ঢাকাশুক্রবার , ১৩ মার্চ ২০২০
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বানিয়াচং জনতা উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতির বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ

দৈনিক আমার হবিগঞ্জ
মার্চ ১৩, ২০২০ ৪:৩৬ অপরাহ্ণ
Link Copied!

রায়হান উদ্দিন সুমন :   বানিয়াচং উপজেলার ৬নং কাগাপাশা ইউনিয়নের কাগাপাশা জনতা উচ্চ বিদ্যালয়ের লাইব্রেরিয়ান পদে পরীক্ষার মাধ্যমে প্রথম হয়ে নিয়োগ লাভ করলেও ওই পদের প্রার্থী উজ্জ্বল করকে অদ্যবধি পর্যন্ত রহস্যজনক কারণে নিয়োগ থেকে বিরত রেখেছেন জনতা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মনসুর আহমেদ চৌধুরী। এদিকে নিয়োগপ্রাপ্ত উজ্জ্বল কর বারবার সভাপতির কাছে ধর্ণা দিয়েও কোনো উপায় না পেয়ে হতাশ হয়ে বসে আছেন।

সুত্র জানায়,বানিয়াচং কাগাপাশা জনতা উচ্চ বিদ্যালয়ে একজন লাইব্রেরিয়ান নিয়োগ দেয়া হবে মর্মে সভাপতির স্বাক্ষরিত পত্রিকার মাধ্যমে একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। সেই বিজ্ঞপ্তি পেয়ে উজ্জ্বল কর নামে এক প্রার্থী আবেদন করেন। এ নিয়ে গত ১৯ জানুয়ারি হবিগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে লিখিত ও ভাইভা পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এই পরীক্ষায় উজ্জ্বল কর প্রথম স্থান অর্জন করেন। পরবর্তীতে তাকে এই পদে নিয়োগ দেয়ার জন্য উপজেলা মাধ্যমিক অফিস ও নিয়োগ কমিটি জনতা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সভাপতির কাছে সুপারিশ করেন। কিন্তু এই সুপারিশ অদ্যবধি পর্যন্ত রহস্যজনক কারণে আটকে রেখেছেন সভাপতি মনসুর আহমেদ চৌধুরী।

সুত্র আরো জানায়,সভাপতি মনসুর আহদে চৌধুরীর নিজের পছন্দের লোক না হওয়ায় পরীক্ষায় প্রথম হওয়া প্রার্থীকে যোগদান থেকে বিরত রেখেছেন। অথচ যে লোকটি তার পছন্দের ছিল সে পরীক্ষায় দশম স্থানেও আসতে পারেনি। সভাপতি সম্পুর্ণ নিয়ম বহির্ভুতভাবে চেষ্টা করে যাচ্ছেন তার নিজের লোক নিয়োগ দেয়ার জন্য।

 

এই বিষয়ে জনতা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মনসুর আহমেদ চৌধুরীর সাথে সাংবাদিক পরিচয়ে যোগযোগ করা হলে তিনি রাগান্বিত হয়ে এই প্রতিবেদককে জানিয়েছেন,তোমাকে কে বলছে এসব। আর তুমি কিসের সাংবাদিক? আমি এ নিয়ে মোবাইলে কথা বলবো না। তুমি পারলে সরাসরি এসে আামর সাথে কথা বল। এই বলে তিনি ফোনটি কেটে দেন। পরে বিস্তারিত জানার জন্য বারাবার ফোন দিলেও তা আর সম্ভব হয়নি।

 

বিষয়টি নিয়ে কথা হয় জনতা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হরিপদ বৈষ্ণব এর সাথে। তিনি জানান,ম্যানেজিং কমিটির সদস্যরা একমত হতে পারছেননা। তাই এটা স্থগিত রাখা রয়েছে।

 

বিস্তারিত জানতে কথা হয় উপজেলা মাধ্যমিক অফিসার কাওছার শোকরানা সাথে। তিনি জানান,বিদ্যালয়ের সভাপতি মনসুর আহমেদ চৌধুরী তার পছন্দের লোক নিয়োগপ্রাপ্ত না হওয়ায় পরীক্ষার মাধ্যমে প্রথম হওয়া লোককে তিনি যোগদানের অনুমতি দিচ্ছেননা এটা সত্য। তার যে পছন্দের লোক ছিল সে পরীক্ষায় একের মধ্যে আধা নাম্বার পেয়েছে। লিখিত ও ভাইভা পরীক্ষায় উজ্জ্বল কর নামে একজনকে নির্বাচন করা হয়। তাকে নিয়োগ দিতে আমরা সুপারিশও করেছি। কিন্তু সভাপতির পছন্দ না হওয়ায় তাকে নিয়োগও দেয়নি এমনকি তার নিয়োগ বাতিলও করেনি। তার এই নিয়োগ ঝুঁলিয়ে রেখেছেন সভাপতি মনসুর আহমেদ চৌধুরী।

Developed By The IT-Zone