ঢাকামঙ্গলবার , ২৯ নভেম্বর ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

হবিগঞ্জে এসএসসিতে পাশের হার ৮০ শতাংশ

এম এ রাজা
নভেম্বর ২৯, ২০২২ ৯:৩৮ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

হবিগঞ্জ জেলায় মাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এসএসসি ) সমমানের পরীক্ষার রেজাল্ট প্রকাশ হয়েছে সোমবার (২৮নভেম্বর)। এ বছর পাশের হার ৮০ শতাংশ। যা গত তুলনায় অনেক কম, গত বছর ছিল ৯৬.১১ শতাংশ। করোনা কালীন সময়ে সঠিকভাবে ক্লাস না করেও জেলায় গড় পাশের হার বেশি ছিল। এবছর সারাবছর ক্লাস করেও জেলায় গড় পাশের হার কমে যাওয়ার কারন কি জানতে চাইলে

হবিগঞ্জ জেলা শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ রুহুল্লাহ বলেন, গতবছর করোনার জন্য পরীক্ষার প্রশ্নের মান কিছুটা নরমাল করা হয়েছিল। এই বছর যেহেতু শিক্ষার্থীরা সারাবছর ক্লাস করেছে তাই পরীক্ষাও কিছুটা কঠিন করা হয়েছে। এই জন্যই হয়তো গড় রেজাল্ট কিছুটা কমে গেছে।

হবিগঞ্জে এ বছর এসএসসি সমমানের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ছিল ২২ হাজার ৮শ ৯২ জন শিক্ষার্থী, এর মধ্য থেকে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে ১৭হাজার ৬শ ৯২জন,জিপিএ ৫ পেয়েছে ১ হাজার ৪শ ৩৬ জন শিক্ষার্থী। হবিগঞ্জ সদর উপজেলা থেকে অংশগ্রহণ করে ৩ হাজার ৯শ ৪৭জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ৩ হাজার ৬৫ জন, জিপিএ ৫ পেয়েছে ৩শ ৯৮ জন, পাশের হার ৭৮ শতাংশ।

আজমিরীগঞ্জ উপজেলা থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৯শ ৭৭ জন শিক্ষার্থী,উত্তীর্ণ হয়েছে ৮শ ৪২ জন,জিপিএ ৫ পেয়েছে ২৬ জন,উপজেলায় পাশের হার ৮৬ শতাংশ। নবীগঞ্জ উপজেলা থেকে অংশগ্রহণ করে ৩ হাজার ২শ ৩ জন,উত্তীর্ণ হয়েছে ২ হাজার ৬শ ৭ জন, জিপিএ ৫ পেয়েছে ১শ ৮৬ জন, উপজেলায় পাসের হার ৮১শতাংশ।

বানিয়াচং উপজেলা থেকে অংশগ্রহণ করেছে ৩ হাজার ৪শ ৭৫ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ২ হাজার ৬শ ৪১জন, জিপিএ ৫ পেয়েছে ১শ ৪৫জন, উপজেলায় পাশের হার ৭৬ শতাংশ। লাখাই উপজেলা থেকে অংশগ্রহণ করে ১১শ জন শিক্ষার্থী,উত্তীর্ণ হয়েছে ৮শ ৭৭ জন, জিপিএ ৫পেয়েছে ৩৭ জন, পাশের হার ৮০শতাংশ।

চুনারুঘাট উপজেলা থেকে অংশগ্রহন করে ৩ হাজার ৮শ ২ জন, ,উত্তীর্ণ হয়েছে ২হাজার ৬শ ২৯ জন,জিপিএ ৫ পেয়েছে ১৩৫ জন, পাশের হার ৬৯ শতাংশ। মাধবপুর উপজেলা থেকে অংশগ্রহণ করে ৩ হাজার ২শ ৯৫ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ২হাজার ৫শ ১৮ জন,জিপিএ ৫ পেয়েছে ২শ ১৬ জন, পাশের হার ৭৬ শতাংশ।

বাহুবল উপজেলা থেকে অংশগ্রহণ করে ২ হাজার ৩০জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ১ হাজার ৬ শ ৬৬ জন,জিপিএ ৫ পেয়েছে ১শ ৮৬ জন, পাশের হার ৮২ শতাংশ।

শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা থেকে অংশগ্রহণ করে ১ হাজার ৬৩ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ৮শ ৪৭ জন,জিপিএ ৫ পেয়েছে ১শ ৭ জন, পাশের হার ৮০ শতাংশ।

হবিগঞ্জ সদর উপজেলার মাদ্রাসা থেকে দাখিল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৬শ ৯১ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ৪শ ৬১জন, জিপিএ ৫ পেয়েছে ৩৫জন,পাশের হার ৬৭ শতাংশ। নবীগঞ্জ থেকে দাখিল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৯শ ২০ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ৭শ ৬৪ জন, জিপিএ ৫ পেয়েছে ১৭ জন, পাশের হার ৮৩ শতাংশ।

বানিয়াচং থেকে দাখিল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ২শ ৩২ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ১শ ১৮ জন, জিপিএ ৫ পেয়েছে ৪জন, পাশের হার ৫১ শতাংশ ।

আজমিরীগঞ্জ উপজেলা থেকে দাখিল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৪৮ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ২৭ জন,তবে কেউ জিপিএ ৫ পায়নি, পাশের হার ৫৬ শতাংশ।

লাখাই উপজেলা থেকে দাখিল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ১শ ৪৩ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ১শ ১৫ জন, জিপিএ ৫পেয়েছে ৩ জন, পাশের হার ৮০শতাংশ।

চুনারুঘাট উপজেলা থেকে দাখিল পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে ৯শ ১৪ জন ,উত্তীর্ণ হয়েছে ৮শ ১৩ জন, জিপিএ ৫ পেয়েছে ২৭ জন, পাশের হার ৮৯ শতাংশ।

মাধবপুর উপজেলা থেকে দাখিল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ২শ ৬৪ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ২শ ৫৮ জন,জিপিএ ৫ পেয়েছে ২২জন, পাশের হার ৯৮ শতাংশ।

বাহুবল উপজেলা থেকে দাখিল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ২শ ৩৮জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ১ শ ৯৭ জন, জিপিএ ৫ পেয়েছে ১৬ জন, পাশের হার ৮৩ শতাংশ।

শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা থেকে দাখিল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৮৯ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ৬৬ জন, জিপিএ ৫ পেয়েছে ১৪ জন, পাশের হার ৭৮ শতাংশ। চুনারুঘাট থেকে ভোকেশনাল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ১শ ৪জন,কেউ উত্তীর্ণ হয়নি।

বানিয়াচং থেকে ভোকেশনাল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৬৫ জন,উত্তীর্ণ হয়েছে ৫৯ জন, জিপিএ ৫ পেয়েছে৩ জন, পাসের ৯১ শতাংশ।

নবীগঞ্জ থেকে ভোকেশনাল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৭৪ জন,উত্তীর্ণ হয়েছে ৭৩ জন, জিপিএ ৫ পেয়েছে ২০ জন, পাশের হার ৯৯ শতাংশ।

মাধবপুর থেকে ভোকেশনাল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে ৮৮ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ৮৬ জন,কেউ জিপিএ ৫ পায়নি, পাশের হার ৯৮ শতাংশ।

বানিয়াচং থেকে টেকনিকেল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৯৭ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ৯৪ জন, কেউ জিপিএ ৫ পায়নি, পাশের হার ৯৭ শতাংশ।

Developed By The IT-Zone