ঢাকাSunday , 14 March 2021
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বানিয়াচং নির্বাচন অফিস কর্মকর্তার বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ : সেবাগ্রহীতাদের ভোগান্তি

Link Copied!

তাপস হোম।।   বানিয়াচং উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ আরমান ভূইয়া’র বিরুদ্ধে অফিস ফাঁকি, অনিয়ম ও স্বেচ্ছাচারিতাসহ নানা অভিযোগ উঠেছে ।  ফলে ওই অফিসে আসা সেবাগ্রহীতাদের পড়তে হচ্চে চরম ভোগান্তিতে।  অন্যদিকে সময়মতো অফিস খোলার কথা থাকলেও এক থেকে দেড় ঘন্টা দেরীতে খুলেছে বানিয়াচং উপজেলা নির্বাচন অফিস ।  কোন উপায় না পেয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা দাঁড়িয়ে থেকেও তাদের কাঙ্খিত সেবা না পেয়ে ফিরে যেতে হচ্ছে সেবাগ্রহীতারা ।  সরেজমিনে রবিবার (১৪মার্চ )সকাল পৌনে এগারটায় গিয়ে দেখা যায়,অফিসের দায়িত্বপ্রাপ্তরা অফিসে আসা তো দুরের কথা অফিসের গেইট থালাবদ্ধ।  এ দিকে উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে আসা সেবাগ্রহীতারা তাদের পরিচয়পত্রের নানা সমস্যা নিয়ে উক্ত অফিসে আসলে অফিসের মাঠেই ঠায় বসে থাকতে কিংবা দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে।  পরে বেলা এগারটায়  এসে উক্ত অফিসের এক কর্মচারী গেইটের তালা খোলেন।

ছবি : তালাবদ্ধ বানিয়াচং উপজেলা নির্বাচন অফিসের কার্যালয়।  ছবিটি বেলা পৌনে এগারটার সময় উঠানো

এই বিষয়ে পাসপোর্ট  রেন্যু করতে আসা বানিয়াচং ৪নং দক্ষিণ-পশ্চিম ইউনিয়নে যাত্রাপাশা গ্রামের মোঃ ছালেক মিয়ার পুত্র মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র  সুজাত মিয়ার সাথে কথা হলে তিনি দৈনিক আমার হবিগঞ্জ’কে বলেন,আমি চীনের নিংশিয়া মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪র্থ বর্ষের ছাত্র। ।বর্তমানে আমি দেশে এসেছি আমার পাসপোর্ট রেন্যু করাতে।  আমার জাতীয় পরিচয় পত্র প্রয়োজন।  তাই আমি বিগত ১ মাস যাবৎ বানিয়াচং নির্বাচন অফিসে আসা যাওয়া করছি।  অফিসের কথামত আমি যাবতীয় কাগজপত্র জমা করেছি কিন্তু আমার কোন কাজ হচ্ছেনা। ।অফিসের লোকজন বলল নির্বাচন কর্মকর্তার স্বাক্ষরের জন্য আমার ফাইলটি আটকে আছে।  আমি প্রতিদিনই নির্বাচন অফিসে আসি কিন্তু নির্বাচন কর্মকর্তাকে পাইনি।  আমি খুব ভোগান্তিতে আছি ভাই।  যদি সময় মত পাসপোর্ট রেন্যু না করাতে পারি তাহলে আমি মহা মুশকিলে পরে যাব।
এ বিষয়ে জানতে বানিয়াচং উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ আরমান ভূইয়ার ব্যবহৃত মোবাইল নাম্বারে কল করলে তিনি দৈনিক আমার হবিগঞ্জকে জানান ,বানিয়াচং অনেক বড় উপজেলা হওয়ায় আমরা সেবা দিতে হিমশিম খাচ্ছি।  অনিয়ম দুর করতে আমি অফিসের জনৈক কর্মচারী কে একবার শোকজও করেছি।  আজ রবিবার হওয়া সত্ত্বেও নির্ধারিত অফিস সময়ের পরে সকাল ১১ ঘটিকায় অফিস খোলার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান,ভাই আমি আজকে অসুস্থ তাই অফিসে আসতে পারিনি। তবে অফিসের কর্মচারীদের বলে দিয়েছি সময়মত অফিস খোলার জন্য।
সপ্তাহে ৬ দিন অফিস করার কথা থাকলে সপ্তাহে ২/৩ দিন আপনি অফিসে আসেন,বাকি দিনগুলি অফিসে উপস্থিত থাকেন না বলে এমন অভিযোগ উঠেছে আপনার বিরুদ্ধে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ইহা সম্পুর্ন মিথ্যা কথা।।  আমি যথাসাধ্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি সেবার মান বাড়ানোর জন্য।