ঢাকাSaturday , 13 January 2024
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মাধবপুরে বন অধিদপ্তর ও পাখি প্রেমিক সোসাইটির যৌথ অভিযানে ১২ বন্যপাখি জব্দ

Link Copied!

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলায় বন্যপাখি উদ্ধার অভিযান সম্পন্ন হয়েছে। শনিবার (১৩ জানুয়ারি) বন্যপ্রাণী ব্যবস্হাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগ শ্রীমঙ্গল,তেলমাছড়া বিট কার্যালয়,সাতছড়ির রেঞ্জ কার্যালয়, মনতলা পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের অংশগ্রহণে ও পাখী প্রেমিক সোসাইটির তথ্য ও সহযোগিতায় বন্যপাখি উদ্ধার অভিযান সম্পন্ন হয়।

সুত্র জানায়,মাধবপুর উপজেলার পৌর এলাকা,আদাঊর ইউপির মিরাশানি,সোনাই ইটভাটা এলাকায় যৌথ অভিযানে বিভিন্ন প্রকার পাখি, শিকারের ফাঁদ ও খাঁচা জব্দ হয়। এসময় ২ টি তিলা ঘুঘু, ৪ টি শালিক, ৩টি দেশী টিয়া,১টি চন্দনা টিয়া,১ টি ডাহুক,১টি দেশী ময়নাসহ এবং পাখি শিকারের অসংখ্য ফাঁদ ও খাঁচা জব্দ করা হয়।স্থানীয় মনতলা বাজারের বন্যপ্রাণী বন্যপাখি ব্যবসায়ী মালু(৫০) মিয়ার বিরুদ্ধে বন বিভাগের মামলা দায়ের প্রক্রিয়াও হচ্ছে বলে জানা যায়।

ওই অভিযানে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজাশ্রীমঙ্গলের বন্যপ্রাণী ব্যবস্হাপনা প্রকৃতি ও সংরক্ষণ বিভাগের সহকারি বন সংরক্ষক জামিল মোহাম্মদ খান,সাতছড়ি রেঞ্জ কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল্লাহ আল-আমিন,তেলমাছড়ার বিট কর্মকর্তা হাবিবুল্লাহ,ই-প্রেস নিউজের নির্বাহী সম্পাদক মাসুদ লস্কর,পাখি প্রেমিক সোসাইটির আহবায়ক মুজাহিদ মসি, যুগ্ম আহবায়ক বিশ্বজিৎ পাল,মাধবপুর ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক শেখ মো. শাহিনুদ্দিন,সাতছড়ির বিট কর্মকর্তা মামুনুর রশিদ,জুনিয়র ওয়াইল্ড লাইফ স্কাউট তাজুল ইসলাম ও বন বিভাগের সদস্য মোঃ ইব্রাহিম ও মোমেন মিয়া প্রমুখ।

এ ব্যাপারে সহকারি বন সংরক্ষক জামিল মোহাম্মদ খান জানান, আমরা মাধবপুর এলাকায় বেশ কয়েকজন পাখি শিকারির সন্ধান পেয়েছি যারা পাখি শিকার ও বন্যপাখির অবৈধ বাণিজ্য করছে।ডিএফও মহোদয়ের নির্দেশনায় পরিচালিত অভিযানের দোষীদের বিরুদ্ধে বন্যপ্রাণি আইনে খুব দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।