ঢাকাশনিবার , ৪ ডিসেম্বর ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক গোলাম কিবরিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করলেন এড. শিখা

তারেক হাবিব
ডিসেম্বর ৪, ২০২১ ২:০২ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

বিদ্রোহী প্রার্থীর কাছ থেকে আর্থিক সুবিধা নিয়ে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থীকে পরাজিত করতে ভোটারদের ভয়ভীতি ও মারপিটের অভিযোগ উঠেছে আজমিরীগঞ্জ উপজেলার শিবপাশা পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক গোলাম কিবরিয়া ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী এড. রোকসানা আক্তার শিখা বাদী হয়ে গত ২ ডিসেম্বর হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এবং আজমিরীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, দ্বিতীয় ধাপে ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ভোট গ্রহণ শেষে গণনার সময় ২ নম্বর জলসুখা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সময় দুর্বৃত্তরা ভোট কেন্দ্রে প্রবেশ করে ব্যালট ছিনতাই করে আগুনে পুড়িয়ে ফেলে। ফলে ওই কেন্দ্রে ভোট স্থগিত করা হয়। পরে নির্বাচন কমিশন ৩০ নভেম্বর এই কেন্দ্রে ভোট গ্রহণের দিন ধার্য করেন। ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত ভোটে ওই কেন্দ্র ছাড়া চেয়ারম্যান পদে ৪ হাজার ১৩৯ ভোট পেয়ে ১৫ ভোটে এগিয়ে ছিলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী রোকসানা আক্তার শিখা। সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে গত ৩০ নভেম্বর এই কেন্দ্রে ভোট গ্রহণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন নির্বাচন কমিশন। ৩০ নভেম্বর সকাল ৮টায় ওই কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ শুরু হলে হঠাৎ করে কেন্দ্রে প্রবেশ করেন স্থানীয় শিবপাশা পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক গোলাম কিবরিয়া।

এ সময় আইন শৃঙ্খলা রক্ষার অজুহাতে তিনি একতরফাভাবে নৌকা মার্কার সমর্থক এবং ভোটারদের চিহ্নিত করে মারপিট করে ভয়ভীতি দেখাতে শুরু করেন। কেন্দ্রে সংযত হয়ে সুষ্ঠু ভোট গ্রহণের সহযোগিতা করার অনুরোধ করলেও তিনি তাতে কর্ণপাত না করে নিয়ম বহির্ভূতভাবে ফয়েজ আহমেদ খেলুকে বিজয়ী করতে কাজ করে যান। শুধু তাই নয়, কৌশলে ভোট গণনার সময় কেন্দ্রে ৭/৮ মিনিট বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন করা হয়।

এ ব্যাপারে এড. রোকসানা আক্তার শিখা দৈনিক আমার হবিগঞ্জ’কে বলেন, নৌকার সুনিশ্চিত বিজয় কেড়ে নেয়ার জন্য শিবপাশা পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক গোলাম কিবরিয়াকে ব্যবহার করেছেন বিদ্রোহী প্রার্থী। গোলাম কিবরিয়া পূর্বপরিকল্পিতভাবে ভোট কেন্দ্রে প্রবেশ করে নৌকার সমর্থকদের মারপিট করেছেন। তার ভয়ে অনেকেই কেন্দ্রে প্রবেশ করেনি। একজন পুলিশ সদস্য হয়ে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় আমরা তার কাছ থেকে এমনটা আশা করিনি। অভিযুক্ত গোলাম কিবরিয়ার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, নির্বাচনের দিন তিনি স্ট্রাইকিং ফোর্স নিয়ে সেখানে দায়িত্ব পালন করেছেন। এরকম কোন কিছু তিনি জানেন না, করো সাথে তিনি পরিচিতও নন।

Developed By The IT-Zone