ঢাকাবুধবার , ২১ এপ্রিল ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

শায়েস্তাগঞ্জে সুতাং নদীতে ব্রীজ পুনঃনির্মাণ : ভিটে হারানোর শঙ্কায় পরিবার

দৈনিক আমার হবিগঞ্জ
এপ্রিল ২১, ২০২১ ১১:১৩ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

মুহিন শিপনঃ  শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার সুতাং ব্রীজ এলাকায় প্রায় দেড়শ বছর ধরে বসবাস করে আসছেন রবিদাস পরিবারের সদস্যরা। জুতা সেলাই করে জীবিকা নির্বাহ করা এই পরিবার গুলো এখনো ধরে রেখেছেন পূর্বপুরুষদের পেশা। স্বল্প আয়ের এই পেশায় মাতবেতর জীবন যাপনের মাঝে কাল হয়ে দাড়িয়েছে সুতাং নদীর উপর ব্রীজ পুনঃনির্মাণ প্রকল্প।
জানা যায়, সুতাং নদীর উপরের ব্রীজটি দীর্ঘদিন ঝুঁকিপূর্ণ থাকার পরে গত অর্থ বছরে পৌনে ৫ কোটি টাকা ব্যয়ে পুনঃনির্মাণের প্রকল্প হাতে নেয় এলজিইডি। এরই ধারাবাহিকতায় ব্রীজ নির্মানের কাজ পায় গোলাম ফারুকের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এম নিয়াজ এন্ড জি ফারুক জে বি। এরইমধ্যে  ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্রীজ নির্মান কাজের অজুহাতে অপরিকল্পিত ভাবে রবি দাস পরিবারের বসত ভিটা খননের অভিযোগ উঠেছে।

ছবি : সুতাংয়ে ব্রিজ পুন:নির্মানের ফলে ভিটে হারানোর শঙ্কায় রয়েছেন রবিদাস পরিবার

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সুতাং নদীর উপরে ব্রীজ নির্মান কাজের পাইলিংয়ের কাজ চলছে। কাজের সুবিধার জন্য এক্সাভেটর মেশিন দিয়ে চলছে খনন কাজ। অপরিকল্পিতভাবে পার্শ্ববর্তী রবিদাস পরিবারের বাড়ির আঙিনা, রান্না ঘর এমন কি বাথরুম পর্যন্ত খনন করে ফেলেছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। ফলে দুর্বিষহ জীবন যাপনের পাশাপাশি বসত ঘর ধ্বসে পড়ার শঙ্কা নিয়েই বসবাস করছেন পরিবারের ৭ জন সদস্য।
এবিষয়ে সুমা রবিদাস জানান, অপরিকল্পিতভাবে মাটি কেটে আমাদের লেট্রিন ও রান্না করার স্থান বিলীন করে দেওয়া হয়েছে। বসতঘরটিও ভেঙ্গে যাওয়ার উপক্রম। আমাদের যাওয়ার জায়গা নাই তাই বাধ্য হয়ে ঝুঁকি নিয়ে বসবাস করছি।
নূরপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মুখলিছ মিয়া বলেন, ব্রিজের পাশে শত বছরের বসবাস দুইটি রবিদাস পরিবারের। অপরিকল্পিতভাবে মাটি কাটায় ব্রিজের পশ্চিম দিকের রবিদাস পরিবারটি জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বসবাস করছে। এ তথ্য জানার পর আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। আমার কাছে মনে হয়েছে এই পরিবারকে উচ্ছেদ করার জন্য ষড়যন্ত্র মুলক ভাবে এই দিকে মাটি কাটা হয়েছে। আমি এর তীব্র নিন্দা জানাই। তিনি আরও  বলেন, ব্রীজ নির্মাণ হোক আমরা সবাই চাই। তবে পরিকল্পনা মাফিক কাজ করলে এ অবস্থা সৃষ্টি হওয়ার কথা নয়।
অভিযোগের বিষয়ে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এম নিয়াজ এন্ড জি ফারুক জেবি’র সত্ত্বাধিকারী গোলাম ফারুক বলেন, ব্রিজের নির্মাণ কাজের জন্য নিয়ম মেনে মাটি কাটা হচ্ছে। এখানে কোন প্রকারের অনিয়ম করা হয়নি। আমি কারো ক্ষতি করতে চাই না।
এ বিষয়ে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মিনহাজুল ইসলাম জানান, বিষয়টি আমি অবগত আছি।  সরেজমিনে পরিদর্শন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবো

Developed By The IT-Zone