ঢাকাসোমবার , ৯ মে ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বানিয়াচং ৪নং দক্ষিণ-পশ্চিম ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থীদের দৌড়ঝাঁপ শুরু

রায়হান উদ্দিন সুমন
মে ৯, ২০২২ ৮:৩৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

দলীয় প্রতীকে ইউপি নির্বাচন এবং তফসিল ঘোষণার পরপরই বানিয়াচং উপজেলার সদরের একমাত্র ৪নং দক্ষিণ-পশ্চিম ইউনিয়নে অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রার্থীরা তাদের প্রচার-প্রচারণা শুরু করে দিয়েছেন। প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রার্থীরা। বেড়েছে ভোটারদের কদর।

সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীরা ইউনিয়ন জুড়ে পোস্টার বিলবোর্ড টাঙ্গিয়ে ভোটারদের দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করে যাচ্ছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ ভোটারদের কাছে দোয়া চেয়ে নিজনিজ বলয়ের শুভাকাঙ্খিরা প্রার্থীদের ছবি সম্বলিত ব্যানার-পোস্টার তুলে ধরছেন।

শুধু তাই নয়, হাট বাজার ও চা-এর দোকানে আসন্ন ইউনয়ন পরিষদের নির্বাচনকে ঘিরে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। নির্বাচনকে সামনে রেখে ইউনিয়নজুড়ে ভোটারদের মধ্যে বইছে উৎসাহ উদ্দীপনাও। উপজেলার মধ্যে একমাত্র ৪নং দক্ষিণ-পশ্চিম ইউনিয়নে নির্বাচন হওয়ায় সেটা নিয়ে উপজেলা জুড়ে সাধারণ মানুষের আগ্রহটা একটু বেশি লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

এমনকি অনেক বড় বড় নেতাদের চোখ এই ইউনিয়নের নির্বাচনের দিকে। কারণ উপজেলা সদরের বাকি ৩টি ইউনিয়নের চেয়াম্যান প্রার্থীরা আওয়ামী লীগের দলীয় তথা নৌকা নিয়ে বিজয়ী হয়েছেন। বাকি রয়েছে শুধু ৪নং দক্ষিণ-পশ্চিম ইউনিয়নটা ই।

মামলা জটিলতার কারণে বিগত দিনে এই ইউনিয়নে নির্বাচন না হওয়ায় আগামী ১৫ জুন অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে সবাই চাচ্ছে যাতে এটাতেও নৌকার চেয়াম্যান নির্বাচিত হন। নির্বাচনের সম্ভাব্য সময় জানার পর বিশেষ করে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী এবং সম্ভাব্য দলীয় প্রার্থীদের মধ্যে শুরু হয়েছে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা।

তাই ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এলাকার পাড়া-মহল্লা থেকে শুরু করে হাট-বাজারগুলোতে সম্ভাব্য প্রার্থীদের নিয়ে চলছে নানা চুলচেরা বিশ্লেষন। নিজেদের যোগ্যতা জাহির করতে নড়েচড়ে বসেছেন চেয়ারম্যান পদে সম্ভাব্য প্রার্থীরা। বিশেষ করে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেতে অনেকেই আগাম প্রচার-প্রচারণা শুরু করে দিয়েছেন। বাড়ি বাড়ি গিয়ে কুশল বিনিময় করছেন। দিচ্ছেন নানা প্রতিশ্রুতি।

সমান ভাবে প্রচারণা চালাচ্ছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও। রাতের বেলায় অনেক পাড়া-মহল্লায় উঠান বৈঠক করে যাচ্ছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। দলীয় টিকেট পেতে প্রার্থীরা জেলা থেকে কেন্দ্র পর্যন্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত দলীয় নেতাদের সাথে সার্বক্ষনিক যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছেন।

তবে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের নেতারা (বিএনিপ) তাদের কেন্দ্রীয় ঘোষণা অনুযায়ী বর্তমান সরকারের সময়ে কোনো নির্বাচনে অংশ নিবে না বলে জানালে বিএনপি নেতাদের মধ্যে এই নির্বাচন নিয়ে কোনো ধরণের আগ্রহ দেয়া যাচ্ছে না। তবে কেউ কেউ হয়তো স্বতন্ত্র হিসেবে নির্বাচনে প্রার্থী হতে পারেন বলে মাঠ পর্যায়ে কানাঘুষা চলছে।

এদিকে এই মর্যাদাপুর্ণ ইউনিয়নে প্রভাবশালী দলের প্রার্থী হতে বিগত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় ৪ জন প্রার্থী তাদের প্রার্থীতা ঘোষণা করেছেন। তারা হলেন-বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রেখাছ মিয়া,উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম,উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আশরাফ আলী সোহেল ও উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ মারুফ আহমেদ।

এদের মধ্য থেকে যে কোনো একজনকে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন বোর্ড দলীয় প্রতীক নৌকা তুলে দিবেন। অন্যদিকে গতবারের প্রতিদ্বন্দ্বি (বিদ্রোহী) প্রার্থী সাবেক ছাত্র নেতা আনোয়ার হোসেন স্বতন্ত্র হিসেবে জোড়েশোরে রয়েছে মাঠে। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে এবারও মাঠ ধাপিয়ে বেড়াচ্ছেন শেখ মোয়াজ্জেম হোসেন।

বানিয়াচং উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আরমান ভূইয়া দৈনিক আমার হবিগঞ্জকে জানান,গত রবিবার থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রার্থীদের কাজে ফরম বিতরণ শুরু হয়েছে। কয়েকদিন না গেলে বলা যাবে না যে কয়টা ফরম গেছে।

প্রসঙ্গত, নির্বাচন কমিশনের ঘোষণা অনুযায়ী প্রার্থীদের মনোনয়ন পত্র দাখিলের শেষ সময় ১৭ মে। বাছাই ১৯ মে। প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ সময় ২৬ মে। এই ইউনিয়নে ভোট অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১৫ জুন। ভোট হবে ইভিএম পদ্বতিতে।

Developed By The IT-Zone