ঢাকাবৃহস্পতিবার , ২ এপ্রিল ২০২০
আজকের সর্বশেষ সবখবর

২ এপ্রিল ১৯৭১

অনলাইন এডিটর
এপ্রিল ২, ২০২০ ১২:০২ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

নুরুজ্জামান মানিক,

নির্বাহী সম্পাদক 

জিঞ্জিরায় গণহত্যা সংঘটিত হয়। এ গণহত্যায় আনুমানিক এক হাজার বা তার চেয়ে বেশি সংখ্যক মানুষ মৃত্যুবরণ করে।পিটিভি খবর প্রচার করে, বুড়িগঙ্গা নদীর অপর পারে কেরানীগঞ্জের জিঞ্জিরায় আশ্রয়গ্রহণকারী বিচ্ছিন্নতাবাদী দুষ্কৃতকারীদের কঠোর হাতে নির্মূল করা হয়েছে। অবরুদ্ধ ঢাকায় সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত কারফিউর মেয়াদ শিথিল করা হয়। হাবিলদার আবুল কাশেম এবং হাবিলদার ইব্রাহিমের নেতৃত্বে মুক্তিযোদ্ধারা যশোরে খিতাবদিয়া নামক গ্রামে একটি পাকিস্তানি প্যাট্রোল পার্টিকে অ্যামবুশ করে। এতে ছয়জন পাকিস্তানি সেনা নিহত হয় এবং চারজন আহত হয়। অবসরপ্রাপ্ত মেজর এম টি হোসেন ঢাকা থেকে ঠাকুরগাঁও আসেন এবং সুবেদার মেজর কাজিমউদ্দিনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। তিস্তা সেতুতে মুক্তিযোদ্ধাদের অবস্থানের ওপর পাকিস্তানি বাহিনী বেপরোয়া শেলিং শুরু করে। মুক্তিযোদ্ধারা পাল্টা কোনো জবাব না দেওয়াতে পাকিস্তানি সেনারা সম্মুখের দিকে অগ্রসর হতে থাকে। পাকিস্তানিরা মুক্তিযোদ্ধাদের পুরোপুরি আওতায় এলে মুক্তিযোদ্ধাদের অব্যর্থ গ্রেনেড ও গোলার আঘাতে বেশকিছু পাকিস্তানি সেনা নিহত হয়। সন্ধ্যায় পাকিস্তানি বাহিনী পুনরায় শক্তি সঞ্চয় করে তিস্তা সেতুতে অবস্থানরত মুক্তিযোদ্ধাদের ওপর ব্যাপক হামলা চালায়। এতে প্রিয় মাতৃভূমির জন্য ইপিআর বাহিনীর সেপাই এরশাদ আলী ও সেপাই আতাহার আলী মল্লিক শহীদ হন। চট্টগ্রাম কোর্ট বিল্ডিং এবং স্টেট ব্যাংক এলাকাতে পাকিস্তানি সেনাদের সাথে ইপিআর বাহিনীর বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষে ইপিআর বাহিনী ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। যুদ্ধ সমগ্র শহরে ছড়িয়ে পড়ে।

ঢাকায় সামরিক কর্তৃপক্ষ শহরের সকল বাড়ি ও গাড়ির নম্বর এবং বাণিজ্য প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ড উর্দুতে লেখার আদেশ জারি করে।কোনো নাগরিক ভারতীয় অনুপ্রবেশকারীদের (মুক্তিযোদ্ধা) আশ্রয় দিলে তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে-এই মর্মে ঢাকায় সামরিক কর্তৃপক্ষ ঘোষণা জারি করে।

ভারতীয় পার্লামেন্টে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের প্রতি ভারতীয় জনগণের পূর্ণ সমর্থন ও সহানুভূতি প্রকাশ করে সর্বসম্মতিক্রমে প্রস্তাব গৃহীত হয়। পাকিস্তান ভারতের কাছে তার দেশের অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে হস্তক্ষেপের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক প্রতিবাদ জানায়। হাইকোর্টের ৩৮ জন আইনজীবী এক যুক্ত বিবৃতিতে পাকিস্তানের ঘরোয়া বিষয়ে ভারতের হস্তক্ষেপকে ‘নগ্ন ও নির্লজ্জ’ অভিহিত করে এর প্রতিবাদ জানায় এবং সম্ভাব্য সকল উপায়ে দুষ্কৃতকারীদের (মুক্তিযোদ্ধাদের) বাধাদানের জন্য জনসাধারণের প্রতি আহ্বান জানায়।

সোভিয়েত প্রেসিডেন্ট নিকোলাই পদগর্নি সামরিক বাহিনীর চরম ব্যবস্থা গ্রহণ, ব্যাপক প্রাণহানি এবং শেখ মুজিবুর রহমানসহ রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের গ্রেফতারে সোভিয়েত জনগণের গভীর উদ্বেগের কথা জানিয়ে ইয়াহিয়ার কাছে একটি বার্তা পাঠান। ভুট্টো করাচিতে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, দেশের সংহতি প্রশ্নে শেখ মুজিবুর রহমান ও আওয়ামী লীগের মনোভাবের প্রতি তার কোনো আস্থা ছিল না বলেই তিনি কেন্দ্রে আওয়ামী লীগের সাথে পশ্চিম পাকিস্তানের সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের ক্ষমতা ভাগাভাগির ওপর জোর দিয়েছিলেন। সকালে ঢাকায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কনসাল জেনারেল আর্চার ব্লাড ‘খ’ অঞ্চলের সামরিক প্রশাসক লে. জেনারেল টিক্কা খানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।

Developed By The IT-Zone