ঢাকাবুধবার , ১ এপ্রিল ২০২০
আজকের সর্বশেষ সবখবর

শায়েস্তাগঞ্জে ত্রাণের জন্য হাহাকার : না পেয়ে ফিরে গেলেন দরিদ্ররা

দৈনিক আমার হবিগঞ্জ
এপ্রিল ১, ২০২০ ৬:১৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

সৈয়দ হাবিবুর রহমান ডিউকঃ  শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার নুরপুর ইউনিয়নে আজ বুধবার বিকাল ৪ টায়  বিতরণ করা হয়েছে সরকারী ত্রাণ। ইউনিয়নের ৯ টি ওয়ার্ডের তালিকায় ১৫০ জনের মাঝে তুলে দেয়া হয়েছে মাথাপিছু ১০ কেজি চাল।   শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুমি আক্তার ও উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুর রশীদ তালুকদার ইকবাল ও ইউপি চেয়ারম্যান মুখলিছ মিয়ার উপস্থিতিতে বিতরণ নির্দিষ্ট কয়েকজনের মাঝে চাল তুলে দেয়া হয়। তালিকার বাকি সদস্যদের চাল, নিজ নিজ ওয়ার্ডের মেম্বারের কাছে দিয়ে দেয়া হয়েছে বিতরণ করার জন্য। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ত্রাণ নেয়ার জন্য দুপুর ১ টা থেকেই মানুষ এসে ভীড় জমায় ইউপি অফিসের সামনে। কাংখিত ত্রাণ না পেয়ে ফিরে গেছেন এক তৃতীয়াংশ লোকজনই।

ছবি : ত্রাণের জন্য অপেক্ষা দরিদ্রদের দীর্ঘ লাইন

সারাদিন ঘুরে এক মুঠো ও চাল না পেয়ে অনেককেই কান্না করতে দেখা গেছে।সুরাবই গ্রামের অচল ৬০ বছরের বৃদ্ধ মহিলা হালেমা খাতুন, , সামী মৃত সোলেমান মিয়া, কুলসুমা, ৫৫, ৭০ বছরের বৃদ্ধ মহিলা শ্যামলা বেগম, , ফুল বানু,৫৮ , মনোয়ারা, ৪৫,ছমির ,  সুফিয়া, ৫০, প্রতিবন্দী রফিক মিয়া,পুরাসুন্দা গ্রামের বৃদ্ধ  পত্রিকা বিক্রেতা উম্বর আলী, , আইয়ুব আলী সহ এরকম কয়েকশত মানুষ ফিরে গেছেন বুকভরা হাহাকার নিয়ে। এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান মুখলিছ মিয়ার সাথে কথা বললে তিনি বলেন, সরকারি বরাদ্দ আজকে এসেছে ১৫০ জনের, কিন্তু মানুষ এসেছে প্রায় ৫০০ জন,  তাই এত লোকের মাঝে চাল পৌঁছে দেয়া সম্ভব হয়নি।
এদিকে সরেজমিনে আরো পরিলক্ষিত হয়, গ্রামের এসব সাধারণ মানুষ এর নেই কোন করোনা সম্পর্কে সাধারণ সচেতনতা ও, সবাইকে জড়ো হয়ে থাকতে দেখা যায়, অনেকেই ছোট ছেলে মেয়েদের সাথে করে নিয়ে এসেছেন চাল নেয়ার জন্য, এদেরকে ও ফিরে যেতে হয়েছে শুন্যহাতেই। সরকারি বরাদ্দকৃত ত্রানের পরিমাণ না বাড়লে গ্রামের কর্মহীন,  অচল এসব মানুষকে হয়তবা উপোসই থাকতে হবে, তাই এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট মহলের সুদৃষ্টি একান্তই প্রয়োজন।

Developed By The IT-Zone