ঢাকারবিবার , ৬ জুন ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

লাখাইয়ে হেলাল উদ্দিন কমলের বিরুদ্ধে সিআইডিকে টাকা দেয়ার কথা বলে প্রতারণা : আত্মসাতের অভিযোগ

দৈনিক আমার হবিগঞ্জ
জুন ৬, ২০২১ ৬:৪৪ অপরাহ্ণ
Link Copied!

আতাউর রহমান ইমরান / তৌহিদ মোল্লা :  লাখাইয়ে নিখোঁজ সন্তানকে ফেরত এনে দেয়ার জন্য সিআইডিকে দেয়ার কথা বলে জিরুন্ডা গ্রামের আবেদ মিয়া নামের এক দিনমজুরের নিকট থেকে প্রতারণা করে ৫০ হাজার টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ উঠেছে লাখাই যুব এসোসিয়েশন ঢাকার বহিস্কৃত সভাপতি আরজে হেলাল উদ্দিনের বিরুদ্ধে।

সরেজমিনে জানা যায়, ২০২০ সালে ঢাকার শনির আখড়া এলাকায় জিরুন্ডা গ্রামেরই কামাল মিয়ার মালিকানাধীন হোটেলে কর্মরত ছিলেন অসহায় দিনমজুর আবেদ মিয়ার ১৩ বছর বয়সী সন্তান ইসমাইল মিয়া। ২২ ডিসেম্বর ২০২০ হঠাৎই নিখোঁজ হয়ে যায় ছেলেটি।

 

 

 

 

 

 

পরবর্তীতে এ ব্যাপারে একটি মামলা দায়ের করেন ছেলেটির পিতা আবেদ আলী। এসব বিষয়ে জানতে পেরে প্রতারণার উদ্দেশ্যে বন্ধু সেজে এগিয়ে আসেন একই গ্রামের বাসিন্দা ফজলে করিমের ছেলে আরজে হেলাল উদ্দিন কমল। কমল তাদেরকে জানান ছেলেকে উদ্ধার করতে হলে তার মাধ্যমে সিআইডির নিকট ৫০ হাজার টাকা দিতে হবে। টাকা না দিলে ছেলে উদ্ধার হবে না বলে বিভিন্নভাবে চাপ প্রয়োগ ও ভুল বুঝিয়ে ছেলেটির পিতা হতদরিদ্র দিনমজুর আবেদ আলীর কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা প্রতারণা করে নিয়ে নেন প্রতারক কমল।

পরবর্তীতে সিআইডিকে টাকা না দিয়ে নিজেই ওই টাকা আত্মসাৎ করেন তিনি। এ ব্যাপারে ছেলেটির পিতা আবেদ মিয়া কান্নাজড়িত কণ্ঠে জানান তার নিজের ছোট্ট বসতভিটা ও দো-চালা টিনের একটি ঘর ছাড়া আর কিছুই নেই। কমল সিআইডিকে দেয়ার কথা বলে তার কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা নিয়ে গেছে।

ধানের উপর চড়া সুদে লগ্নি করে আনা ওই টাকা সুদে আসলে ৭৫ হাজার টাকা হয়েছে। টাকা পরিশোধ করতে গিয়ে তাকে গরু বিক্রি করতে হয়েছে। দীর্ঘ আট মাস ধরে তার ছেলেকে এনে দেয়ার জন্য বললে কমল তার সাথে খারাপ ব্যবহার করে আসছেন। টাকা ফেরত চাইলেও টাকা দেন না কমল।

নিখোঁজ ছেলেটির মা জানান, হেলাল উদ্দিন কমলের প্রতারণার বিষয়টি তারা বুঝতে পারেন নি। তাদের টাকা এবং হারানো ছেলেকে ফেরত চান তিনি। এ প্রতিবেদক এর সামনেই হেলাল উদ্দিন কমলের মোবাইলে কল দিয়ে ছেলেটির পিতা তার কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা সিআইডিকে দেয়ার কথা বলে নেয়া ও ছেলে উদ্ধারের ব্যাপারে কোনো ব্যবস্থা করতে পেরেছেন কিনা মোবাইলে জিজ্ঞেস করলে কমল জানান ঢাকায় আসো। ছেলেকে উদ্ধার করতে না পারলে টাকা ফেরত দেয়ার কথা বললে কমল জানান ঢাকায় আসো এসব ব্যাপারে কথা হবে।

এ ব্যাপারে জানতে দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকার পক্ষ থেকে হেলাল উদ্দিন কমলের মোবাইলে কল দেয়া হলে তিনি গাড়িতে আছি পরে ফোন দিচ্ছি বলে ফোন কেটে দেন তিনি। পরে বারবার কল দেয়া হলেও তিনি তা রিসিভ করেননি।

এ বিষয়ে জানতে সিআইডি ডেমরা ইউনিটের পরিদর্শক মোঃ মশিউর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান ছেলেটিকে এখনো উদ্ধার করা যায়নি। প্রতারণা করে টাকা নেয়ার বিষয়টি তাকে দু-তিন দিন আগে একজন ফোন করে জানিয়েছেন। তিনি কোন টাকা পয়সা নেয়ার প্রশ্নই আসে না বরং আবেদ মিয়া অসহায় বিবেচনা করে হবিগঞ্জ থেকে ঢাকায় মামলায় তদবির করার জন্য উল্টো তিনি ফোন করে গাড়ি ভাড়া বাবদ ৫ শত টাকা দিতে চেয়েছেন। হেলাল উদ্দিন কমলের প্রতারণা করে টাকা নেয়ার ঘটনার সত্যতা পেলে এ ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Developed By The IT-Zone