ঢাকাMonday , 26 September 2022
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বিশ্ব নদী দিবসে নৌযাত্রা ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত

Link Copied!

‘বিশ্ব নদী দিবস’’ উপলক্ষে একটি নৌযাত্রা ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুড়িগঙ্গা রিভারকিপার, ক্লিন রিভার বাংলাদেশ, শিশুদের মুক্ত বায়ু সেবন সংস্থা এবং নগরবাসী পরিবেশ আন্দোলনের যৌথ আয়োজনে এই নৌযাত্রা ও মানববন্ধনটি রবিবার (২৫সেপ্টেম্বর) বাবুবাজার থেকে সকাল ১০: ৩০ শুরু হয় এবং কামরাঙ্গীরচর হয়ে বসিলা পুরাতন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এসে দুপুর ২. ০০ টায় শেষ হয়।

সমন্বয়ক, ওয়াটারকিপার্স বাংলাদেশ ও বুড়িগঙ্গা রিভারকিপার শরিফ জামিল বলেন, “আমাদের গনমানুষের নৌপথ” এই শ্লোগাণে আজকের বিশ্ব নদী উৎসব উদযাপন হচ্ছে। নৌপথ আগেও ছিল এখনও আছে, এখন ড্রেজিং করে নৌপথগুলো চলার উপযোগী করা হচ্ছে। এর ফলে শাখা নদী ও উপনদী ও ছোট নদী সমূহ ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে ।

আমরা যেন গণমানুষের নৌপথ অর্থাৎ শাখা নদী ও উপনদী যেন ধ্বংস না করি, দূষিত ও দখল না করি এই বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে। বাপা, বগুড়া শাখার সাধারন সম্পাদক মোঃ জিয়াউর রহমান বলেন, প্রতিটি জেলায় অন্ততঃ একটি নদী সম্পূর্নরুপে সুরক্ষা করা গেলে, দখল দূষণ থেকে মুক্ত করা গেলে গত দেড় যুগ ধরে চলা নদী রক্ষা আন্দোলনের শ্রম সার্থক হবে।

সুরমা রিভার ওয়াটারকিপার আব্দুল করিম কিম বলেন, এক সময় হাতেগোনা সংগঠন নদী দিবস পালন করতো। আশার কথা হলো আজকে নদী দিবস সরকারীভাবেও পালন করা হচ্ছে। নদী রক্ষার দায়িত্ব যাদের, তারা নদী দখল ও দূষণের বিরুদ্ধে সুস্পষ্ট অবস্থান নিলে নদী রক্ষা সহজ হবে।

খোয়াই রিভার ওয়াটারকিপার তোফাজ্জল সোহেল বলেন, ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধকালীন সময় নদীপথ ছিল আমাদের সহজ ও নিরাপদ যোগাযোগ মাধ্যম। নদী হয়ে উঠেছিল তখন মানুষের নিরাপদ ঠিকানা । কিন্তু সেই ঠিকানা আজ অস্তিত্ব হারাতে বসেছে।

আমাদের অধিকাংশ নদনদী এখন হারিয়ে যাচ্ছে, দখল, দূষণ এবং নদীর ওপর অত্যাচার-অনাচার ক্রমাগতভাবে বেড়েই চলেছে। আমাদের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার জন্য নদী রক্ষা কাজ করতে হবে।

উক্ত নৌযাত্রা ও মানববন্ধন অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন ক্লিন রিভার বাংলাদেশ এর প্রধান নির্বাহী সোহাগ মহাজন, সচেতন নাগরিক সমাজ এর নির্বাহী পরিচালক এস এম জাহাঙ্গীর আদেল, শিশুদের মুক্ত বায়ু সেবন সংস্থার মোঃ সেলিম, বসিলা কমিউনিটির নেতা মোঃ মানিক হোসেন এবং নগরবাসী পরিবেশ আন্দোলনের চেয়ারম্যান হাজী শেখ আনসার আলী প্রমূখ।

বক্তারা নদ-নদীর অপরিকল্পিত উন্নয়ন বন্ধ করা, দখল হয়ে যাওয়া নদ-নদী ও খাল-বিল উদ্ধার করে পানির স্বাভাবিক প্রবাহ অব্যাহত রাখা এবং বিশ^ নদী দিবসে দূষণমুক্ত ও দখলমুক্ত নদীর জন্য সকলকে সচেতন হয়ে এই দূষণের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ ও প্রতিরোধ করার আহবান জানান।