ঢাকামঙ্গলবার , ২৪ মার্চ ২০২০
আজকের সর্বশেষ সবখবর

লাখাইয়ে ক্ল-লেস মার্ডারের রহস্য উদঘাটন : আসামি গ্রেফতার

দৈনিক আমার হবিগঞ্জ
মার্চ ২৪, ২০২০ ৯:৩৮ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

লাখাই প্রতিনিধি :    গত ২০/০২/২০২০ খ্রিঃ শুক্রবার সকাল ১১ টার সময় স্থানীয় পথচারীরা লাখাই উপজেলার মুড়াকরি ইউনিয়নের হবিগঞ্জ-নাসিরনগর আঞ্চলিক মহাসড়কের তিস্কারপুর নামক স্থানের পার্শ্ববর্তী খালে অজ্ঞাত মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে লাখাই থানা পুলিশ কে অবগত করলে লাখাই থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ সাইদুল ইসলামের নেতৃত্বে একদল পুলিশ উল্লেখিত স্থান থেকে অজ্ঞাত লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।
হত্যাকান্ডটি প্রাথমিকভাবে রশি দ্বারা গলা প্যাঁচিয়ে সংঘঠিত হয়েছে বলে নিশ্চিত হওয়ার পর এসআই (নিঃ)/ মোহাম্মদ মোবারক হোসেন বাদী হয়ে মামলা দায়ের করে। এরপর পরই লাখাই থানার একদল চৌকস পুলিশ টিম হত্যাকান্ডের রহস্য উদ্ঘাটনে তৎপর থাকে এবং অজ্ঞাতনামা মৃত দেহটি সনাক্ত করে জানতে পারে ভিকটিম ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলার সরাইল থানাধীন ইসলামাবাদ এলাকার শুক্কুর আলীর পুত্র ফালু মিয়া এবং সে পেশায় একজন টমটম চালক।  ঘটনার দিন জনৈক জসিম ও রাসেল মিয়া নামে দুইজন ব্যাক্তি ভিকটিম ফালু মিয়ার টমটম ছিনতাই করার উদ্দেশ্যে কৌশলে টমটমটি ভাড়া করিয়া তাকে লাখাই থানাধীন মোড়াকড়িতে নিয়া আসে। পরবর্তীতে নেশাযুক্ত মুড়ি চানাচুরে মাধ্যমে  ভিকটিম ফালু মিয়া অচেতন হয়ে পড়লে আসামী রাসেল মিয়া ভিকটিম ফালু মিয়াকে নিয়ে টমটমের পিছনে বসে এবং ঘটনায় জড়িত অপর আসামী জসিম টমটম চালিয়ে তিস্কারপুর এলাকায় নিয়া আসে।  আসামী রাসেল মিয়া অচেতন ভিকটিম ফালু মিয়াকে মাটির ওপর উপুড় করিয়া বসাইয়া তাহার হাত-পা একজোট করে চেঁপে ধরে এবং অপর আসামী জসিম মিয়া রশি দিয়ে ভিকটিমের গলা প্যাঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে মৃত্যু নিশ্চিত করে।
ভিকটিমের মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ার পর আসামীরা দ্রুত টমটমটি নিয়ে পালিয়ে যায়।   পরবর্তীতে এএসআই (নিঃ)/ মোহাম্মদ সাদ্দাম হোসেন ও এএসআই(নিঃ)/ মোঃ তোহা একদল পুলিশ সদস্য নিয়া উক্ত ঘটনায় সরাসরি জড়িত আসামী রাসেল মিয়া (২৫) পিতা-মৃত ছাত্তার মিয়া,মাতা-মিনারা বেগম,সাং-শিবলা,থানা-অষ্টগ্রাম, জেলা-কিশোরগঞ্জ এর বসত ঘর হইতে রাসেল মিয়া এবং আলামত গোপনে সহায়তাকারী ইসলাম মিয়া (৩৫),পিতা-মৃত জালাল মিয়া,মাতা-জহুরা বেগম,সাং-চান্দিয়ারা,থানা-বি-বাড়ীয়া সদর,জেলা-বি-বাড়ীয়াকে গ্রেফতার করে। এসংক্রান্তে আসামীরা বিজ্ঞ আদালতে ফৌঃ কাঃ বিঃ আইনের ১৬৪ ধারা মোতাবেক স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ঘটনায় জড়িত অপর আসামীকে গ্রেফতারের লক্ষ্যে অভিযান অব্যাহত আছে।

Developed By The IT-Zone