ঢাকাশনিবার , ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বানিয়াচংয়ের বিপ্লবী সুশীল সেনের বাড়ী দখলমুক্ত করে প্রত্নতত্ত্ব হিসেবে সংরক্ষণের দাবি

ইমদাদুল হোসেন খান
সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২২ ৭:২১ অপরাহ্ণ
Link Copied!

বানিয়াচংয়ে ব্রিটিশ বিরোধী সশস্ত্র সংগ্রামের বীরযোদ্ধা সুশীল সেনের প্রাচীন বাড়ী দখলমুক্ত করে প্রত্নতত্ত্ব হিসেবে সংরক্ষণের দাবি উঠেছে। ২নং বানিয়াচং উত্তর-পশ্চিম ইউনিয়নের রূপরাজখারপাড়া মহল্লার ঐতিহাসিক সেনবাড়ী দীর্ঘদিন ধরে ওই মহল্লার মধু মিয়ার দখলে রয়েছে।

বাড়ীটির অনেক পুরাকীর্তি মধু মিয়া ভেঙ্গে ফেলেছেন। ছবিতে যে ঘরটি দেখা যাচ্ছে এটির আকৃতিও অনেকাংশে পরিবর্তন করে ফেলা হয়েছে।

সরকারের প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর বাড়িটিকে প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন ঘোষণা করে রক্ষণাবেক্ষণের উদ্যোগ না নিলে হয়তো একসময় এই ঘরটি ভেঙ্গে আধুনিক দালান নির্মাণ করে নিজের বাড়ী হিসেবে প্রচার করতে পারেন মধু মিয়া ও তার সন্তানেরা ।

বাড়িটি অর্পিত সম্পত্তি হিসেবে সরকারি সম্পদ হলেও এখানের গাছপালা নিজের সম্পত্তি গণ্য করেই কর্তন করে থাকেন দখলদার মধু মিয়া ও তার পরিবারের লোকজন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন লেখা দেখে বাড়িটি দখলমুক্ত করে প্রত্নতত্ত্ব হিসেবে সংরক্ষণের দাবি জানিয়েছেন অনেকেই। তাদের মধ্যে রয়েছেন বানিয়াচংয়ের কৃতিসন্তান অবসরপ্রাপ্ত উপ-সচিব গবেষক ড. শেখ ফজলে এলাহী বাচ্চু, বরেণ্য কবি ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সিদ্দিক আহমেদ, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য ও চারণ সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের সভাপতি কমরেড নিখিল দাস, বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী কেন্দ্রীয় সংসদের সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য ও বিশিষ্ট সাংবাদিক কংকন নাগ, জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের সাবেক জিএস ও শায়েস্তাগঞ্জ কলেজের অধ্যক্ষ আজিজুল হাসান চৌধুরী শাহীন, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ হবিগঞ্জ জেলা শাখার সমন্বয়ক অ্যাডভোকেট জুনায়েদ আহমেদ, বানিয়াচং উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান প্রিয়তোষ রঞ্জন দেব, বানিয়াচঙ্গের কৃতিসন্তান বাংলা একাডেমির সংগ্রাহক কবি আবু সালেহ আহমদ, হবিগঞ্জের জেষ্ঠ সাংবাদিক টিপু চৌধুরী, ময়মনসিংহের বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব মৃদুল স্যান্যাল, হবিগঞ্জ জেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বানিয়াচং নন্দীপাড়া সাত মহল্লা ছান্দের সাবেক সর্দার আলী আকবর খান, বানিয়াচং উপজেলা বিআরডিবি’র সাবেক চেয়ারম্যান সাংবাদিক শফিকুল আলম চৌধুরী, বানিয়াচং উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ও ঢাকার সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শফিকুন্নেছা হেলেন, হবিগঞ্জ জেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শফিউল আলম খান মুছা, দৈনিক আমার হবিগঞ্জের উপ-সম্পাদক ও দৈনিক সমকালের বানিয়াচং উপজেলা প্রতিনিধি রায়হান উদ্দিন সুমন, বানিয়াচং উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নকিব ফজলে রকিব মাখন, মাধবপুর মৌলানা আছাদ আলী কলেজের প্রভাষক সাংবাদিক লিলু আহমেদ, বানিয়াচং প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মখলিছ মিয়া, উদীচী বানিয়াচং উপজেলা শাখার সভাপতি রিপন চন্দ্র দাশ, বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন বানিয়াচং উপজেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম অপু, কণ্ঠশিল্পী কলি দাশ সোমা, বানিয়াচং আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক দিপক কুমার ঘোষ, বড়ইউড়ি-গুনই-মদনমুরত (বিজিএম) উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক মাহমুদুর রহমান, বানিয়াচং আদর্শবাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ডা. শফিকুর রহমান ঠাকুর, প্রাইমারি শিক্ষক নুপুর কুমার দেব, প্রাইমারি শিক্ষক দিপু চন্দ্র গোপ, বাহুবল প্রেসক্লাবের দপ্তর সম্পাদক টিপু সুলতান জাহাঙ্গীর, কবি এমআর ঠাকুর, ব্যবসায়ী আনছারুল হক বেলালসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার দেড় শতাধিক লোক।

উল্লেখ্য, সুশীল সেন এমন এক সংগ্রামী, যাঁর অবদান দেখে ক্ষুদিরাম অপরিণত বয়সেই ব্রিটিশ বিরোধী সশস্ত্র সংগ্রামে অংশগ্রহণে উদ্বুদ্ধ হয়েছিলেন; ফাঁসির মঞ্চে গিয়েও কান্নাকাটি না করে উচ্চকণ্ঠে বন্দেমাতরম স্লোগান দিয়েছেন।

শুধু সুশীল সেন-ই নন, তাঁর পুরো পরিবারই ছিলো সংগ্রামী। তাঁর ভাই হেমসেন, বোন আশালতা সেন ব্রিটিশ বিরোধী সশস্ত্র সংগ্রামে যে অবদান রেখেছেন তা ইতিহাস স্বীকৃত।

সুশীল সেনকে ব্রিটিশ পুলিশ যখন গুলি করে আহত করলো, তখন তাঁর সহযোদ্ধাদেরকে নদী সাঁতরিয়ে পাড় হয়ে চলে যেতে বললেন এবং নিজের মুন্ডুটা কেটে নিয়ে যেতে বললেন। যাতে দেহ দেখে কার দেহ এটি পুলিশ চিনতে না পারে।

এমন একজন বিপ্লবীর প্রাচীন বাড়ী দখলমুক্ত করে প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন হিসেবে সংরক্ষণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বানিয়াচং উপজেলা প্রশাসন, হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসন, প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর, হবিগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ, স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ। সামাজিক নেতৃবৃন্দসহ গণমাধ্যমকর্মীদের যথাযথ ভূমিকা কামনা করছেন দেশের বিভিন্ন জেলার বিশিষ্টজনেরা।

Developed By The IT-Zone