ঢাকাSunday , 17 January 2021
আজকের সর্বশেষ সবখবর

জেলা আওয়ামী লীগের অযোগ্য নেতৃত্বে মাধবপুর ও নবীগঞ্জ পৌরসভায় নৌকার ভরাডুবি

Link Copied!

স্টাফ রিপোর্টার :  তৃতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে মাধবপুর ও নবীগঞ্জ পৌরসভায় মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীদের পরাজয় হয়েছে। এ নির্বাচনে উভয় পৌরসভায় ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে বিএনপির প্রার্থীরা বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

 

নির্বাচন কমিশনের পূর্ব ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী গতকাল শনিবার (১৬জানুুয়ারি) ওই দুই পৌরসভায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, গতাকাল সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়া বিরতিহীনভাবে ভোট গ্রহণ করা হয়।

 

 

মাধবপুর ও নবীগঞ্জ পৌরসভায় মেয়র পদে মোট প্রার্থী ছিলেন ৮জন। এদের মধ্যে মাধবপুর পৌরসভার ৯টি কেন্দ্রে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে ৫ হাজার ৩১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী হাবিবুর রহমান মানিক। তিনি আওয়ামী লীগের (নৌকা) প্রার্থীর চেয়ে ৮ গুণের বেশি ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী পংকজ কুমার সাহা নারিকেল গাছ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৪ হাজার ১শ’ ৫৬ ভোট। অপর বিদ্রোহী প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহ মোঃ মুসলিম জগ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩ হাজার ৪৯ ভোট। আর নৌকা প্রতীক নিয়ে শ্রীধাম দাশ গুপ্ত পেয়েছেন ৬শ’ ৮ ভোট। ফলে নৌকার প্রার্থীর চেয়ে ৮ গুণের বেশি ভোট পেয়েছেন বিএনপির হাবিবুর রহমান মানিক।

 

মাধবপুর পৌরসভায় সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৭ জন আর সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ৭ জন প্রার্থী প্রতিদ্ব›িদ্বতা করেন। ১৯৯৭ সালে পৌরসভাটি প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর থেকেই মেয়র পদ আওয়ামী লীগের দখলে ছিল। বর্তমানে এটি প্রথম শ্রেণির পৌরসভা। এখানে ভোটার ১৫ হাজার ৯৮৭ জন।

 

এদিকে, নবীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে বিএনপি মনোনিত প্রার্থী আলহাজ্ব ছাবির আহমেদ চৌধুরী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে ৫ হাজার ৭শ’ ৪৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বিতা আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীক নিয়ে আলহাজ্ব গোলাম রসুল রাহেল চৌধুরী পেয়েছেন ৫ হাজার ৪শ’ ৮৫ ভোট।

 

নবীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ-বিএনপি এবং স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ ৩ জন প্রতিদ্ব›িদ্বতা করেন। সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলরের ৩টি ওয়ার্ডে ১২ জন ও সাধারণ কাউন্সিলরের ৯ ওয়ার্ডে ৩৭ জন প্রার্থীসহ মোট ৫২ জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন।

 

এর আগে শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে একইভাবে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীসহ আরও ৩ বিদ্রোহীদের হারিয়ে মেয়র পদে জয় লাভ করেন সাবেক মেয়র ও বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ফরিদ আহমেদ অলি। আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থীদের পরাজয়ে জেলা জুড়ে সমালোচনার ঝড় বইছে।

 

কেউ কেউ বলছেন হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু জাহির এমপি ও সাধারণ সম্পাদক আলমগীর চৌধুরীর অগোচালো নেতৃত্বে নৌকার প্রার্থীদের ভরাডুবি হয়েছে। যথাশীঘ্রই তারা পদত্যাগ না করলে হবিগঞ্জের প্রতিটি পৌরসভায়ই নৌকার বিপর্যয় ঘটবে।

 

এ ব্যাপারে মতামত জানতে বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ ও হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু জাহির এমপির মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তারা কল রিসিভ করেননি।