ঢাকাসোমবার , ১৪ মার্চ ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আজমিরীগঞ্জে বিএনপি নেতার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ঘর নির্মাণ করে রাস্তা বন্ধ করার অভিযোগ

দিলোয়ার হোসেন,আজমিরীগঞ্জ
মার্চ ১৪, ২০২২ ৯:৩০ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

আজমিরীগঞ্জ পৌর বিএনপি’র যুগ্ম আহ্ববায়কের বিরুদ্ধে সনাতন ধর্মাবলম্বী পরিবারের বসতবাড়ীর সামনের উঠোনে জোরপূর্বক ঘর বানিয়ে বেড়া দিয়ে তাদের চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। অভিযুক্ত বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক কামাল মিয়া আজমিরীগঞ্জ পৌরসভার নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা হাজী শওকত আকবর গেদা মিয়ার পুত্র।

এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী জুনু রায়ের ছেলে স্বাধীন রায় বাদী হয়ে আজমিরীগঞ্জ থানায় কামাল মিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

সরেজমিনে দেখা যায়, জুনু রায়ের বাড়ির উঠোনে বেড়া দিয়ে ঘর নির্মাণ করে তাদের চলাফেরার রাস্তা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। জুনু রায়ের পরিবারের একজন মহিলা জানান, কামাল মিয়া নামে এক ব্যক্তি তাদের রাস্তা বন্ধ করে ঘর নির্মাণ করছেন।

তিনি দাবী করছেন তিনি নাকি ক্রয় সূত্রে উক্ত জায়গায় মালিক। তিনি জায়গা ক্রয় করেছেন তাই তিনি ঘর নির্মাণ করছেন। কোন রকম বাধা প্রদান করলে থানা ম্যানেজ করে একরাতে উক্ত জায়গা খালি করে দিবেন বলে হুমকি প্রদান করেন।

এ বিষয় নিয়ে বাড়াবাড়ি না করতে প্রকাশ্যে কুমারহাটি গ্রামের অন্য বাসিন্দাদের সামনে হুমকি দিয়ে যান। বর্তমানে জুনু রায় ও তার পরিবার অবরুদ্ধ অবস্থায় আছেন।

কুমারহাটি গ্রামে বসবাসরত প্রবীণ লোকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, জুনু রায়রা এই জায়গায় ৭০-৮০ বছর যাবত আছেন। অভিযুক্ত বিএনপি নেতা কামাল মিয়া বিএনপির পদ পদবী নিয়েও ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের যোগসাজশে বিভিন্ন অপকর্মে লিপ্ত থাকলেও তিনি রয়েছেন ধরা ছোঁয়ার বাইরে।

এ ব্যাপারে আজমিরীগঞ্জ কৌরব বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক খালেদুর রশীদ ঝলকের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানা্‌ন, এ বিষয়ে জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দের সাথে কথা বলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আজমিরীগঞ্জ পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের কমিশনার প্রদীপ রায় জানান, ঘটনাটি আমি জানি । প্রথমে আমি মীমাংসার চেষ্টা করলেও পরবর্তীতে ব্যাপারটি আমার হাতের নাগালের বাইরে চলে যাওয়ায় আমি নীরব ভুমিকায় আছি। আজমিরীগঞ্জ পৌরসভার বর্তমান প্রশাসক যেহেতু ইউএনও তিনি কেন ঘটনাটি ইউএনওকে জানাননি জিজ্ঞাসা করলে তিনি কোন উত্তর দেননি।

অভিযুক্ত বিএনপি নেতা কামাল মিয়ার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, আমি এই জায়গার ক্রয় সূত্রে মালিক। অসংখ্যবার তাদের বিষয়টি আমি জানিয়েছি। তারা নিজে থেকে আমার কথা না শোনায় আমার জায়গায় আমি ঘর নির্মাণ করেছি।

থানা ম্যানেজের হুমকির ব্যাপার নিয়ে আজমিরীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার ইনচার্জ নুরুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান,কামাল মিয়া নামে কাউকে আমি চিনি না। তারপরও সে যদি আমাদের নিয়ে এমন বক্তব্য দিয়ে থাকে তাহলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অভিযোগ পেয়েছি,যথাযথ তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহন করবো ।

 

Developed By The IT-Zone