ঢাকাThursday , 28 December 2023
আজকের সর্বশেষ সবখবর

হবিগঞ্জে জাতীয় পার্টির প্রার্থীদের হলফনামায় ভুয়া তথ্য : তিন প্রার্থীর নেই প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা

Link Copied!

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হলফনামায় প্রার্থীর শিক্ষাগত যোগ্যতা ও ব্যক্তিগত তথ্য বাধ্যতামূলকভাবে উল্লেখ করতে নির্দেশনা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। তবে ইসির নির্দেশনা অমান্য করে হবিগঞ্জের জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থীদের অনেকেই তথ্য গোপন করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

প্রচারপত্র, লিফলেট পোস্টারে নামের আগে প্রকৌশলীসহ নানা পদবী ব্যবহার করলেও বাস্তবে দাখিল করতে পারেননি শিক্ষাগত যোগ্যতার কোন প্রমাণপত্র।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হবিগঞ্জে দাখিলকৃত হলফনামার তথ্যমতে, হবিগঞ্জের ৪টি আসনেই রয়েছেন প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী। তবে এদের ৩জনেরই নেই কোন প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা। একই দলের আরেক প্রার্থী উচ্চ মাধ্যমিক উত্তির্ণ।

দাখিলকৃত হলফনামায় নিজেদের শিক্ষাগত যোগ্যতার জায়গায় উল্লেখ করেছেন স্বশিক্ষিত। হবিগঞ্জ-১ আসনে জোটের শরিক প্রার্থী সাবেক এমপি মুনিম চৌধুরী বাবু তার দাখিলকৃত হলফনামায় নিজের সর্বশেষ শিক্ষাগত যোগ্যতা উল্লেখ করেছেন এইচএসসি।

হবিগঞ্জ-২ আসনে জাতীয় পাটির আরেক প্রার্থী শংকর পাল তার তার শিক্ষাগত যোগ্যতা উল্লেখ করেছেন স্বশিক্ষিত। হবিগঞ্জ-৩ আসনে জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী আব্দুল মুমিন চৌধুরী তার দাখিলকৃত হলফনামায় নিজেকে স্বশিক্ষিত বলে উল্লেখ করেছেন।

তবে এই লোক বিভিন্ন প্রচারপত্র ও ব্যানার ফেস্টুনে নিজেকে প্রকৌশলী পরিচয় দিয়ে বেড়ান বলে জানান তৃণমূল পর্যায়ের ভোটাররা।

হবিগঞ্জ-৪ আসনের আরেক প্রার্থী আহাদ উদ্দিন চৌধুরী তার হলফনামায় শিক্ষাগত যোগ্যতা উল্লেখ করেছেন স্বশিক্ষিত। হলফনামায় ভুয়া তথ্য প্রদান করেছেন হবিগঞ্জ-৩ আসনে জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী আব্দুল মুমিন চৌধুরী ও হবিগঞ্জ-৪ আসনের আহাদ উদ্দিন চৌধুরী। এমনটাই জানিয়েছে বিশ্বস্ত একটি সংশ্লিষ্ট সুত্র।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে হবিগঞ্জ-২ আসনের জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী শংকর পালের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি দৈনিক আমার হবিগঞ্জ’কে জানান, যা সত্য তাই দিয়েছি। আমি কোন কিছু গোপন করিনি।

পরে বিস্তারিত জানতে হবিগঞ্জ-৩ আসনের জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী আব্দুল মুমিন চৌধুরী ও হবিগঞ্জ-৪ আসনের প্রার্থী আহাদ উদ্দিন চৌধুরীর ব্যবহৃত মোবাইল নাম্বারে বার বার কল দিলেও তারা কল রিসিভ করেননি। এদিকে, নির্বাচনী হলফনামায় তথ্য গোপন করা একটি শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলে জানিয়েছে ইসির একটি সুত্র।