ঢাকামঙ্গলবার , ৫ অক্টোবর ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

শহরের বদিউজ্জামান সড়কে আইনজীবির বাসা দখলের ঘটনায় ডিসি এসপিকে আদালতের শোকজ

দৈনিক আমার হবিগঞ্জ
অক্টোবর ৫, ২০২১ ১০:০৯ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

আতাউর রহমান ইমরান :   আদালতে চলমান মামলায় কার্যক্রমে বেআইনী হস্তক্ষেপে জোরদখল করে আইনজীবির পরিবারকে উচ্ছেদ করার ঘটনায় ১ মাসের মধ্যে কারন দর্শানের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। গত ৩০ সেপ্টেম্বর হবিগঞ্জ যুগ্ম জেলা ও দায়রা এ আদেশ দেন।

 

মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবি এএফএম খাইরুল ইসলাম খোকন জানান, বেআইনী ভাবে বাসা দখল বিচারাধীন মামলায় বেআইনীভাবে হস্তক্ষেপ করে এডভোকেট আব্দুল হাইকে তার বাসা থেকে উচ্ছেদ করার চেষ্টার ঘটনাটি আদালতের দৃষ্টি গোচর হলে দীর্ঘ শুনানী শেষে আদালত জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার হবিগঞ্জকে আগামী ২৭ অক্টোবরের মধ্যে কারন দর্শানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

 

 

 

 

 

 

ছবি : আদালতের পক্ষ থেকে বাসায় লাগানো আইনগত বিজ্ঞপ্তি

 

 

 

 

 

 

 

 

 

মামলার বিবরণে জানা যায়, হবিগঞ্জ শহরের বদিউজ্জামান সড়কের পাশে জোবেদা ভিলার মালিকানা নিয়ে অ্যাডভোকেট আবদুল হাই ও তার ভাইদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিলো। এ বিরোধের জের ধরে আদালতে ২০২১ সালের ২৮ নম্বর দখল জনিত স্বত্বমোকদ্দমা দায়ের করেন অ্যাডভোকেট আবদুল হাই।

 

তবে আদালতে মামলা চলমান থাকলেও মামলা-হামলার ভয় দেখিয়ে উচ্ছেদ করার চেষ্টা করার হয় অ্যাডভোকেট আব্দুল হাইকে। যুগ্ম জেলা জজ ১ম আদালত, হবিগঞ্জ। গত ৩০ সেপ্টেম্বর এ আদেশ প্রদান করেন। হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক, হবিগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার, সহকারি কমিশনার জে এম শাখা, পুলিশ পরিদর্শক (নিরস্ত্র), ইনচার্জ, কোর্ট স্টেশন পুলিশ ফাঁড়ি, পুলিশ পরিদর্শক (নিরস্ত্র) ডিআইও ২, জেলা বিশেষ শাখা, মোঃ আব্দুল ওয়াহেদ ও মোঃ আব্দুল কাইয়ুমকে আদালত এ কারণ দর্শানোর নির্দেশ প্রদান করেন।

 

মোকদ্দমায় এডভোকেট আব্দুল হাই অভিযোগ করেন আব্দুলওয়াহেদ এবং আব্দুল কাইয়ুম এর প্ররোচনায় হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের অধীনস্থ সহকারি কমিশনার জেএমশাখা,পুলিশ পরিদর্শক (নিরস্ত্র) ইনচার্জকোর্ট স্টেশন পুলিশ ফাড়ি পুলিশ পরিদর্শক (নিরস্ত্র)ডিআই ও২ জেলা বিশেষ শাখা বিভিন্ন বেআইনি নোটিশ এর মাধ্যমে তার ভোগ দখলে থাকা উক্ত জমি ও জোবেদা ভিলা হতে জোর পূর্বক উচ্ছেদের পাঁয়তারা করছেন।

 

এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক ইসরাত জাহান এর সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আদালতের নির্দেশনার কাগজপত্র হাতে পেলে এ বিষয়ে তিনি মন্তব্য করবেন।

 

এ বিষয়ে জানতে হবিগঞ্জের পুলিশ সুপার এস এম মুরাদ আলীর মোবাইলে একাধিকবার কল দিলেও তিনি রিসিভ না করায় মন্তব্য নেয়া যায়নি।

এদিকে, এডভোকেট আব্দুল হাইয়ের পুত্র আব্দুল হান্নান শাকিল অভিযোগ করে জানান, আদালতে মামলা চলমান থাকলেও বাসা ছেড়ে দিতে নানা ভাবে তাদের মামলা-হামলার ভয় দেখানো হয়েছে। এমনকি গত ৪ অক্টোবর তার বাসার গেটে হবিগঞ্জ সদর থানার সজীব মিয়া নামে এক এসআই ডিস লাইনের লোক পরিচয়ে অনেক তুলে নেয়ার চেষ্টা করে।

 

পরে পুলিশ চিনতে পারলে কোন উত্তর না দিয়ে এসআই সজীব সেখান দ্রুত পালিয়ে যান। এব্যাপারে এসআই সজিবের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আদালতের একটি প্রতারণার মামলা তদন্তে সেখানে গিয়েছিলাম।  এর আগে, হবিগঞ্জ সদর থানার ওসি মাসুক আলী ও তদন্ত ওসি দৌস মোহাম্মদের নেতৃত্বে একাধিকবার বাসা দখলের চেষ্টা চালায় পুলিশ।

Developed By The IT-Zone