ঢাকাবুধবার , ২৭ এপ্রিল ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আজমিরীগঞ্জে ভ্রাম্যমাণ আদালতে এক বালু শ্রমিকের অর্থদন্ড : ২ জনের মুচলেকায় মুক্তি

দিলোয়ার হোসেন,আজমিরীগঞ্জ
এপ্রিল ২৭, ২০২২ ৯:০২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

আজমিরীগঞ্জে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন ও পরিবহন করার দায়ে মোহাম্মদ কবির (২৩) নামে এক বালু উত্তোলনের শ্রমিককে নগদ ৫০হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করেছেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) সফিকুল ইসলামের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বুধবার (২৭এপ্রিল) বিকাল ৪ টায় আজমিরীগঞ্জের কালনী-কুশিয়ারা নদীর তীরে এই ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। এ সময় আলাউদ্দিন মিয়া (২২) ও শাজাহান মিয়া (২০) নামে আরো দুই শ্রমিককে মুচলেকায় মুক্তি প্রদান করা হয়। অর্থদন্ড প্রাপ্ত মোহাম্মদ কবির ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কদমতলী গ্রামের বাসিন্দা।

সুত্রমতে জানাযায়, বিগত কয়েক মাস যাবত উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে কালনী-কুশিয়ারা নদী থেকে মিজানুর রহমান মিজান নামে এক ব্যাক্তি অবৈধভাবে নদীর তলদেশ কেটে বালু উত্তোলন করে আসছে। বিভিন্ন সময়ে প্রশাসনের পক্ষ থেকে অভিযান পরিচালনা করে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে কারাদন্ড,অর্থদন্ড প্রদান করা হলে কিছুদিন বন্ধ থাকার পর আবার শুরু হয় বালু উত্তোলন।

যার দরুণ বিগত দিনগুলোতে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে নদীর পাড়ের প্রায় দেড় শতাধিক পরিবার হারায় তাদের মাথা গোঁজার ঠাই। সম্প্রতি মিজানের নেতৃত্বে আবারো নদী থেকে বালু উত্তোলন শুরু হলে অভিযানে নামে প্রশাসন।

এরই প্রেক্ষিতে বুধবার আজমিরীগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি শফিকুল ইসলাম কালনী-কুশিয়ারা নদীর তীরে অভিযান পরিচালনা করে বালু মহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন ২০১০ এর অপরাধ ৪ এর ১৫/১১ ধারা অনুযায়ী মোহাম্মদ কবিরকে নগদ পঞ্চাশ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান এবং আলাউদ্দিন এবং শাজাহান মিয়াকে ভবিষ্যতে অত্র উপজেলায় মাটি উত্তোলন করবে না মর্মে মুচলেখা প্রদান সাপেক্ষে মুক্তি দেয়া হয়। এ সময় অভিযানের খবর পেয়ে বালু উত্তোলনের মুল হোতা মিজানুর রহমান মিজান সটকে পড়ে।

এ বিষয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) শফিকুল ইসলাম দৈনিক আমার হবিগঞ্জ কে জানান- নদী থেকে অবৈধ বালু উত্তোলনের বিরুদ্ধে প্রশাসনের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকালে আজমিরীগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) প্রদীপ দাসের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল সার্বিক সহযোগীতা প্রদান করেন।

 

Developed By The IT-Zone