ঢাকামঙ্গলবার , ২৬ জুলাই ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

হবিগঞ্জে ভূমিহীন না হয়েও সরকারি ঘর পেলেন দুবাই প্রবাসী !

এম এ রাজা
জুলাই ২৬, ২০২২ ১০:১০ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

হবিগঞ্জ শহরতলী উত্তর-পূর্ব ভাদৈ এলাকায় নিজের পাকা ঘর থাকার পরও ভূমিহীন হিসেবে জায়গাসহ সরকারি বাড়ি পেলেন দুবাই প্রবাসী খোকন মিয়া নামের এক ব্যক্তি। অথচ সরকার থেকে পাওয়া উপহারের ঘর থেকে মাত্র ১শত গজ দূরে তার নিজের জায়গায় নিজ অর্থায়নে নির্মিত আরো একটি পাকা ঘর আছে।

বর্তমানে ওই ঘরটি এক এনজিও প্রতিষ্ঠান কাছে মোটা অঙ্কের টাকায় ভাড়া দেওয়া আছে । এছাড়াও ওই গ্রামের ভিতরে খোকন মিয়ার পারিবারিক সম্পত্তির আরো একটি বড় বাড়ি আছে।

এ বিষয়ে ওই এলাকার সেকুন মিয়া নামের এক ব্যক্তি জানান, খোকন বর্তমানে দুবাই থাকায় সরকারি ঘরটি দখল বজায় রাখতে বর্তমানে ওই ঘরে বসবাস করছে তার আপন বড় ভাই লিটন মিয়া।

সদর উপজেলা নির্বাহি অফিসার নাজরাতুন নাঈম বলেন, ঘটনা সত্য হলে তদন্ত সাপেক্ষে খোকনের নামে বরাদ্দকৃত ঘরটি বাতিল করা হবে।

দেশের একজন মানুষও ভূমিহীন ও গৃহহীন থাকবেনা’- মুজিব জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এমন ঘোষণা বাস্তবায়নে দেশজুড়ে কাজ করছে স্থানীয় প্রশাসন।

কিন্তু হবিগঞ্জে মাত্র ১শত গজ দূরে নিজের পাকা ঘর ও একই গ্রামে বাবার কাছ থেকে পাওয়া আরও একটি বাড়ি থাকার পরও দুবাই প্রবাসী খোকন কিভাবে সরকারি ঘর পেল এ নিয়ে ওই এলাকায় আলোচনা-সমালোচনার ঝড় বইছে। দুবাই প্রবসী খোকন মিয়া (২৫)। শহরতলী দক্ষিণ তেঘরিয়া গ্রামের মৃত লাল মিয়ার পুত্র।

জানা যায়, সরকারি ঘোষণা অনুযায়ী ভূমিহীন পরিবারদের জন্য তৃতীয় পর্যায়ে সরকারি জায়গায় সদর উপজেলার গোপায়া ইউনিয়নের উত্তর-পূর্ব ভাদৈ এলাকায় ৬ টি ঘর নির্মাণ করা হয়। ভাদৈ এলাকায় নির্মিত ৬ টি সরকারি ঘরের মধ্যে অন্যান্য ভূমিহীনদের পাশাপাশি দুবাই প্রবাসী খোকন মিয়াকে ঘর দেয়ার জন্য তালিকাভুক্ত করা হয়।

গত ২৬ এপ্রিল সারাদেশের ন্যায় হবিগঞ্জেও ভূমিহীনদের জন্য নির্মিত ঘরগুলি তালিকাভুক্ত দের হাতে হস্তান্তর করা হয়। এ সময় তালিকায় নাম থাকায় দুবাইপ্রবাসী খোকন মিয়ার নামের ঘরটিও বুঝিয়ে দেওয়া হয়।

 

Developed By The IT-Zone