ঢাকাMonday , 23 October 2023
আজকের সর্বশেষ সবখবর

হবিগঞ্জে কিডনি চুরির অভিযোগে ডাঃ এস কে ঘোষসহ ৪জনের বিরুদ্ধে মামলার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত

এম এ রাজা
October 23, 2023 10:27 pm
Link Copied!

দি জাপান বাংলাদেশ হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিরুদ্ধে কিডনি চুরি সহ নানান অভিযোগের ভিত্তিতে গাইনি চিকিৎসক এস কে ঘোষ সহ ৪ জনের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা রুজুর নির্দেশ দিয়েছেন বিজ্ঞ আদালত। মামলায় অন্য অভিযুক্তরা হলেন দি জাপন বাংলাদেশ হাসপাতাল এন্ড ডায়গনিক সেন্টারের মালিক এ কে আরিফুল ইসলাম, ওই প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজার জনি আহমেদ এবং একই প্রতিষ্ঠানে কর্মরত সাবেক মেম্বার কাঞ্চন মিয়ার ছেলে হাবির হোসাইন।

সোমবার (২৩ অক্টেবর) দুপুরে আমলি আদালত ১ এর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ জাকির হোসেন হবিগঞ্জ সদর থানার অফিসার্স ইনচার্জকে সিআর পিসি ১৫৪ ও ১৫৬ ধারানুসারে এফ আই আর গণ্যে আদেশ প্রাপ্তির দুই দিনের মধ্যে মামলা রুজু করার নির্দেশ প্রদান করেন।

২৩ অক্টোবর সদর উপজেলার বহুলা গ্রামের বাসিন্দা মোঃ ইউনুছ মিয়ার ছেলে রহমত আলীর দায়ের করা মামলার প্রেক্ষিতে বিজ্ঞ ম্যাজিস্ট্রেট এই আদেশ প্রদান করেন।

জানা যায়, গত ৯ সেপ্টেম্বর হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে রহিমা খাতুন (৫৫) নামের এক মহিলাকে চিকিৎসার জন্য নিয়ে গেলে দালাল তাবির হোসেন নামের এক ব্যক্তি তাদেরকে বিভিন্ন প্রলোভন দিয়ে নতুন বাস টার্মিনালের দি জাপান হসপিটালে নিয়ে যান।

সেখানে যাবার পর কর্তৃপক্ষ বলে রহিমার অবস্থা খুবই খারাপ। জরুরি ভিত্তিতে অপারেশন করতে হবে। ওইদিনই ডাক্তার এস কে ঘোষ তার অপারেশন করেন।

এরপর তার অবস্থা আরও অবনতি হয়। কয়েকদিন থাকার পর কিছুটা সুস্থ হলে গত ১৩ সেপ্টেম্বর রিলিজ দেয়া হয়। বাড়িতে নিয়ে যাবার পর তার অবস্থার আরও অবনতি হয়। অপারেশনের স্থান দিয়ে রক্তক্ষরণ হতে থাকে।

একপর্যায়ে তাকে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তার ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হয়। ধরা পড়ে জরায়ু কেটে ফেলা হয়েছে রোগিনীর।

তাছাড়া তার পেটের মধ্যে থাকা দুটি টিউমারের বদলে একটি টিউমার অপারেশন করা হয়েছে। আরেকটি রয়ে যায়। এমনকি তার একটি কিডনিও পাওয়া যায়নি। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের পর রহিমা গত ১৫ অক্টোবর বিকালের দিকে মারা যান। নিহত নারী হবিগঞ্জ সদর উপজেলার বহুলা গ্রামের বাসিন্দা মৃত নুর আলীর স্ত্রী।

এরই প্রেক্ষিতে নিহত রহিমার আপন চাচাতো ভাই রহমত আলী বিজ্ঞ আদালতে মামলা দায়ের করেন। এ বিষয়ে রহমত আলী বলেন, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের চাহিদা মত টাকা পয়সা দেওয়ার পরেও চিকিৎসার জায়গায় অপচিকিৎসা হয়েছে এমনকি আমার বোনের কিডনিও চুরি করে নিয়েছে তারা।

আমি বিজ্ঞ আদালতের কাছে অপরাধীদের সঠিক বিচার চাই। আমার বোনের পরিণতি আর যেন কোন চিকিৎসা গ্রহীতার না হয়।