ঢাকাSunday , 9 October 2022
আজকের সর্বশেষ সবখবর

জাতীয়করণ থেকে বঞ্চিত মেধাবিকাশ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাথমিক বিদ্যালয় শাখা

Link Copied!

বানিয়াচং মেধাবিকাশ উচ্চ বিদ্যালয়। প্রাথমিক ও মাধ্যমিক উভয় শাখার শিক্ষাকার্যক্রম স্কুলটিতে চলমান। স্কুলটিকে সরকার সম্প্রতি মাধ্যমিক বিদ্যালয় হিসেবে এমপিওভূক্ত করেছে। কিন্তু জাতীয়করণ থেকে বঞ্চিত হয়েছে এ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির প্রাথমিক বিদ্যালয় শাখা।

জানা গেছে, ২০০৩ সালে বানিয়াচং উপজেলার তৎকালীন ইউএনও হাবিবুর রহমান উপজেলা কমপ্লেক্সে মেধাবিকাশ স্কুল নামে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন।

প্লে গ্রুপ থেকে ক্লাস ফাইভ পর্যন্ত ছাত্র-ছাত্রী ভর্তির মাধ্যমে বিদ্যালয়টির যাত্রা শুরু হয়। ২০০৯ সালে নিম্ন মাধ্যমিক হিসেবে পাঠদানের অনুমতি পেলে প্লে গ্রুপ থেকে ৮ম শ্রেণী পর্যন্ত লেখাপড়া চালু করা হয়।

২০১০ সালে দশম শ্রেণী পাঠদানের অনুমতি পেলে এসএসসি পর্যন্ত শিক্ষাকার্যক্রম চালু হয়। ২০১১ সালে পুরোপুরি মাধ্যমিক বিদ্যালয় হিসেবে স্কুলটি একাডেমিক স্বীকৃতি লাভ করে।

বিদ্যালয়ের প্রাথমিক ও মাধ্যমিক উভয় শাখার শিক্ষার্থীরা প্রতিবছর ভালো ফলাফল করে সুনাম প্রতিষ্ঠার পর থেকে অদ্যাবধি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির সুনাম ধরে রেখেছে।

কিন্তু দুঃখের বিষয় হলো, ২০১৩ সালে সরকার দেশের সব প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করলেও বাদ পড়ে মেধাবিকাশ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাথমিক বিদ্যালয় শাখা।

বাদ পড়ার পর থেকে আজ অবধি শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবকসহ এলাকার সর্বস্তরের মানুষ বানিয়াচং মেধাবিকাশ প্রাথমিক বিদ্যালয় নামে স্কুলটির প্রাথমিক শাখাকে জাতীয়করণ করার দাবী জানিয়ে আসছেন। কিন্তু এ গণদাবী বাস্তবায়ন হচ্ছে না।

এ ব্যাপারে বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক ভানু চন্দ্র চন্দ বলেন, বিদ্যালয়টির যাত্রা শুরু প্রাইমারী স্কুল হিসেবে। এখনও প্রাইমারী সেকশনের আলাদা ভবন রয়েছে। প্রাইমারী সেকশনের আলাদা শিক্ষক ও শিক্ষার্থীও রয়েছে। তাই মেধাবিকাশ প্রাইমারি স্কুল নামে জাতীয়করণ করার চেষ্টা করে যাচ্ছি। অতীতে যারা দায়িত্ব ছিলেন তাদের গাফিলতির কারণে জাতীয়করণ বঞ্চিত হয়েছে বলেও তিনি জানান।

বর্তমানে প্লে গ্রুপ থেকে ৫ম শ্রেণী পর্যন্ত ২৪৯ জন ছাত্র-ছাত্রী অধ্যয়নরত এবং তাদের পাঠদানের জন্য ১১ জন প্রাইমারি লেভেলের শিক্ষক-শিক্ষিকা রয়েছেন বলেও তিনি জানিয়েছেন।