ঢাকাবৃহস্পতিবার , ৭ জুলাই ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

হবিগঞ্জ ও বানিয়াচং সিএনজি মালিক সমিতির দ্বন্দ্বে ঈদ যাত্রায় যাত্রীদের ভোগান্তি

ইমদাদুল হোসেন খান
জুলাই ৭, ২০২২ ৫:২০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

হবিগঞ্জ ও বানিয়াচং সিএনজি অটোরিকশা মালিক সমিতির দ্বন্দ্বে ঈদ যাত্রায় ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন যাত্রীসাধারণ। জানা যায়, দুই এলাকার মালিক সমিতির দ্বন্দ্বের কারণে প্রায়ই ঠুনকো অজুহাতে চালকদের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে এবং হবিগঞ্জ-বানিয়াচং সড়কে সিএনজি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ব্যতিক্রম ঘটেনি ঈদ মৌসুমেও।

গত কয়েকদিন যাবত শায়েস্তাগঞ্জ থেকে গ্যাস আনাকে কেন্দ্র করে আবার দুই এলাকার সমিতির মধ্যে দ্বন্দ্ব দানা বাঁধে। এতে এক সমিতি অপর সমিতির গাড়িগুলোকে নিজ নিজ নিয়ন্ত্রণাধীন স্ট্যান্ড থেকে যাত্রী উঠাতে নিষেধ করে। পারস্পরিক নিষেধের ফলে হবিগঞ্জ স্ট্যান্ড থেকে শুধু হবিগঞ্জের সিএনজিগুলো যাত্রী উঠিয়ে বানিয়াচং নামিয়ে দেন এবং বানিয়াচং স্ট্যান্ড থেকে যাত্রী না উঠিয়ে শূন্য গাড়ি নিয়ে হবিগঞ্জ গমন করতে থাকে।

একইভাবে বানিয়াচং স্ট্যান্ড থেকে শুধু বানিয়াচঙ্গের সিএনজিগুলো যাত্রী উঠিয়ে হবিগঞ্জ নামিয়ে দিয়ে শূন্য গাড়ি নিয়ে বানিয়াচং গমন করতে থাকে। পারস্পরিক নিষেধের কারণে পথ থেকেও যাত্রী উঠানো সম্ভব হয়নি। উঠালেই মারামারি।

এ অবস্থায় গত বুধবার (৬জুলাই) সন্ধ্যায় হবিগঞ্জ সমিতির ম্যানেজার বানিয়াচং সমিতির সিএনজিগুলোকে যাত্রীভর্তি কিংবা যাত্রীশূন্য কোনো অবস্থায় গাড়ি নিয়ে হবিগঞ্জ স্ট্যান্ডে যেতে না দেয়ার ঘোষণা দেন বলে বানিয়াচঙ্গের সিএনজি চালকরা জানান।

পাল্টা হিসেবে বানিয়াচং থেকেও হবিগঞ্জের কোনো গাড়িকে বানিয়াচং আসতে না দেয়ার হুমকি প্রদান করা হয়। বৃহস্পতিবার (৭ জুলাই) সকালে বানিয়াচং থেকে যাত্রী নিয়ে হবিগঞ্জ স্ট্যান্ডে গেলে বানিয়াচংয়ের পাঁচজন চালককে মারধর করার অভিযোগ পাওয়া যায়।

মারধরের প্রতিবাদে বানিয়াচঙ্গের সিএনজি মালিক ও শ্রমিক সমিতির হবিগঞ্জ-বানিয়াচং সড়কে সিএনজি চলাচল বন্ধ করে দেয়। অন্যদিকে বুধবার থেকেই হবিগঞ্জের সিএনজিগুলো বানিয়াচং আসা বন্ধ রাখে। এতে হবিগঞ্জ-বানিয়াচং সড়কে ঈদ যাত্রায় চলাচলকারী যাত্রীসাধরণকে ভোগান্তিতে পড়তে হয়।

এই সড়কে বাস, মিনিবাস ইত্যাদি গাড়ি চলাচল না করায় যাত্রীসাধারণকে টমটম, মিসুক ইত্যাদি গাড়ি দিয়ে যাতায়াত করতে হয়েছে। ঈদ মৌসুমে যাত্রীদের বাড়তি চাপ থাকায় হবিগঞ্জ ও বানিয়াচং উভয় দিক থেকেই যাত্রীদেরকে দীর্ঘ সময় গাড়ির জন্য দাঁড়িয়ে থেকে ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে।

বানিয়াচং সিএনজি মালিক সমিতির নেতা মোহাম্মদ আলী জানান, হবিগঞ্জের সিএনজিগুলো বুধবার থেকে স্বেচ্ছায় বানিয়াচং আসা বন্ধ করে দিয়েছে। বানিয়াচঙ্গের পক্ষ থেকে কখনোই তাদেরকে আসতে নিষেধ করা হয়নি।

বৃহস্পতিবার সকালে বানিয়াচঙ্গের সিএনজি চালকরা যাত্রী নিয়ে হবিগঞ্জ গেলে পাঁচজন চালককে মারধর করে গুরুতর আহত করা হয়েছে এবং বানিয়াচঙ্গের যারাই যাবে তাদেরকেই মারধর করার হুমকি দেয়া হয়েছে। আহত চালক সোহাগ, স্বপন, সুমন, মিরজাহান ও আব্দুল কাইউমকে বানিয়াচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তন্মধ্যে সুহাগকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে বানিয়াচং থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ এমরান হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, “একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। পাওয়ার পর বানিয়াচং উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, হবিগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, পৌরসভার মেয়র ও হবিগঞ্জ সদর থানার ওসির সাথে আলাপ করেছি। তারা বলেছেন বানিয়াচঙ্গ থেকে যাত্রী নিয়ে যেনো সিএনজি চালকরা হবিগঞ্জ যাতায়াত করে কোনো অসুবিধা হলে তারা দেখবেন বলেছেন। আমি আলাপ করার পর হবিগঞ্জ সদর থানা থেকে হবিগঞ্জ স্ট্যান্ডে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। বানিয়াচং থানা থেকেও পুলিশ পাঠানো হয়েছে।”

Developed By The IT-Zone