ঢাকাবুধবার , ৫ আগস্ট ২০২০
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বৃহস্পতিবার সাবেক এমপি মরহুম শরীফ উদ্দিন আহমেদ এর ২৪তম মৃত্যুবার্ষিকী

দৈনিক আমার হবিগঞ্জ
আগস্ট ৫, ২০২০ ৭:১৬ অপরাহ্ণ
Link Copied!

তানজিল হাসান সাগর :   হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও হবিগঞ্জ-২ বানিয়াচং- আজমিরীগঞ্জ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মরহুম শরীফ উদ্দিন আহমেদ-এর ২৪তম মৃতুবার্ষিকী (৬ আগস্ট) বৃহস্পতিবার। ১৯৯৬ সালের ৬ই আগস্ট মৃত্যুবরণ করেন বারবার নির্বাচিত জননন্দিত সংসদ সদস্য মরহুম এডভোকেট শরীফ উদ্দিন আহমেদ। সৎ জীবনযাপন ও আদর্শীক রাজনীতির জন্য আজও তিনি দলমত নির্বিশেষে সবার কাছে অণুকরণীয় হয়ে আছেন। মরহুম শরীফ উদ্দিন আহমেদ বানিয়াচং উপজেলার যাত্রাপাশা গ্রামে ১৯৪২ সালের ৭ই মার্চ তারিখে জন্মগ্রহন করেন। তার পিতার নাম মরহুম দিদার বক্স।

শরীফ উদ্দিন আহমেদ গ্রামের প্রাথমিক বিদ্যালয় হতে প্রাথমিক এবং বানিয়াচং এল আর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেমে মেট্রিক পাশ করে হবিগঞ্জের বৃন্দাবন কলেজে ভর্তি হন এবং সেখান থেকে বি.এ.পাশ করেন। ১৯৬৭সালে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব এডুকেশন এ্যান্ড রিসার্স থেকে এম.এ ডিগ্রী লাভ করেন। একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৭১সালে এলএলবি পাশ করেন।

এলএলবি পাশ করার পূর্বে তিনি বানিয়াচং এলআর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে কয়েক বছর সুনামের সহিত শিক্ষকতা করে ছাত্রদের পরম আত্মার আত্মীয় হয়ে উঠেছিলেন। পরে হবিগঞ্জ কোর্টে সুনামের সাথে আইন ব্যবসা করে সাফল্য বয়ে আনেন। আইন পেশার পাশাপাশি রাজনীতি ও মানুষের সেবাকে কর্ম হিসেবে গ্রহন করেছিলেন এই সাবেক সাংসদ। মরহুম শরীফ উদ্দিন আহমেদ বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন ১৯৭৩সালে। তার স্ত্রী  হালিমা খানম একজন গৃহিনী। তিন পুত্র রাসেল,রুয়েল ও জনি এবং দুই কন্যা কুমকুম ও তিন্নী।

হবিগঞ্জের রাজনৈতিক অঙ্গনের সংগ্রামী নাম শরীফ উদ্দিন আহমেদ। ছাত্রাবস্থায় থেকেই রাজনৈতিক আন্দোলনে জড়িয়ে পড়েন তিনি। ষাট ও সত্তর দশকে তদানিন্তন পাক শাসনামলে স্বাধীকার আন্দোলন,গণতান্ত্রিক সংগ্রাম ও স্বাধীকার সংগ্রাম যখন প্রতিরোধ মুক্ত ও সশস্ত্র স্বাধীনতার সংগ্রামের দিকে মোড় নেয় তখন শরীফ উদ্দিন আহমেদের বলিষ্ট ভুমিকা ছিল প্রশংসনীয়।

১৯৭১সালের মুক্তিযুদ্ধের সময় বানিয়াচংয়ে তার উদ্যোগে সংগ্রাম পরিষদ গঠন করা হয়। তিনি ছিলেন ঐ কমিটির সাধারণ সম্পাদক। হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন তিনি। স্বৈরাচার ও সামরিক শাসনবিরোধী আন্দোলনে তিনি সাহসী ভুমিকা পালন করেন।

১৯৯১সালে ২৭ ফেব্রয়ারি অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনে হবিগঞ্জ-২ আসন থেকে আওয়ামীলীগের মনোনয়নে তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৯৬ সালে দ্বিতীয়বারের মতো বিপুল ভোটে জয়লাভ করে আবারো এমপি নির্বাচিত হন এবং এলাকার সার্বিক উন্নয়নে ব্যাপক অবদান রাখেন। পেশাগত কর্মব্যস্ততা ও রাজনৈতিক কর্মকান্ডের ফাঁকে ফাঁকে শরীফ উদ্দিন আহমেদ বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডের সঙ্গে নিজেকে ঘনিষ্টভাবে সম্পৃক্ত করে রেখেছিলেন। এবং মানুষের বিপদে আপদে,সুখে-দু:খে শান্তনা দিতে কখনো কার্পন্যতা করেননি।

ছবি : হবিগঞ্জ ২ আসনের সাবেক এমপি মরহুম শরীফ উদ্দিন আহমেদ এর ফাইল ছবি

তিনি বানিয়াচং ক্রীড়া সমিতির সম্পাদক,এলআর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য,আলিয়া মাদ্রাসা ও বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়,জনাব আলী কলেজের কার্যকরী কমিটির সহ-সভাপতি,জনকল্যাণ সমিতির সম্পাদকের দায়িত্ব পালনসহ জেলার আরো বেশ কয়েকটি সংস্থার সাথে জড়িত ছিলেন।

জাতীয় সংসদ চলাকালে ১৯৯৬ সালে আগস্ট মাসের ৬ তারিখ আকস্মিকভাবে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। তার মৃত্যুর পর জীবন ও কর্মের বিভিন্ন দিক নিয়ে দিনব্যাপী জাতীয় সংসদে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এবং সর্বশেষে সংসদে বানিয়াচং আজমিরীগঞ্জ রাস্তা শরীফ উদ্দিন আহমেদ সড়ক নামে নামকরণ করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

মরহুমের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে উপজেলা আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে বিভিন্ন কর্মসুচী গ্রহন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার জোহর নামাজের পর স্থানীয় আসকর উল্লাহ জামে মসজিদে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত,মিলাদ মাহফিল, দোয়া ও শিরণী বিতরণ করা হবে। উক্ত কর্মসুচীতে দলের সকল নেতাকর্মী,শুভাকাঙ্খি,আত্মীয় পরিজনসহ সকলকে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আমির হোসেন মাষ্টার ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন খান। অন্যদিকে শরীফ উদ্দিন এমপি গণগ্রন্থাগার এর উদ্যোগেও নেয়া হয়েছে নানা কর্মসূচি।

Developed By The IT-Zone