ঢাকাবুধবার , ১৫ এপ্রিল ২০২০
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বানিয়াচংয়ে সোহাগের পাশে কেউ নেই ! ত্রাণ সহায়তা চেয়ে ফেসবুক লাইভ

দৈনিক আমার হবিগঞ্জ
এপ্রিল ১৫, ২০২০ ৮:০৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

জসিম উদ্দিন, বানিয়াচংঃ করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সরকারি নির্দেশনার পর ২৫ মার্চ থেকে দেশের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। ২৬ মার্চ থেকে সরকারি-বেসরকারি সব অফিসও বন্ধ হয়ে গেছে। এরপর যোগাযোগ ব্যবস্থাও রয়েছে বিচ্ছিন্ন। একই সঙ্গে ঘর থেকে বের না হওয়ার নির্দেশনা রয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে। তাই অতি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হচ্ছে না মানুষ।

ছবি : সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ত্রাণ সহায়তা পাওয়ার জন্য আবেগঘন লাইভ প্রচার করেন রাজমিস্ত্রি সোহাগ মিয়া

আর্থিকভাবে সচ্ছলরা নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য মজুদ করলেও দিনমজুরদের সে সুযোগ নেই। তাই সারাদশের ন্যায় বিপাকে পড়েছেন হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলার খেটে খাওয়া মানুষ। সরকারি সহায়তার পাশাপাশি যদিও আর্থিকভাবে অনেক সচ্ছল পরিবার অসহায়দের পাশে দাড়াচ্ছেন। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন এলাকায় বিতরণ করছেন ত্রাণ। কিন্তু এই সংকটময় মুহুর্তে সরকারি-বেসরকারি কোনো সহায়তাই পাননি বানিয়াচংয়ের সোহাগ। সোহাগ বানিয়াচং উপজেলার সদর ১নং ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের তাম্বলীটুলার মৃত আব্দুর রাজ্জাকের পুত্র।

সম্প্রতি ফেসবুক লাইভে রাজমিস্ত্রি সোহাগ বলেন, লকডাউনের কারনে গত একমাস যাবত বাড়িতে বসে আছি। কোনো কাজকর্ম করতে পারিনা। রাজমিস্ত্রির কাজ করে ৩-৪ হাজার টাকা নিয়ে এসেছিলাম। এই টাকা দিয়ে একমাস টেনেটুনে চলেছি। কিন্তু এখন আমার হাত একেবারে শূন্য। আমার সংসারে আমার বৃদ্ধ মা এবং এক বোন রয়েছে।

আমার অসুস্থ মায়ের জন্য প্রতিদিন ১৫০ টাকার ওষুধের প্রয়োজন হয়। শুনেছি সরকার কর্মহীনদের নগদ টাকা দিচ্ছে, ১০ কেজি করে চালও সহায়তা দিচ্ছে। আমার এলাকার মেম্বার আমার কাছ থেকে কার্ড নিয়েছেন। আমার পাশের বাড়িতে খাদ্য সহায়তা পৌছলেও আমি কোনো সহায়তা পাইনি।

দেশের এই সংকটময় মুহুর্তে কর্মহীন সোহাগ খাদ্য সহায়তার অপেক্ষায় রয়েছেন।

 

Developed By The IT-Zone