ঢাকাSunday , 10 December 2023
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আপত্তিকর ভিডিওতে আরিফ বাপ্পী’র সংশ্লিষ্ঠতা পায়নি সিআইডি

Link Copied!

স্বার্থান্বেষী মহলসহ হবিগঞ্জের গুটিকয়েক প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতার প্রতিহিংসার শিকার হয়েছেন হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সদ্য সাময়িক বহিস্কৃত সভাপতি মোশারফ হোসেন আরিফ বাপ্পী।

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া একটি আপত্তিকর ভিডিওতে হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মোশারফ হোসেন আরিফের (বাপ্পী) নাম জড়ায়। এর দায়ে তাকে হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

হবিগঞ্জে জামায়াত-শিবিরবিরোধী আন্দোলন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ফি আদায়বিরোধী আন্দোলনসহ নানা কর্মকান্ডে মোশারফ হোসেন আরিফ বাপ্পী যখন হবিগঞ্জের মানুষের কাছে প্রশংসিত হচ্ছিলেন তখনই তিনি ষড়যন্ত্রের শিকার হন তিনি।

যে ভিডিওচিত্রের মাধ্যমে মোশারফ হোসেন আরিফ বাপ্পীকে ফাঁসানো হয়েছে সেটিও এই ষড়যন্ত্রের অংশ বলেই দৈনিক আমার হবিগঞ্জের কাছে দাবী করেছেন তিনি।

হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের কমিটিতে ২০২২ সালে মোশারফ হোসেন আরিফ বাপ্পী সভাপতির দায়িত্ব পাওয়ার পর অধিকাংশ সময়ে মোশারফ হোসেন আরিফ বাপ্পী নানা অনিয়ম-অত্যাচারের বিরুদ্ধে আন্দোলন করেন।

এদিকে, যে আপত্তিকর ভিডিওতে জড়ানোর অভিযোগে মোশারফ হোসেন আরিফ বাপ্পীকে সাময়িক বহিস্কার করা হয়েছে এবার জানা গেল সেই ভাইরাল ভিডিওটি সঠিক নয়। ফরেসনিক করার পর দেখা গেছে ভিডিওটি ফেক।

মোশারফ হোসেন ভিডিওটির ফরেনসিক করার জন্য বাংলাদেশ পুলিশের সিআইডির আইটি ফরেনসিক শাখায় আবেদন করেন। এরপর পুলিশের আইটি বিশেষজ্ঞ দ্বারা পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হয়। যেখানে দেখা যায় ভিডিওটি এডিট করে উপস্থাপন করা হয়েছে।

ফরেনসিক শাখা থেকে বলা হয়, ভুক্তভোগী মোশারফ হোসেনের নমুনা ছবির সঙ্গে ডিভিডিতে রক্ষিত ভিডিওতে দৃশ্যমান পুরুষের মুখমন্ডলের বৈশিষ্ট্যের পরস্পর মিল আছে কিন্তু ডিভিডিতে বাকী সব তথ্য ও ছবি (বিতর্কিত আলামত) যুক্ত করা অর্থাৎ এডিট করা হয়েছে তবে বিতর্কিত পোস্টগুলোর আইডি ও লিংকের পাসওয়ার্ড না পাওয়ায় কে বা কারা উক্ত পোস্ট তৈরি করেছে তার সর্ম্পকে সুনির্দিষ্ট কোনো মতামত প্রদান করেননি।

কিন্তু আপত্তিকর এই ভিডিও ভাইরাল হওয়ার ঘটনায় মোশারফ হোসেনের হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগ সভাপতির পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। এর আগে গত ১৭ সেপ্টেম্বর কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সভাপতি সাদ্দাম হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক শেখ ওয়ালি আসিফ ইনান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে তাকে এ পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

এ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘সংগঠনের মর্যাদা ক্ষুণ্ন হয় এমন কর্মকাণ্ড এবং শৃঙ্খলা পরিপন্থি কার্যকলাপে জড়িত থাকার অভিযোগে তাকে পদ থেকে অব্যাহতি প্রদান করা হলো। ৩ মিনিট ৩৯ সেকেন্ডের ওই ভিডিও ফেসবুক, মেসেঞ্জার ও ওয়াটসঅ্যাপে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে।

এ ব্যাপারে আরিফ বাপ্পী দৈনিক আমার হবিগঞ্জ’কে বলেন, মিথ্যা তথ্য দিয়ে যারা আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়েছে সে সকল গণমাধ্যম ও ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আমি আইনী ব্যবস্থা নিব এর পাশাপাশি আমাকে যেভাবে ষড়যন্ত্র করে স্বপদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে, আমি কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের কাছে আহবান জানাই যথাযথ তদন্তের মাধ্যমে আমার পদ ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য