ঢাকাসোমবার , ২৩ নভেম্বর ২০২০
আজকের সর্বশেষ সবখবর

অনিয়মের আখড়া যাত্রাবাড়ি কমিউনিটি

অনলাইন এডিটর
নভেম্বর ২৩, ২০২০ ১:১২ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

ছবিঃ যাত্রাবাড়ি কমিউনিটি ক্লিনিক

তারেক হাবিবঃ হবিগঞ্জ সদর উপজেলায় মোট কমিউনিটি ক্লিনিকের সংখ্যা ২৬টি। যার বেশকিছু পূর্ণ হয়ে আছে দূর্নীতি ও অনিয়মে। বেশীর ভাগ এলাকা থেকে অভিযোগ উঠেছে, কমিউনিটি হেলথ্ কেয়ার প্রভাইডার (সিএইচসিপি) গণকমিউনিটি ক্লিনিক পরিচালনা করেন নিজের মতো করে। ধার ধারেন না সরকারি কোন নিয়ম কানুনের।

এলাকাবাসীর অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিনে গত শনিবার দুপুরে হবিগঞ্জ সদর উপজেলার যাত্রাবাড়ী কমিউনিটি ক্লিনিকে গেলে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়। সরকারি নিয়মানুযায়ী দায়িত্ব পালনের সময় সকাল ৯টা হতে বিকাল ৩টা পর্যন্ত হলেও কিন্তু ওইদিন দুপুর ১২টায় যাত্রাবাড়ী ক্লিনিকে দেখা মেলেনি কমিউনিটি হেলথ্ কেয়ার প্রভাইডার (সিএইচসিপি) জেসমিন খানমের।

এ সময় দৈনিক আমার হবিগঞ্জের অনুসন্ধানী সংবাদকর্মী তাৎক্ষণিকভাবে হবিগঞ্জ সদর উপজেলার দায়িত্বে থাকা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা মোঃ দেলোয়ার হোসেন চৌধুরীকে মোবাইল ফোনে অবগত করা হয়। পরে তিনি ঘটনার সত্যতা যাচাই করলে শুরু হয় সাংবাদিককে ম্যানেজ করার চেষ্টা। এর কিছুক্ষণ পর ওই ক্লিনিকের হেলথ্ কেয়ার প্রভাইডার (সিএইচসিপি) জেসমিন খানম প্রতিবেদকের মোবাইল নাম্বার সংগ্রহ করে বিশেষ সমস্যার কারণে অফিসে আসতে পারেননি বলে জানান।

এ সময় এলাকাবাসীর কাছ থেকে আরও জানা যায়, জেসমিন খানম নিয়মিত অফিস করেন না। সপ্তাহের শুক্রবার ব্যতিত নিয়মিত অফিস করার নির্দেশ থাকলেও ক্লিনিকের সামনে ছিলনা কোন নোটিশ। তাছাড়া তার প্রায়ই দিনইও ক্লিনিকে অনুপস্থিতের সত্যতা পাওয়া যায়।

এ ব্যাপারে মুঠোফোনে হবিগঞ্জ সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা মোঃ দেলোয়ার হোসেন চৌধুরীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, অফিসিয়াল নিয়ম অনুযায়ী আমরা তাকে শো-কজ করব। শো-কজের গ্রহণযোগ্য উত্তর না দিতে পারলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সিভিল সার্জন ডাঃ একেএম মোস্তাফিজুর রহমান জানান, প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য হবিগঞ্জ সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা মোঃ দেলোয়ার হোসেন চৌধুরীকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। তিনিই ব্যবস্থা নিবেন। এলাকাবাসী এবং ভুক্তভোগী কমিউনিটি হেলথ্ কেয়ার প্রভাইডার (সিএইচসিপি) আক্ষেপের সাথে এই সকল দুর্নীতি এবং অনিয়মের তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণের জোর দাবি জানান।

Developed By The IT-Zone