ঢাকাবৃহস্পতিবার , ১৯ জানুয়ারি ২০২৩
আজকের সর্বশেষ সবখবর

শহরের উচাইল মার্কেটের পিছনের পুকুর ভরাট বন্ধ করে দিয়েছেন জেলা প্রশাসক

এম এ রাজা
জানুয়ারি ১৯, ২০২৩ ৯:০২ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

হবিগঞ্জ শহরের শায়েস্তানগর এলাকার উচাইল মার্কেটের পিছনে বিরাট একটি পুকুর দখল করে মাটি ভরাট করছেন লন্ডন প্রবাসী ডা. আফজাল হোসেন নামের এক ব্যক্তি।

এই শিরোনামে গত ১৭ জানুয়ারি দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হয়েছিল। এরই প্রেক্ষিতে ওই পুকুরে মাটি-ভরাটকারীদের পুকুর ভরাট না করতে নির্দেশ দিয়েছেন জেলা প্রশাসক। পুকুর ভরাট বন্ধ করা হয়েছে বিষয়টি দৈনিক আমার হবিগঞ্জকে নিশ্চিত করেছেন জেলা প্রশাসক ইশরাত জাহান।

এর আগে গত ১৬ জানুয়ারি পুকুর ভরাট কারীদের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছিলেন স্থানীয় বাসিন্দা এডভোকেট মোঃ নূরুল হক হারুন,এডভোকেট সালসাবিল মারির, এডভোকেট মোঃ সফিকুল ইসলাম ও গুলশান আরা বেগম, মোঃ শামছুল আলম কবির, দিলারা বেগম, মোঃ আব্দুল্লা জাবির, এডভোকেট ইসমত আরা বেগম ও এডভোকেট ফেরদৌস জাহান নামের স্থানীয় সচেতন কয়েকজন।

অভিযোগের অনুলিপি দেওয়া হয়েছে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন বাপা কে। এরই প্রেক্ষিতে গত মঙ্গলবার (১৭ জানুয়ারি) দুপুরে বাপার একটি দল সরেজমিনে পরিদর্শন করেছেন সদ্য মাটি ভরাট শুরু করা কুকুরটি।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়,শহরের শায়েস্তানগর জে কে এন্ড এইচ কে হাই স্কুল এন্ড কলেজের দক্ষিনে (উচাইল মার্কেট এর পেছনের) প্রায় ১শ বছর পুরোনো।

স্থানীয়দের ব্যবহারযোগ্য একটি পুকুর রয়েছে। পুকুরটি মূলত দেশভাগের পূর্বে তৎকালীন টাউন হল এলাকার বাসিন্দা জংগুরু দাস গুপ্তার ছেলে ভুবনেশ্বরী দাস গুপ্তার সম্পত্তি ছিলো তাদের স্থায়ী ঠিকানা ছিল নবীগঞ্জ এলাকার গুজাখাইর গ্রামে।

বর্তমানে আফজল হোসেনসহ কয়েকজন মালিক হিসেবে দাবিদার। অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয়, পুকুর পাড়ের দুটি বাসা ও পুকুরটি সরকারী অধিগ্রহণের ছিলো।

পুকুরটি যাতে এলাকাবাসী ব্যবহার করতে পারে সেজন্য স্থানীয়দের পূর্বপুরুষেরা ১টি মোকাদ্দমা দায়ের করেন এবং তার রায় ও ডিক্রি আছে। অতিরিক্ত জেলা জজ আদালত হবিগঞ্জ এর সত্ত্ব আপীল ৭৭/৮৯, ৭৯/৮৯, বিবিধ আপীল ২০/৮৯ রায় ও ডিক্রি সংযুক্ত করেছেন ওই অভিযোগ পত্রে।

রায় এবং ডিক্রি প্রদানের তারিখ ১২/০২/১৯৯৪ ইং ও মোকাদ্দমার রায় ও ডিক্রিতে স্থানীয়দের পানি ব্যবহারে বর্তসত্ত্ব বহাল আছে বলে ঘোষণা করা হয়।

বর্তমানে বাংলাদেশ সরকারের প্রণয়নকৃত আইন অনুযায়ী পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার্থে কোন ব্যক্তি অনুমতি ছাড়া কোন পুকুর ভরাট করতে পারবে না। কিন্তু পুকুরটি গত ১৫ জানুয়ারি থেকে আফজাল হোসেনের নির্দেশে মাটি ফেলে ভরাট করা শুরু করেছে কতিপয় লোক।

Developed By The IT-Zone