ঢাকাThursday , 28 December 2023
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বিকেলে গ্রেফতার,সন্ধ্যায় থানার ফ্যানে ঝুলছিল যুবকের মরদেহ

Link Copied!

বানিয়াচং থানার নারী ও শিশু সহায়তার (হেল্পডেস্ক) কক্ষ থেকে গোলাম রাব্বানী (২৫) নামে এক যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

গত মঙ্গলবার (২৬ ডিসেম্বর) রাত সাড়ে ৭টার দিকে হেল্পডেস্কের কক্ষের ফ্যানের সাথে পরনের বেল্ট ও গেঞ্জি গলায় বাঁধা অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করা হয় বলে জানিয়েছেন বানিয়াচং থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসাইন। নিহত যুবক বানিয়াচং ১নং উত্তর-পূর্ব ইউনিয়নের নন্দীপাড়ার নাগেরখানার মহল্লার মৃত মহির উদ্দিনের ছেলে।

বানিয়াচং থানার ওসি দেলোয়ার হোসাইন জানান, একটি চুরির মামলায় গোলাম রাব্বানীকে বানিয়াচং বড়বাজারের স্মৃতিসৌধের কাছ থেকে আটক করে এসআই মনিরের নেতৃত্বে একদল পুলিশ। আটক রাব্বানীকে হাজতের পাশে হেল্পডেস্কের কক্ষে রাখা হয়।

বিকেলে গ্রেফতার করা হলে রাত সাড়ে ৭টার দিকে রাব্বানীকে কক্ষের ফ্যানের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায় পুলিশ। পরে লাশ নামিয়ে বানিয়াচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে দায়িত্বরত চিকিৎসক ডা: মো: নাছরুল্লাহ রাব্বানীকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। ওসি দেলোয়ার হোসাইন জানান,তার বিরুদ্ধে বানিয়াচং থানায় চুরি-ডাকাতিসহ মোট ৭টি মামলা রয়েছে। সে এলাকার চোর হিসেবেই পরিচিত। কিছু দিন পূর্বে সে টমটম চুরির মামলায় প্রায় ৩ মাস জেল খেটে বের হয়।

এই বিষয়ে বানিয়াচং স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বরত চিকিৎসক ডা: মো: নাছরুল্লাহ জানান, মৃত রাব্বানীর গলায় চন্দ্র আকৃতির একটি কালো দাগ রয়েছে। জরুরী বিভাগে আসার পর মৃত অবস্থায় থাকায় রাব্বানীকে ময়না তদন্তের জন্য হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে পাঠানো হয়।

তিনি আরো জানান, রাব্বানী কিভাবে মারা গেছে সেটা এখন বলা যাচ্ছে না। ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে না আাসার আগ পর্যন্ত কোন কিছু বলা যাবে না। এর পূর্বে লাশের সুরতহাল রিপোর্ট করেন বানিয়াচং উপজেলার সহকারি কমিশানার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুল ইসলাম।

এই বিষয়ে নিহত রাব্বানীর মা ফজরচান বিবি জানান,আমার ছেলে প্রথম দিকে ভালোই ছিল। পরবর্তীতে কিছু বখাটে ছেলেদের সাথে মিশে চুরি-ডাকাতির সাথে জড়িয়ে পড়ে। তিনি আরো জানান,পুলিশ আমার ছেলেকে ধরে নিয়ে থানার মধ্যে পিটিয়ে মেরে ফেলেছে তারা।

তবে এলাকাবাসী জানিয়েছেন,নিহত রাব্বানী ছিচকে চোরদের সাথে মিশে বিভিন্ন এলাকা থেকে টমটম চুরি করতো। সে এক সময় নিজেও টমটম চালাতো। পরে খারাপ ছেলেদের সাথে মিশে এসব চুরি-ডাকাতির সাথে জড়িয়ে পড়ে গোলাম রাব্বানী।