুল হামিদ ( চেয়ার) ও বাংলাদেশ কংগ্রেস এর প্রার্থী মো: জিয়াউর রশীদ (ডাব)।

আগামী বছরের ৭ জানুয়ারি (রবিবার) দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। উল্লেখ্য, একটি পৌরসভা ও ২০ ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত হবিগঞ্জ-২ নির্বাচনী আসন।

এই আসনে মোট ভোটার রয়েছে ৩ লাখ ৬২ হাজার ৭৩ জন। এর মধ্যে বানিয়াচং উপজেলায় ২ লাখ ৫৯ হাজার ২২ ভোট। আজমিরীগঞ্জে ১ লাখ ৩ হাজার ৫৩ জন ভোটার রয়েছে।