ঢাকারবিবার , ১৫ জানুয়ারি ২০২৩
আজকের সর্বশেষ সবখবর

রিচিতে বৈষ্ণবের আখড়া-মন্দির-শ্মশান ও পুকুর আবু জাহির এমপির চাচাতো ভাই নূর মোহাম্মদের দখলের অভিযোগ প্রমাণিত

স্টাফ রিপোর্টার
জানুয়ারি ১৫, ২০২৩ ৯:০৮ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

হবিগঞ্জ সদর উপজেলার রিচি গ্রামের ঐতিহ্যবাহী বৈষ্ণবের আখড়া,মন্দির, শ্মশান ও পুকুর দীর্ঘ ৩৫ বছর ধরে জবরদখল করে রেখেছেন হবিগঞ্জ লাখাই শায়েস্তাগঞ্জ-৩ আসনের প্রভাবশালী এমপি আবু জাহিরের চাচাতো ভাই নুর মোহাম্মদ খান।

এই সংবাদ গত বছরের ২২ সেপ্টেম্বর দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। এরই প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসকের নির্দেশে লুকড়া ইউনিয়ন ভূমি উপসহকারী কর্মকর্তা বনানী রানী দাশ সরেজমিনে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে তদন্ত প্রতিবেদনটি গত ১১ জানুয়ারি দাখিল করেছেন।

তদন্ত প্রতিবেদন সূত্রে জানা যায়, রিচি শশ্মানের বৈষ্ণবের আখড়া,মন্দির, শ্মশান ও পুকুর সরকারী খতিয়ান দাগ সমূহ S.A. দাগ নং ২৬২। এগুলি বিগত S.A. রেকর্ডে ১৩ নং জে.এল. স্থিত রিচি মৌজার ১ নং সরকারী খাস খতিয়ানে ২৬২ নং দাগে শশ্মান শ্রেণি রকম ষোল আনা অংশে ০.৭০ একর ভূমি এবং ২৬৬নং দাগে মন্দির শ্রেণি রকম ০.৩৪ একর ভূমি পূর্ব পাকিস্তান প্রদেশ এর নামে রেকর্ড আছে।

পরবর্তীতে R.S রেকর্ডে S.A. দাগ নং ২৬২ নির্দেশিত হয়ে R S ৩৮২ নং দাগে পুকুর শ্রেণি রকম ০.৭০ এবং R S রেকর্ডে S.A. দাগ নং ২৬৬ নির্দেশিত হয়ে R S 386, 387 ও ৩৮৮ নং দাগে বাড়ি, রাস্তা ও ভিটা শ্রেণি রকম (0.08+0:00+0, 27 ) = 0.38 একর ভূমি বাংলাদেশ সরকারের নামে রেকর্ড হয়।

সরেজমিন তদন্তে ভূমি কর্মকর্তারা বিভিন্ন লোকদের জিজ্ঞসাবাদে জানতে পারেন বর্ণিত ভূমিতে বৈষ্ণবদের আখড়া ছিল এবং আখড়া, মন্দির ও শশ্মান তত্ত্বাবধানের জন্য পুকুর ব্যবহৃত হত।

সরেজমিন তদন্তে ভূমি কর্মকর্তারা দেখতে পান বর্ণিত দাগে টিনসেট আধা পাকা ঘর,দোকান এবং একটি পুকুর রয়েছে। যা রিচি আড়িয়াকোণা গ্রামের বাসিন্দা আপ্তাপ আলী ছেলে নূর মোহাম্মদ প্রায় ৩০/৩৫ বছর ধরে নিজে দখল করে বসবাস করে আসছেন। এবং বেশ কিছু জায়গায় দোকান ঘর তৈরি করে ব্যবসায়ীদের কাছে ভাড়া দিয়ে প্রতিমাসে মোটা অংকের অর্থ আদায় করছেন।

উল্লেখ্য, প্রভাবশালী এমপি আবু জাহিরের চাচাতো ভাই নুর মোহাম্মদ। নূর মোহাম্মদের পিতার নাম আফতাব আলী আর আবু জাহিরের পিতার নাম আমীর আলী। আমীর আলী ও আফতাব আলী একে অপরের আপন চাচাত ভাই।

এই আত্মীয়তার সূত্রেই মূলত এমপি আবু জাহিরের প্রভাব খাটিয়ে দীর্ঘদিন ধরে মন্দির ও শ্মশানের বিপুল সম্পত্তি জবর দখল করে রেখেছেন বলে অভিযোগ সনাতন ধর্মাবলম্বীদের।

দখলদার নূর মোহাম্মদের পুত্র মোহাম্মদ মহসিন এক সময়ে ছাত্রদলের রাজনীতি করলেও ২০০৮ এর জাতীয় নির্বাচনের পর ছাত্রলীগের রাজনীতি শুরু করেন।

জানা যায়, বৈষ্ণবের আখড়া,মন্দির, শ্মশান ও পুকুর এর জমি দখল ধরে রাখতেই নূর মোহাম্মদের পুত্র মহসিন ছাত্রলীগের রাজনীতিতে আশ্রয় নেয়। এরপর রিচি বৈষ্ণবের আখড়া,মন্দির, শ্মশান ও পুকুর এর জমি জবরদখল করে রাখে।

বৈষ্ণবের আখড়া,মন্দির, শ্মশান ও পুকুর এর জমি জবরদখল করে রাখার ঘটনাটি ওই এলাকার সব ধর্মের মানুষেরই জানা আছে। কিন্তু প্রভাবশালী এমপি আবু জাহিরের ছত্রছায়ায় ভয়ঙ্কর হয় ওঠা নূর মোহাম্মদের বিরুদ্ধে কথা বলার মত সাহস কারো নেই।

তবে গত ২০ সেপ্টেম্বর একজন সচেতন সনাতন ধর্মাবলম্বী হিসেবে সুমন নামে ব্যক্তি এক ব্যক্তি বৈষ্ণবের আখড়া,মন্দির, শ্মশান ও পুকুর এর জমি পুনরুদ্ধার এর জন্য জেলা প্রশাসক বরাবরে একটি লিখিত আবেদন করেছিলেন।

Developed By The IT-Zone