ঢাকারবিবার , ২৪ জুলাই ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

লাখাইয়ের ভবানীপুর স্কুল এন্ড কলেজ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে শিক্ষককে বেতন না দেয়ার অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার
জুলাই ২৪, ২০২২ ১১:৪১ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

লাখাই উপজেলার ভবানীপুর স্কুল এন্ড কলেজের খন্ডকালীন শিক্ষক আবু বকর মো: ছিদ্দিককে বেতন না দিয়ে তার সাথে তালবাহানা শুরু করছে স্কুল কর্তৃপক্ষ । ফলে তার প্রাপ্য বেতন না পেয়ে পরিবাবর পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন ওই শিক্ষক।

শিক্ষক আবু বকর কোন উপায় না পেয়ে বকেয়া টাকা পরিশোধ প্রসঙ্গে লাখাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগও দায়ের করেছেন তিনি। গত জুন মাসের ১ তারিখে এই অভিযোগ দায়ের করা হয়।

অভিযোগ সুত্রে জানা,শিক্ষক আবু বকর গত ২০১৮ সালের আগস্ট মাসের ১ তারিখে অত্র স্কুল এন্ড কলেজে খ›ডকালীন ইসলামী ইতিহাস বিষয়ে প্রভাষক হিসেবে যোগদান করে ২০২২ সালের জানুয়ারির ৩১ তারিখ পর্যন্ত তিনি কর্মরত ছিলেন। অভিযোগে উল্লেখ করা হয়,বিগত ২০২০ সালের মার্চ মাস হতে ২০২১ সালের আগস্ট মাস পর্যন্ত মোট ১৮ মাসের বকেয়া বেতন তাকে পরিশোধ করেনি কর্তৃপক্ষ।

বর্তমানে তার পারিবারিক অবস্থা শোচনীয় হওয়ায় বিধায় ওই শিক্ষক তার টাকা আদায়ে লিখিত অভিযোগ করেছেন ।

কিন্ত এই অভিযোগ অদ্যবধি পর্যন্ত কোনা সুরাহা না করায় হতাশা নেমে এসেছে শিক্ষকসহ তার পরিবারের লোকজনদের উপর। স্কুল কর্তৃপক্ষ তার বেতনের টাকা দেই দিচ্ছি বলে সময়ক্ষেপন করতে থাকেন।

এই বিষয়ে ভুক্তভোগী শিক্ষক আবু বকর মো: ছিদ্দিক জানান,স্কুলের প্রধান শিক্ষকের কাছে লিখিত অভিযোগ নিয়ে যাওয়ার পরও প্রধান শিক্ষক তার অভিযোগ জমা নেননি। বরং আমাকে আরো হুমকি ধামকি দিয়ে বিদায় করে দিয়েছেন। এই বেতনের টাকা দেয়া হবেনা বলেও জানিয়ে দেন প্রধান শিক্ষক। আমি নিরুপায় হয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার বরাবরে আবেদন করেও কোনো ফল পায়নি।

এই বিষয়ে ভবানীপুর স্কুল এন্ড কলেজের প্রধান শিক্ষক কাজল জোয়ার্দার এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, করোনাকালীন সময়ে ওই শিক্ষক যোগ দিয়েছিলেন। তখন তার সম্মানি পরিশোধ ও করা হয়েছে। তারপরও যদি পাওনা থেকে থাকে। তাহলে সভাপতি আসলে মিটিং করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

গভর্নিং বডির সভাপতি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মুশফিউল আলম আজাদ হজ্ব পালনে দেশের বাহিরে থাকায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

বিস্তারিত জানতে লাখাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শরীফ উদ্দিন এর সাথে কথা হলে তিনি দৈনিক আমার হবিগঞ্জকে জানান,এই মুহুর্তে আমার এই অভিযোগের বিষয়টা মনে পড়ছে না। এরকম অনেক অভিযোগ প্রতিদিন ই আাসে। তারপরও আমি এটা খতিয়ে দেখব।

Developed By The IT-Zone