ঢাকাশুক্রবার , ২৪ ডিসেম্বর ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

স্টল বরাদ্দের নামে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন আয়োজকরা

দৈনিক আমার হবিগঞ্জ
ডিসেম্বর ২৪, ২০২১ ১০:২৫ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

তারেক হাবিব :  হবিগঞ্জ নিউফিল্ড মাঠে মাসব্যাপী ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প মেলার স্টল বরাদ্দ, অতিরিক্ত টাকা আদায়সহ নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে আয়োজক কমিটির বিরুদ্ধে। স্ট্রল মালিকদের কাছ থেকে এক রকম জোর করেই আদায় করা হচ্ছে নির্ধারিত হারের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি টাকা। ভঙ্গ করা হচ্ছে জেলা প্রশাসনের বিভিন্ন শর্ত। বৃহস্পতিবার (২৩ডিসেম্বর) সরেজমিনে মেলায় পাওয়া গেছে এমনই তথ্য।

 

তথ্য অনুসন্ধানে জানা যায়, বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশন (বিসিক) এর আয়োজনে হবিগঞ্জে গতকাল(বৃহস্পতিবার) উদ্ভোধন করা হয় মাসব্যাপী ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প মেলা। এ মেলার সার্বিক ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব রয়েছেন ‘তৃণমূল নারী উদ্যোক্তা সোসাইটি’ (গ্রাসরুটস;) নামক একটি সংস্থা। তবে স্ট্রল বরাদ্দের নামে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে কৌশলে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা।

 

 

 

 

 

 

 

ছবি : ইন্টারনেট থেকে নেয়া

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

প্রতিটি দোকান থেকেই আদায় করা হচ্ছে নির্ধারিত হারের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি টাকা। শুধু তাই নয়, লঙ্ঘন করা হচ্ছে প্রশাসনের বেধে দেয়া বিভিন্ন শর্ত। নাম প্রকাশ করতে অনিচ্ছুক একাধিক ক্ষুদ্র শিল্প উদ্যোক্তা (স্ট্রল মালিক) অভিযোগ করে জানান, কোন কোন স্ট্রল বরাদ্দ বাবদ ৯০ হাজার টাকা করে আদায় করা হচ্ছে। অথচ নিয়মানুযায়ী তা প্রকারভেদে সর্বোচ্চ ১৬ হাজার টাকার বেশি হবার কথা নয়। তারা আরও জানান, ইতিমধ্যে প্রস্তুত করা হয়েছে ২ শতাধিক স্ট্রল। যার সিংহভাগ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

 

অথচ নিয়মানুযায়ী ৫০টির বেশি স্ট্রল বরাদ্দ দেয়ার কথা নয়। এছাড়াও প্রশাসনের দেয়া বিভিন্ন শর্তও লঙ্ঘন করছেন তারা। অনুসন্ধানে জানা যায়, জেলা প্রশাসনের দেয়া অনুমতিপত্রের ১০নং শর্তে উল্লেখ আছে, ‘মেলা এবং এর আশপাশ এলাকায় জুয়ার আসর বসানো কিংবা মদপান, গাঁজাসেবন, যাত্রা গান, পালাগান, পুতুল নাচ, ভ্যারাইটি শো, অশ্লীল নৃত্য প্রদর্শনসহ কোনো অনৈতিক কর্মকান্ড করা যাবে না’।

 

কিন্তু সরেজমিনে দেখা যায়, এসব আয়োজনের সকল সরঞ্জাম ইতিমধ্যেই প্রস্তুত করা হয়েছে। এছাড়াও ১৫নং শর্তে উল্লেখ আছে, ‘এ অনুমতিপত্রের বৈধতা শুধুমাত্র ১৪ ডিসেম্বর ২০২১ হতে ১২ জানুয়ারী ২০২২ পর্যন্ত বলবৎ থাকবে এবং কোনক্রমেই সময় বর্ধিত করা হবে না’। সে অনুযায়ী আয়োজকদের প্রচার লিফলেটেও উদ্বোধনের তারিখ উল্লেখ করা হয়েছিল ১৫ ডিসেম্বর ২০২১ইং। অথচ ১৫ ডিসেম্বর পেরিয়ে গেলেও কৌশলে আনুষ্ঠানিকতা পিছিয়ে দিয়েছেন আয়োজকরা।

 

তারা এখন বলে বেড়াচ্ছেন ২৩ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন হবে এবং চলবে পরবর্তী ৩০ দিন। এ বিষয়ে জানতে চাইলে হবিগঞ্জ বিসিক এর এজিএম নাজমুল হোসেন বলেন, ‘কোন অনিয়ম হওয়ার কথা না, অনিয়ম হলে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

 

তৃণমূল নারী উদ্যোক্তা সোসাইটি’ (গ্রাসরুটস) এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হেমাংসু মিত্র জানান, করোনাসহ নানা জটিলতার কারনে মেলা কিছুটা দেরিতেই শুরু করতে হয়েছে। কোন ধরনের অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Developed By The IT-Zone