ঢাকাThursday , 19 May 2022

লাখাইয়ে মামলার কাগজপত্রের কপি না দেয়ায় এক ব্যক্তির কান দ্বিখন্ডিত

Link Copied!

লাখাই উপজেলার গুনিপুর গ্রামে একটি মামলার কাগজপত্রের কপি চাওয়াকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে এক ব্যক্তির কান কর্তন করে ফেলেছে প্রতিপক্ষ। এ সময় ফিকলের আঘাতে তার পেটে মারাত্মক ছিদ্রযুক্ত জখম হয়।

আহত শাহনুর মিয়াকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে । মঙ্গলবার(১৭মে) সন্ধা ৬ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। শাহানুর মিয়া গুনিপুর গ্রামের নুরুল হকের পুত্র।

জানা যায়, প্রতিবেশী শাহনূর ও ছোট্টু মিয়া একই মামলার আসামি। ইদানিং শাহানুর মিয়া ওই মামলায় জামিনে মুক্তি লাভ করেন। মামলার পলাতক আসামী ছোট্টু মিয়া ঘটনার সময় মামলার কাগজ পত্রের কপি চান শাহনুরের নিকট। শাহানুর মিয়া কাগজ পত্রের কপি আনার খরচ এর অংশ চান তার কাছে।

এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে ছোট্টু মিয়া তার আত্মীয় আছকির মিয়া, আমিজ আলী, জুনায়েদ সহ আরো কয়েকজনকে নিয়ে শাহনুরকে বেধড়ক মারপিট করে। এক পর্যায়ে তারা শাহনূরের কান ধারালো অস্ত্রের আঘাতে কেটে নেয়ার চেষ্টা করে। এতে শাহনূরের অর্ধেক কান দ্বিখণ্ডিত হয়ে পড়ে।

এসময় শাহনূরের পেট সহ শরীরের একাধিক জায়গায় ফিকলের আঘাতে ছিদ্রযুক্ত যখম করে তারা। এক পর্যায়ে শাহনূরের আর্তচিৎকারে অন্যরা এগিয়ে এসে তাকে প্রাণে রক্ষা করেন। পরবর্তীতে তাকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য প্রেরণ করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে লাখাই থানার অফিসার ইনচার্জ সায়েদুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ঘটনা সম্পর্কে থানা পুলিশ অবগত রয়েছে তবে এখনো মামলা নেয়া হয়নি।