ঢাকামঙ্গলবার , ৫ জুলাই ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বানিয়াচংয়ে বেড়েছে পানিবাহিত রোগের প্রাদুর্ভাব : মাঠে রয়েছেন সরকারি-বেসরকারি স্বাস্থ্যকর্মীরা

ইমদাদুল হোসেন খান
জুলাই ৫, ২০২২ ৫:০৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

বানিয়াচংয়ে বন্যার পানি নামার সাথে সাথে দেখা দিয়েছে পানি বাহিত বিভিন্ন রোগের প্রাদুর্ভাব। প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা এবং আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার জন্য মাঠে নেমেছেন সরকারি-বেসরকারি চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মীরা। তৎপর রয়েছে বানিয়াচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও এর আওতাধীন সকল স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রসহ কমিউনিটি ক্লিনিকগুলো।

উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ ও বেসরকারি স্বাস্থ্যসেবাদানকারী সূত্রে জানা গেছে, বন্যার পানি নামার সাথে সাথে উপজেলার বিভিন্ন আশ্রয় শিবির ও গ্রামগুলোতে পানি বাহিত বিভিন্ন রোগ ছড়িয়ে পড়ছে। এসব রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন শিশু, বৃদ্ধসহ বিভিন্ন বয়সী মানুষ। আক্রান্ত রোগের মধ্যে রয়েছে জ্বর, পেটের পীড়া, ত্বকের এলার্জি জাতীয় ও ছত্রাকজনিত রোগ।

আক্রান্তদের মধ্যে শিশুদের সংখ্যা বেশি। রোগ প্রতিরোধে এবং আক্রান্তদের চিকিৎসায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে ওরস্যালাইন, পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেটসহ প্রয়োজনীয় ঔষধপত্র দিয়ে স্বাস্থ্যকর্মীদেরকে মাঠে নামানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার শামীমা আক্তার।

যেসব রোগীরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে আসছেন তাদেরকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে এবং স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র ও কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোতে ঔষধপত্র সরবরাহ করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন,ওইসব প্রতিষ্ঠানে দায়িত্বরতদেরকে নিয়মিত প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এছাড়া হেল্পলাইনেও চিকিৎসা সংক্রান্ত পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

বন্যা পরবর্তী জনস্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে যে যে উদ্যোগ নেয়া দরকার সবই নিয়ে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। ইনশাল্লাহ বানিয়াচং উপজেলায় পানি বাহিত রোগ ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ার আগেই নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবে।

বানিয়াচং আইডিয়াল কলেজে আশ্রয় নেয়া বানভাসিদের মধ্যে জ্বর, আমাশয়, পাতলা পায়খানা ও ফুট পাঁচড়া রোগ দেখা দিলে হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার লিপি রায় খাবার স্যালাইনসহ প্রয়োজনীয় ঔষধপত্র নিয়ে সেখানে গিয়ে রোগীদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা এবং বিনামূল্যে সরকারি ঔষধ প্রদান করেন।

এভাবে সরকারি স্বাস্থ্যকর্মীদের পাশাপাশি বেসরকারি স্বাস্থ্যকর্মী ও চিকিৎসকদেরকেও জনগণের পাশে থেকে সাধ্য অনুযায়ী চিকিৎসাসেবা ও বিনামূল্যে ঔষধ সরবরাহ করতে দেখা গেছে।

বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ডা: সাখাওয়াত হাসান জীবন তার পরিবারের পক্ষ থেকে বানিয়াচং ও আজমিরীগঞ্জ উপজেলায় খাদ্য সামগ্রী বিতরণের পাশাপাশি রোগীদেরকে বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা দিয়ে যাচ্ছেন। অন্যদিকে বানিয়াচংয়ে আরও দুই চিকিৎসক হবিগঞ্জ শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারি অধ্যাপক ডাক্তার পঙ্কজ কান্তি গোস্বামী এবং সিলেট রাগীব-রাবেয়া মেডিকেলের ডাক্তার সুস্মিতা মন্ডল পিংকিও সময়-সুযোগে বানিয়াচংয়ে বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা প্রদান করছেন।

সম্প্রতি তারা দু’জন বাসদ ও উদীচী আয়োজিত ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পে ৩ শতাধিক রোগীকে বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা প্রদান করেন এবং বাসদ ও উদীচীর ত্রাণ তহবিল থেকে রোগীদেরকে বিনামূল্যে ২ লক্ষাধিক টাকার ঔষধ প্রদান করা হয়।

ফার্মাসিউটিক্যালস রিপ্রেজেনটেটিভ এসোসিয়েশন (ফারিয়া) বানিয়াচং উপজেলা কমিটির পক্ষ থেকেও বিভিন্ন এলাকায় প্রাথমিক চিকিৎসা ও বিনামূল্যে ঔষধ সরবরাহ করা হচ্ছে।

এছাড়া মানবিক উন্নয়ন সংস্থার পক্ষ থেকে আদর্শ বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও পল্লী চিকিৎসক ডা. শফিকুর রহমান ঠাকুর এবং বড়বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী প্যারামেডিকস্ ডা. এস মুনীর আহমদ বিভিন্ন আশ্রয় শিবিরে গিয়ে রোগীদেরকে বিনামূল্যে প্রাথমিক চিকিৎসাসেবাসহ ঔষধ সরবরাহ করছেন।

ডাক্তার শফিকুর রহমান ঠাকুর জানান, ইতিমধ্যে তারা মজলিসপুর স্কুল, জামালপুর স্কুল, তুষার স্মৃতি স্কুলসহ উপজেলা সদরের কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আশ্রয় নেয়া বানভাসি মানুষের মধ্যে ফ্রি ক্যাম্প করেছেন।

ওইসব ক্যাম্পে কয়েকজন ডায়েরিয়ায় আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেছে। এছাড়া জ্বর, আমাশয়, ত্বকের ফুট পাঁচড়া, দাঁদ ইত্যাদি রোগে আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেছে।

ডায়রিয়ার রোগী খুব কম হলেও ত্বকের রোগীর পরিমাণ বেশি এবং জ্বরের রোগীও যথেষ্ট বলে তিনি জানান। আক্রান্তদের মধ্যে শিশুর সংখ্যা তুলনামূলক বেশি বলে তিনি জানিয়েছেন। তারা যেসব রোগী পেয়েছেন সবাইকেই বিনামূল্যে প্রাথমিক চিকিৎসা ও ঔষধ প্রদান করা হয়েছে ।

 

Developed By The IT-Zone