ঢাকাশনিবার , ৪ জুন ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মাধবপুরে পারাপারে ঝুঁকিপূর্ণ বাঁশের সাঁকোই ভরসা

ইয়াছিন তন্ময়,মাধবপুর
জুন ৪, ২০২২ ৪:৫৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার আন্দিউরা ইউনিয়নের সুলতানপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের যাওয়ার রাস্তায়, খালের উপর নির্মিত ঝুঁকিপূর্ণ বাঁশের সাঁকোটি, ছাত্রছাত্রীসহ ঐ এলাকার মানুষের নিত্যদিনের সঙ্গী। পারাপারের একমাত্র ভরসা বাঁশের সাঁকোটি দিয়ে প্রতিদিন কয়েক শ’ ছাত্র- ছাত্রী সহ সাধারণ
মানুষ চলাচল করে।

বিশেষ করে পাহাড়ি ঢল এলে এলাকাবাসী ও ছাত্র-ছাত্রীদের দের দুর্ভোগ চরমে পৌঁছে। সামান্য ঝড়-বৃষ্টিতে বাঁশের সাঁকো দিয়ে পারাপার বিপজ্জনক হয়ে পড়ে।

জানা যায় হরিশ্যামা, কোটানিয়া, দিঘীরপাড়,সোন্দা দিল গ্রামের শিক্ষার্থী,সহ এলাকার প্রান্তিক কৃষকরাও কৃষি কাজের জিনিস পত্র নিয়ে ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিন সাঁকো দিয়ে যাতায়াত করে। এ সাঁকো পার হওয়ার সময় ভয়ে আতংকে থাকে সবাই। সাঁতার না জানা শিক্ষার্থীদের নিয়ে আশঙ্কায় থাকেন অভিভাবকরা। এছাড়াও দিনের বেলা জনসাধারণ ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করলেও রাতের অন্ধকারে চলতে ভয়ে বুকটা আঁতকে ওঠে তাদের।

স্থানীয়রা জানায়,সামান্য বৃষ্টিপাত হলেই পাহাড়ি ঢলে বাঁশের সাঁকোর নিচে প্রচণ্ড স্রোতধারা প্রবাহমান থাকে। স্কুল শিক্ষার্থী তানিয়া বলেন বাঁশের সাঁকো দিয়ে নদী পার হতে খুব ভয় লাগে, কখন যে সাঁকো ভেঙ্গে নদীতে পড়ে যাই। এখানে একটি ব্রিজ হওয়া দরকার।

আন্দিউরা ইউনিয়নের বাসিন্দা ও মাধবপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান বলেন,স্কুলগামী ছাত্র-ছাত্রীদের যাতায়াতের জন্য এখানে একটি ব্রিজ খুবই গুরুত্বপূর্ণ, প্রতিদিন শতশত ছাত্র-ছাত্রী জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এই বাঁশের সাঁকোটি পারাপার করে যেকোনো সময় ঘটতে পারে অনাকাঙ্খিত দুর্ঘটনা, তাই দ্রুত সময়ের মধ্যে এখানে একটি ব্রিজ নির্মাণের দাবি জানান তিনি।

মাধবপুর উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ শাহ আলম জানান বিষয়টি আমি অবগত হয়েছি। সরেজমিনে গিয়ে খালটি দেখব,যদি সেখানে ব্রিজ প্রয়োজন হয়,তাহলে আমরা অবশ্যই প্রস্তাব প্রেরণ করব।

Developed By The IT-Zone