ঢাকাSunday , 28 January 2024
আজকের সর্বশেষ সবখবর

প্রয়োজনীয়তা কি তা বুঝে কাজ করুন : এনজিও সমন্বয় সভায় জেলা প্রশাসক জিলুফা সুলতানা

Link Copied!

হবিগঞ্জে মাসিক এনজিও সমন্বয় সভায় জেলা প্রশাসক জিলুফা সুলতানা এনজিও প্রতিনিধিদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, গতানুগতিক কাজ তো করবেনই; কিন্তু এখানকার (হবিগঞ্জ জেলার) নিড (প্রয়োজনীয়তা/চাহিদা) কি তা বুঝে কাজ করুন। তিনি বলেন, ইমাম বাওয়ানী চা বাগানের শ্রমিকদের কাজ বন্ধ, তাদের আয়-রোজগার নেই, তাদের ঘরে খাবার নেই! আপনারা এসব জানেন কী? তাদের জন্য আপনাদের কোনো কার্যক্রম আছে কী? জেলা প্রশাসকের এমন প্রশ্নের উত্তরে কোনো এনজিও প্রতিনিধি সদুত্তর দিতে পারেননি।

তবে ওয়েভ ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে সভায় জানানো হয় জেলার নয়টি উপজেলায় স্থানীয় সুশীল সমাজের ব্যক্তিবর্গকে নিয়ে তাদের এডভোকেসি নেটওয়ার্ক কমিটি রয়েছে। এসব কমিটিতে চা শ্রমিকসহ পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর প্রতিনিধি রয়েছেন। এডভোকেসি নেটওয়ার্ক কমিটি সমূহ নিজ উদ্যোগে চা বাগানসহ যেকোনো স্থানে পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর কারও মানবিক সাহায্যের প্রয়োজন হলে পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে থাকে।

রবিবার (২৮ জানুয়ারী) জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সভাকক্ষে জেলা প্রশাসক জিলুফা সুলতানার সভাপতিত্বে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ব্যুরো বাংলাদেশ-এর পক্ষ থেকে বলা হয় হবিগঞ্জ জেলার মধ্যে বানিয়াচং উপজেলায় স্যানিটেশনের অবস্থা খুব খারাপ। বর্ষাকালে এখানকার মানুষ স্যানিটারী লেট্রিনের পাকা ট্যাংকি ভেঙে বর্জ ভাসমান পানিতে ছেড়ে দেন। এবিষয়ে তারা সচেতনতামূলক কাজ করছেন।

এসেড’র পক্ষ থেকে সভায় বলা হয়। বানিয়াচং, আজমিরীগঞ্জসহ জেলার হাওরাঞ্চলে আগাম বন্যার হাত থেকে ফসল রক্ষায় কৃষকদের মধ্যে স্বল্পমূল্যে হাইব্রিড বিজ বিতরণ করে আসছেন। জেলা প্রশাসক প্রশ্ন করেন এই বিজ দ্বারা উৎপাদিত ফসল থেকে কৃষকরা নিজ উদ্যোগে বিজ সংরক্ষণ করতে পারেন কিনা? জবাবে এসেড প্রতিনিধি বলেন, না। পরে জেলা প্রশাসক কৃষকরা যাতে নিজ উদ্যোগে বিজ সংরক্ষণ করতে পারেন এনিয়ে কাজ করতে এনজিও প্রতিনিধিদের প্রতি আহবান জানান।

সভায় জেলা প্রশাসক বলেন, আপনারা তো গতানুগতিক কাজ করবেনই। এর পাশাপাশি এখানকার নিড (প্রয়োজনীয়তা) কি তা বুঝে কাজ করবেন। নিজে যে কাজ করছেন তা নিয়ে নিজের মনে সেটিসফাই (সন্তুষ্টি) আছে কি-না একটু ভেবে দেখবেন। ঋন কার্যক্রম সম্পর্কে জেলা প্রশাসক বলেন, আপনারা যাদেরকে ঋন দেন; দেয়ার আগে কিভাবে ঋনের টাকা কাজে লাগালে উপকৃত হবে সে বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেবেন।

জেলা প্রশাসক বলেন, হবিগঞ্জ জেলায় পরিবেশসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে অনেক ভালো কাজ করার সুযোগ এনজিও গুলোর রয়েছে। এসব নিয়ে কাজ করতে এনজিও গুলোর প্রতি তিনি আহবান জানান। তিনি রংপুরে ডিডিএলজি’র দায়িত্ব পালনকলে এনজিও গুলোকে নিয়ে কাজ করার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করে জেলা প্রশাসক বলেন, ওইসময় সেখানকার স্থানীয় জনসাধারণকে কিভাবে কমিউনিটি ক্লিনিকমূখী করা যায় সে ব্যাপারে এনজিও গুলোকে নিয়ে পরামর্শ করি।

একটু সমন্বয় সাধন করে কাজ করায় এখন রংপুরের সকল কমিউনিটি ক্লিনিকে প্রতিদিন নরমাল ডেলিভারি হচ্ছে। প্রতিদিন সেসব কমিউনিটি ক্লিনিকে সুস্থ শিশু ভূমিষ্ট হচ্ছে। প্রতিদিন মা ও শিশুর হাসিতে মুখরিত হচ্ছে রংপুরের কমিউনিটি ক্লিনিকগুলো। সভায় জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।