ঢাকাThursday , 30 November 2023
আজকের সর্বশেষ সবখবর

চাঁদের হাসি হাসপাতালের ডা: মিলির কান্ড : শঙ্কটে গৃহবধুর জীবন

Link Copied!

হবিগঞ্জ শহরের চাঁদের হাসি হাসপাতালের স্ত্রীরোগ বিষয়ক চিকিৎসক হালিমা নাজনীন মিলির অপচিকিৎসার শিকার হয়ে জীবন মরনের সন্ধিক্ষণে আছেন নাছিমা খাতুন নামে একগৃহবধু।

পরে কোন প্রতিকার না পেয়ে আশ্রয় নিয়েছেন আদালতের। বুধবার (২৯ নভেম্বর) ভুক্তভোগী নাছিমার স্বামী সাইফুর রহমান শিবলু বাদী হয়ে হবিগঞ্জ সদর আমলী আদালতে অপচিকিৎসার অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেছেন।

বিচারক মো. জাকির হোসাইন অভিযোগ আমলে নিয়ে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)কে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। এ মামলার আসামীরা হলেন, স্ত্রীরোগ বিষয়ক চিকিৎসক হালিমা নাজনীন মিলি, চাঁদের হাসি হাসপাতালের ব্যবস্থাপক আব্দুল কুদ্দুছসহ আরও কয়েকজন।

মামলা সুত্রে জানা যায়, সাইফুর রহমান শিবলুর স্ত্রী নাছিমা খাতুন গর্ভাবস্থায় প্রসব ব্যর্থা শুরু হলে চিকিৎসা করার জন্য গত ২১ সেপ্টম্বর চাঁদের হাসি হাসপাতালে আসেন। সেখানে যাওয়ার পর হাসপাতালের ব্যবস্থাপক আব্দুল কদ্দুছের পরামর্শ অনুযায়ী নাছিমাকে ভর্তি করা হয়।

ওই দিন রাত স্ত্রীরোগ বিষয়ক চিকিৎসক হালিমা নাজনীন মিলি নাছিমার আলট্রাসনোগ্রাম করে জানান তাকে সিজার করতে হবে। কিন্তু ভুক্তভোগীরা সিজার করতে অপারগতা প্রকাশ করলে মিলি বলেন, ‘সিজার না করলে রোগীর জীবনে বড় ধরণের ক্ষতি হতে পারে’।

তার পরামর্শ অনুযায়ী সেখানে নাছিমা খাতুনকে সিজার করানো হয়। সিজারের ৩ দিন পর ২৪ সেপ্টেম্বর নাছিমাকে তার বাবার বাসা শহরের মোহনপুরে নিয়ে আসা হয়। ওই বাসায় ৩/৪ দিন বিশ্রামে থাকার পর নাছিমার সেলাইর স্থান দিয়ে রক্তক্ষরণ হতে থাকে।

এ ঘটনায় অপারেশনস্থলে অনেকগুলো ক্ষত তৈরি হলে পুনরায় স্ত্রীরোগ বিষয়ক চিকিৎসক হালিমা নাজনীন মিলি গৃহবধু নাছিমাকে দেখেই নানা টালবাহানা শুরু করেন। সর্বশেষ অবস্থা গুরুতর হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেট এমজি ওসমানি হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। হালিমা নাজনীন মিলি চিকিৎসক সোলায়মান মিয়ার স্ত্রী।

এদিকে এ নিউজ লেখা পর্যন্ত ভুক্তভোগী নাছিমার শারিরিক অবস্থার অবনতি হয়েছে বলে জানা গেছে।