ঢাকাশনিবার , ৮ জানুয়ারি ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

নবীগঞ্জে প্রভাবশালীদের হাত থেকে নদী রক্ষা করবে কে?

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি
জানুয়ারি ৮, ২০২২ ৭:১৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

নবীগঞ্জে প্রভাবশালীদের হাত থেকে নদী রক্ষা করবে কে? এমন প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে উপজেলাবাসীর। অবৈধভাবে বছরের পর বছর কুশিয়ারা নদী থেকে উত্তোলন করা হচ্ছে বালু।

নবীগঞ্জ উপজেলার দীঘলবাক ইউনিয়নের কসবা এলাকায় নদী থেকে বালু উত্তোলনের লঙ্কাকান্ড দেখা যায়। ঘন্টা হিসাব মজুরিতে নদী থেকে বালু উত্তোলনে কাজ করেন প্রায় শতাধিক শ্রমিক।

আর শ্রমিকরা কুদাল দিয়ে নদীর পাড় খনন করে ট্রাকে বালু তুলেন। ট্রাক প্রতি এসব বালু চার হাজার টাকা ধরে বিক্রি করা হয় বিভিন্ন এলাকায়।

কখনো ড্রেজারমেশিন আবার কখনো শ্রমিক দিয়ে। এভাবেই নদীতে থেকে বালু উত্তোলন করে আসছে এক শ্রেণীর লোক। এতে করে বর্ষা মৌসুম আসলে নদীর দুপাড় ভেঙে গিয়ে তীরবর্তী বসবাসরত মানুষের ঘরবাড়ী নদীগর্ভে বিলীন হয়। নদীর পাড় সংরক্ষণ করতে ব্যয় হয় সরকারের কোটি কোটি টাকা।

সচেতন মহল মনে করেন বালু উত্তোলন বন্ধ করতেই পারলেই বর্ষা মৌসুমে তেমন একটা চিন্তা করতে হবে না নদীর তীরবর্তী মানুষের।

বালু উত্তোলনের কাজ করতে আসা নামে প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শ্রমিক বলেন, ঘন্টা হিসাব এখানে বালু উত্তোলনে কাজ করতে এসেছি। বালু উত্তোলন করতে কে কাজ করাচ্ছেন জানতে চাইলে শ্রমিক বলেন, কসবা গ্রামের সাবু মিয়ার মাধ্যমে কাজ করতে এসেছি। এই শ্রমিক আরোও বলেন অনেকদিন ধরে নদী থেকে বালু উত্তোলন করে আসছি।

আরেক শ্রমিক জানায়, কসবা গ্রামের জুমেল নামে এক ব্যাক্তি তাদের মজুরি দিয়ে নদী থেকে বালু উত্তোলন করাচ্ছেন। উত্তোলনের পর এসব বালু কোথায় যায় জানতে চাইলে আহমদ বলেন, ট্রাকে তুলে বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি করা হয়।

নদী থেকে বালু উত্তোলন অবৈধ কাজ এমন প্রশ্নের শ্রমিক বলেন, আমরা পেটের দায় কাজ করতে এসেছি। ঘন্টা হিসাব কাজ করে প্রচুর টাকা পাচ্ছি। তাই কাজ করছি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক ব্যক্তি জানান, সাবু, দিলবার,রাসেম, মস্তই নামে স্থানীয় প্রভাবশালীর মদদে এসব কাজ হচ্ছে। শ্রমিকদের তথ্য অনুযায়ী উল্লিখিত ব্যক্তিদের সাথে কথা বলতে চাইলে তারা সাংবাদিকদের সাথে কথা বলতে অনিহা প্রকাশ করেন।

নদী মাতৃক দেশের প্রাকৃতিক সম্পদ ধ্বংসকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

এ ব্যাপারে সহকারি কমিশনার (ভূমি) উত্তম কুমার দাশ জানান, ইতিমধ্যে আমরা ড্রেজারমেশিন ধ্বংস করেছি এবং সরকারি সম্পদ অবৈধভাব ভোগ দখলের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Developed By The IT-Zone