ঢাকাসোমবার , ৮ মার্চ ২০২১

হবিগঞ্জ শহরের হায়দার আলী জেনারেল হাসপাতালের ভূয়া ডাক্তার আব্দুর রহমানের বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি গঠন

অনলাইন এডিটর
মার্চ ৮, ২০২১ ১:০০ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

 

তারেক হাবিব: হবিগঞ্জ শহরের রাজনগর এলাকার হায়দার আলী জেনারেল হাসপাতালে গ্রহন যোগ্য কোন ডিগ্রি ছাড়াই মোটা অঙ্কের টাকা নিয়ে রোগী দেখছেন আব্দুর রহমান নামে এক ভূয়া ডাক্তার। এ নিয়ে দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় গত ২৩ ও ২৪ ফেব্রæয়ারী পর পর অনুসন্ধানী সংবাদ প্রকাশ করলে বিষয়টি নজরে আসে হবিগঞ্জ সিভিল সার্জন অফিসের কর্মকর্তাদের।

পরে সংবাদে প্রকাশিত তথ্য গুলোর সত্যতা যাচাই করতে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। গতকাল রবিবার হবিগঞ্জের সিভিল সার্জন ডাঃ একেএম মোস্তাফিজুর রহমান স্বাক্ষরিত এক আদেশ পত্রে এ কমিটি গঠন করা হয়। ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ মুখলিছুর রহমানকে সভাপতি করে এ কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন, মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোঃ ওমর ফারুক ও প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোহাম্মদ শাহ আলম।

তদন্ত কমিটির সভাপতি ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ মুখলিছুর রহমান জানান, পত্রিকার সংবাদে ডাক্তার আব্দুর রহমানের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ গুলোর সত্যতা যাচাই করা হবে। তদন্তে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। এদিকে, দৈনিক আমার হবিগঞ্জের অনুসন্ধানে ডাক্তার আব্দুর রহমানের ব্যবহৃত কয়েকটি ডিগ্রি ভূয়া এবং এবং মিথ্যা বলে প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হলে এ নিয়ে সরেজমিনে ঘুরে ধারাবাহিক সংবাদ প্রকাশ করে দৈনিক আমার হবিগঞ্জ।

জানা যায়, নুন্যতম এমবিবিএস অথবা বিডিএস ডিগ্রিধারী ব্যতীত অন্য কেউ তাদের নামের পূর্বে ডাক্তার পদবী লিখতে পারবেন না। তাও আবার তাকে বিএমডিসি’র রেজিস্ট্রেশনভুক্ত হতে হবে। এর ব্যত্যয় ঘটানো শাস্তি যোগ্য অপরাধ। উল্লেখ্য, এমবিবিএস বা বিডিএস ডিগ্রিধারী না থাকা সত্তে¡ও হবিগঞ্জ শহরের রাজনগর এলাকায় অবস্থিত মুক্তিযোদ্ধা হায়দার আলী জেনারেল হাসপাতালে দীর্ঘ দিন ধরে ডাক্তার পদবী ও বিভিন্ন দেশের ভূয়া ডিগ্রি ব্যবহার করে সাধারণ মানুষের সাথে প্রতারণা করে আসছিলেন আব্দুর রহমান নামে এক ব্যক্তি।

ভারত, ইন্দোনেশিয়া, নরওয়েসহ কয়েকটি দেশের ভূয়া ডিগ্রি ব্যবহার করে সাধারণ মানুষদের আকৃষ্ট করতেন তিনি। শুধু ভূয়া ডাক্তারই নয়, কর্তৃপক্ষের দাবী মতে হায়দার আলী জেনারেল হাসপাতালে রোগী ধারণ ক্ষমতা ২০ শয্যা থাকলেও নিয়ম অনুযায়ী সেখানে নেই ১২ জন প্রশিক্ষিত নার্স ও উচ্চতর এমবিবিএস ডিগ্রিধারী কোন ডিউটি ডাক্তার। তা-ছাড়া যাবতীয় চিকিৎসা কাজে ব্যবহার করা হয়ে থাকে অপ্রাপ্ত বয়সী তরুণীদের।

Developed By The IT-Zone