ঢাকাসোমবার , ১৩ জুন ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

জাহির ভাই জিন্দাবাদ-গোলামী জিন্দাবাদ

বিশেষ সম্পাদকীয়
জুন ১৩, ২০২২ ৯:৫০ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

হবিগঞ্জ জেলার নানা উপজেলা ও পৌরসভাতে আওয়ামী লীগের কমিটি হচ্ছে। নানা কারনেই লোকজন আমার সাথে যোগাযোগ করে। কেউ কেউ যোগাযোগ করে তাদের বিরুদ্ধে একটা নিউজ করার জন্য। কারন কারো বিরুদ্ধে আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় নিউজ মানেই তার কপাল খুলে গেল!

সে পত্রিকার কপি নিয়ে সকাল হতে না হতেই জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আবু জাহির এমপি মহোদয়ের বাসায় গিয়ে হাজির হবে। গিয়ে কান্নাকাটি করে বলবে, লিডার দেখুন, সুশান্ত আমার বিরুদ্ধে কী লিখছে।

আমি আপনার নেতৃত্বে অবিচল বলেই আমার বিরুদ্ধে এই ষড়যন্ত্র৷ এমপি মহোদয়ও খুশি হয়ে বলবেন, যাও চিন্তা কইরো না। আমি দেখতেছি। পরে দেখা যাবে সে বড় পদও পেয়ে গেছে!

আরেকদল আছে যারা আসলেই এমপি মহোদয়ের কাছে নানা সময়ে নিগৃহীত হয়েছে। তারা আমার কাছে তাদের দুঃখের কথা বলে একটু শান্তি পায়। কিন্তু মজার বিষয় হলো, এমপি মহোদয় যখন এদের একটু আদর করে কাছে ডাকেন, পদপদবী দিয়ে দেন, তখন তারা আবার আমাকে ভুলে যায়। আমি এতে মাইন্ড করি না। কারন তারা হয়তো এই পদপদবী না পেয়েই আমার কাছে এসেছিলো। এখন পদ পেয়ে তারা খুশি, আমিও খুশি।

সত্যিকার অর্থে হবিগঞ্জে জেলার একজন ব্যক্তিই আছেন যিনি রাজনীতি করেন, যিনি রাজনীতি বুঝেন ও ধারন করেন। তিনি হলেন আবু জাহির এমপি মহোদয়। বাকি সব হয় ধইন্যাপাতা নতুবা গোলাম। এর মাঝে কিছু নাই।

একটা উদাহরণ দেই তাহলে বুঝতে পারবেন কেন আবু জাহির এমপি মহোদয়ই একমাত্র রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব হবিগঞ্জ জেলায়। তিনি ইচ্ছে করলেই রাজাকার টাজাকার কোন বিষয় না, তিনি তাকে পদ দিতে পারেন।

তিনি ইচ্ছে করলেই বিদ্রোহী মিদ্রোহী কোন বিষয় না। তিনি নেতা বানাতে পারেন। তিনি ইচ্ছে করলেই জামাত-বিএনপি কোন বিষয় না, তিনি নেতা বানাতে পারেন।

শুধু তাই না। হবিগঞ্জ জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন মহোদয় কিংবা কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ এমপি মহোদয় কিংবা সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমপি মহোদয়ও উনার রাজনৈতিক ক্যারিশমাটিক স্কিলের কাছে নস্যি।

তাই তিনি জেলা কমিটি পাশ করিয়ে নিতে পারেন জেলার বর্তমান কোন এমপিকে কমিটিতে না রেখেও। শুধু তাই নয়, নেত্রীর নজরকে পাশ কাটিয়ে তিনি জেলা কমিটি নিজের মতো করে বের করে নিতে পারেন। কেউ কল্পনা করতে পারেন, জেলার একজন রানিং এমপির নামগন্ধ ও নাই জেলা কমিটিতে!

এরকম জেলা কমিটি কিভাবে কেন্দ্র অনুমতি দেয়? নেত্রীকে ফাকি দেওয়ার মতো ক্যাপাসিটি বাংলাদেশের কোন জেলার সভাপতির আছে? আছে, একমাত্র আমার নেতা, আমাদের সবার নেতা আবু জাহির এমপি মহোদয়ের।

আমার এক বন্ধু আমারে কইলো, দোস্ত। তোমার এই আদর্শ মাদর্শ বাদ দাও। জাহির ভাইকে নেতা মাইন্না গোলামীর দৌড়ে আগাইয়া আসো। তোমার ফিউচার গড়ার দায়িত্ব ভাইই নিবেন।

বন্ধুকে কইলাম, হ বন্ধু। জাহির ভাই জিন্দাবাদ। গোলামী জিন্দাবাদ।

Developed By The IT-Zone